ত্রাণ নিয়ে কোনও অভিযোগ বরদাস্ত নয় , হিঙ্গলগঞ্জে গিয়ে কড়া নির্দেশ মমতার

মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়৷ র।

এ দিন উত্তর চব্বিশ পরগণার পাশাপাশি দক্ষিণ চব্বিশ পরগণার সাগরেও প্রশাসনিক বৈঠক করার কথা রয়েছে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের (Mamata Banerjee)৷

  • Share this:

    #হিঙ্গলগঞ্জ:  ইয়াসের তাণ্ডবে ক্ষতিগ্রস্ত মানুষকে ত্রাণ দেওয়ার ক্ষেত্রে কোনওরকম বেনিয়ম বরদাস্ত করা হবে না৷ এ দিন আকাশপথে উত্তর চব্বিশ পরগণার উপকূলবর্তী এলাকাগুলি পরিদর্শন করার পর হিঙ্গলগঞ্জে প্রশাসনিক বৈঠকে এমনই কড়া বার্তা দিলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়৷ তিনি স্পষ্ট করে দিয়েছেন, দুর্গতদের কাছে ত্রাণ পৌঁছে দেওয়াই এখন সরকারের মূল লক্ষ্য৷

    এ দিন উত্তর চব্বিশ পরগণার পাশাপাশি দক্ষিণ চব্বিশ পরগণার সাগরেও প্রশাসনিক বৈঠক করার কথা রয়েছে মুখ্যমন্ত্রীর৷ পাশাপাশি, পশ্চিম মেদিনীপুরের কলাইকুণ্ডায় প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির পর্যালোচনা বৈঠকে হাজির থাকার কথা মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের৷ পাশাপাশি মুখ্যমন্ত্রীর সঙ্গে প্রধানমন্ত্রীর আলাদা বৈঠক হওয়ারও কথা রয়েছে৷

    মুখ্যমন্ত্রী জানিয়েছেন, সন্দেশখালি, হিঙ্গলগঞ্জ, সাগরের মতো দুই চব্বিশ পরগণার উপকূলবর্তী এলাকাতেই ঘূর্ণিঝড় এবং জলস্ফীতির জেরে প্রায় ১ লক্ষ বাড়ি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে৷ নষ্ট হয়েছে ৪০ হাজার হেক্টর কৃষি জমি, ৭ হাজার জলাশয়৷ পাশাপাশি ১৬০০ কিলোমিটার রাস্তাও ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে৷ মমতা জানান, পথশ্রী প্রকল্পে রাস্তা তৈরি করে দেওয়া হবে৷

    মুখ্যমন্ত্রী এ দিনও জানান, দুয়ারে ত্রাণ প্রকল্পের মাধ্যমে সরকার মানুষের কাছে ত্রাণ এবং ক্ষতিপূরণের টাকা পৌঁছে যাবে৷ মমতা বলেন, 'যাঁদর ঘর বাড়ি, কৃষি জমি, মাছ নষ্ট হয়েছে তাঁরা দুয়ারে ত্রাণ গ্রামে গ্রামে এবং ব্লকে ব্লকে চলবে৷ ৩ থেকে ১৮ জুনের মধ্যে মানুষ এখানে এসে অভিযোগ জমা করবে৷ এই শিবির পুরোপুির সরকারি অফিসাররা চালাবেন৷ ১ থেকে ৮ জুলাইয়ের মধ্যে ত্রাণ বা ক্ষতিপূরণের টাকা সরাসরি ক্ষতিগ্রস্ত মানুষের ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্টে পৌঁছে যাবে৷'

    আমফানের পরে ত্রাণ বণ্টন নিয়ে রাজ্য জুড়ে শাসক দলের নিচুতলার নেতাদের বিরুদ্ধে দুর্নীতি এবং স্বজনপোষণের অভিযোগ উঠেছিল৷ সেই বিতর্ক এড়াতেই এবার আগে থেকে কড়া মনোভাব নিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী৷ সতর্ক রাজ্য প্রশাসনও৷

    খাবার এবং ত্রাণ নিয়ে যাতে কোনও অভিযোগ না থাকে, তা নিয়েও সতর্ক থাকার নির্দেশ দিয়েছেন মু্খ্যমন্ত্রী৷ তিনি বলেন, 'রিলিফ ক্যাম্পগুলিতে ইন্ডিয়ান মেডিক্যাল অ্যাসোসিয়েশন টিম পাঠাবে বলে জানিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী৷ আমি দেখতে চাই না কোথাও ত্রাণ, খাবার, ত্রিপল বিলি নিয়ে বঞ্চনার অভিযোগ উঠছে৷ যার যেটুকু প্রয়োজন দিতে হবে৷' বেবি ফুডেরও যাতে অভাব না হয়, সেই নির্দেশও দেন মমতা৷ আগামিকাল দিঘাতেও প্রশাসনিক বৈঠক করবেন মুখ্যমন্ত্রী৷

    Sukanta Mukherjee

    Published by:Debamoy Ghosh
    First published: