corona virus btn
corona virus btn
Loading

নির্মম ভাবে শ্যালিকা, স্ত্রী ও শিশুকন্যাকে কোপালো এক ব্যক্তি, আশঙ্কাজনক তিনজনই

নির্মম ভাবে শ্যালিকা, স্ত্রী ও শিশুকন্যাকে কোপালো এক ব্যক্তি, আশঙ্কাজনক তিনজনই

আশঙ্কাজনক অবস্থায় তিনজনকেই বর্ধমান মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়

  • Share this:

#বর্ধমান: পারিবারিক বিবাদের জেরে নিজের স্ত্রী ও শিশু কন্যাকে নির্মম ভাবে কাস্তে দিয়ে কোপালো এক ব্যক্তি। এই ঘটনাকে কেন্দ্র করে পূর্ব বর্ধমান জেলায় ব্যাপক চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়েছে। বাঁচাতে এসে ওই ব্যক্তির রোষের সামনে পড়ে গুরুতর জখম হন তাঁর শ্যালিকাও। আশঙ্কাজনক অবস্থায় তিনজনকেই বর্ধমান মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। তাদের অবস্থা স্হিতিশীল বলে হাসপাতাল সূত্রে জানা গিয়েছে।

পূর্ব বর্ধমানের খন্ডঘোষ থানার হাড়ি পাড়ায় এই ঘটনা ঘটেছে। পরাণ বারুই নামে অভিযুক্ত ওই ব্যক্তিকে আটক করেছে খন্ডঘোষ থানার পুলিশ। পুলিশ ও এলাকার বাসিন্দাদের সূত্রে জানা গেছে, কয়েকদিন ধরেই মদ খেয়ে বাড়িতে অশান্তি করছিল অভিযুক্ত পরাণ বারুই। তার জেরে তিন দিন আগে স্ত্রী সুমিত্রা বারুই এক বছরের শিশু কন্যা রাজলক্ষ্মীকে সঙ্গে নিয়ে দিদি মালতী সাঁতরার বাড়িতে চলে যায়।

অভিযোগ শুক্রবার সন্ধ্যায় আচমকাই সেখানে চড়াও হয় পরাণ বারুই। প্রথমে বাঁশ ও পরে কাস্তে দিয়ে কোপ মারে স্ত্রী ও শিশুকন্যাকে। বাধা দিতে এলে রেওয়াত করা হয়নি শ্যালিকা মালতী সাঁতরাকেও। এলাকার বাসিন্দারা এসে তাদের উদ্ধার করে। পরাণকে আটক করে পুলিশের হাতে তুলে দেওয়া হয়। তিনজনকে রক্তাক্ত ও আশংকাজনক অবস্থায় বর্ধমান মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়।

গত কয়েকদিনে একের পর এক পারিবারিক হিংসার ঘটনা ঘটে চলে চলায় উদ্বিগ্ন পুলিশ। বর্ধমানের রায়ানে বাবার হাতে ছেলে খুনের ঘটনা ঘটেছে। আবার মেমারি থানার মন্ডল গ্রামে ছেলের হাতে মা খুন হয়েছে। তার মাঝেই বর্ধমানের তেজ গঞ্জে দিনের আলোয় দুষ্কৃতীদের হাতে নৃশংসভাবে এক বৃদ্ধ খুন হয়েছেন। তারপর খণ্ডঘোষ থানা এলাকায় নির্মমভাবে জখম হল শিশুকন্যাসহ দুই মহিলা।

Saradindu Ghosh

Published by: Ananya Chakraborty
First published: July 4, 2020, 6:09 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर