• Home
  • »
  • News
  • »
  • south-bengal
  • »
  • হরিয়ানা থেকে ফিরে করোনা পজিটিভ ভাতারের যুবক, এলাকায় আতঙ্ক

হরিয়ানা থেকে ফিরে করোনা পজিটিভ ভাতারের যুবক, এলাকায় আতঙ্ক

গ্রামের বাসিন্দাদের একুশ দিন এলাকার বাইরে না যাওয়ার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। গ্রামের পুরুষ মহিলাদের ঘর থেকে বের না হওয়ার পরামর্শ দিয়েছে জেলা পুলিশ।

গ্রামের বাসিন্দাদের একুশ দিন এলাকার বাইরে না যাওয়ার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। গ্রামের পুরুষ মহিলাদের ঘর থেকে বের না হওয়ার পরামর্শ দিয়েছে জেলা পুলিশ।

গ্রামের বাসিন্দাদের একুশ দিন এলাকার বাইরে না যাওয়ার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। গ্রামের পুরুষ মহিলাদের ঘর থেকে বের না হওয়ার পরামর্শ দিয়েছে জেলা পুলিশ।

  • Share this:

#পূর্ব বর্ধমান: করোনা আক্রান্তের হদিস মেলায় পূর্ব বর্ধমান জেলার ভাতারের বড় পোষলা গ্রামকে কন্টেইনমেন্ট জোন হিসেবে ঘোষণা করল জেলা প্রশাসন। ওই গ্রামে ঢোকার সব রাস্তা বাঁশের ব্যারিকেড দিয়ে ঘিরে দেওয়া হয়েছে।গ্রামের বাসিন্দাদের একুশ দিন এলাকার বাইরে না যাওয়ার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। গ্রামের পুরুষ মহিলাদের ঘর থেকে বের না হওয়ার পরামর্শ দিয়েছে জেলা পুলিশ।  এ ব্যাপারে বাসিন্দাদের সচেতন করতে এদিন এলাকায় পিপিই কিট পরে মাইকিং করেন পুলিশ কর্মীরা। জেলা পুলিশ জানিয়েছে, ওই এলাকায় বাইরে থেকে কেউ ঢুকতে পারবেন না। এলাকার বাসিন্দাদের ওষুধ বা নিত্য প্রয়োজনীয় সামগ্রীর প্রয়োজন হলে পুলিশ তা এনে দেবে।

পূর্ব বর্ধমানের ভাতারের বড় পোষলা গ্রামের এক যুবক হরিয়ানায় স্টিল পালিশের কাজ করতেন। সেখানেই থাকছিলেন তিনি। কিন্তু লকডাউনে সেই কাজ বন্ধ হয়ে যায়। হরিয়ানা থেকে দিল্লি হয়ে পাঁচ দিন আগে বাড়ি ফেরেন তিনি। জেলায় ঢোকার পর তার লালারসের নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছিল। ১৫ মে ওই লালারস সংগ্রহ করা হয়। ১৬ মে তা পরীক্ষার জন্য পাঠানো হয়। গতকাল তার করোনা পজিটিভ রিপোর্ট আসে।

আরও পড়ুন করোনা ভ্যাকসিনের 'প্রথম ধাপে' সফল আমেরিকার ওষুধ সংস্থা Moderna

জেলা স্বাস্থ্য দফতর জানিয়েছে, ওই রিপোর্ট পাওয়ার পরই তা পুলিশকে জানানো হয়৷ পাশাপাশি ওই যুবককে বাড়ি থেকে তুলে নিয়ে গিয়ে দুর্গাপুরের সনকা হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। তার সংস্পর্শে আসা বাড়ির সদস্যদের বর্ধমানের প্রি কোভিড হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। তাদের লালারস সংগ্রহ করা হচ্ছে। সেগুলি পরীক্ষার জন্য পাঠানো হবে। এছাড়াও ওই যুবক এলাকায় যাদের সংস্পর্শে এসেছিলেন তাদের তালিকা তৈরি করা হচ্ছে। তাদের চিহ্নিত করে কোয়ারান্টিনের ব্যবস্থা করা হবে।

এই ঘটনায় আতঙ্কিত ভাতারের বাসিন্দারা। করোনার সংক্রমণ এলাকার একমাত্র আলোচনার বিষয় হয়ে দাঁড়িয়েছে। এদিন ভাতার বাজার ছিল তুলনামূলকভাবে ফাঁকা। রাস্তায় লোক চলাচল কম ছিল৷  বাসিন্দারা বলছেন, এলাকার ওপর দিয়ে বহু পরিযায়ী শ্রমিক বাড়ি ফিরছেন তাদের অনেকেই হয়তো নিজেদের অজান্তেই করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ বহন করছেন।তাই এখন রাস্তায় না বেরোনোই উচিত।

Published by:Pooja Basu
First published: