বাংলাকে ধমকালে লিউকোপ্লাস্ট দিয়ে দেবো, তথাগত-যুদ্ধে সায়নীর পাশে মমতা

বাংলাকে ধমকালে লিউকোপ্লাস্ট দিয়ে দেবো, তথাগত-যুদ্ধে সায়নীর পাশে মমতা
সায়নী ঘোষের পাশে দাঁড়ালেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

পুরুলিয়া থেকে তোপ দেগে বললেন, বাংলায় ধমকের রাজনীতি করতে এলে এলে রুখে দেবেন তিনিই।

  • Share this:

    #হাটমুড়া: বিতর্কিত ট্যুইটকাণ্ডে টলিউড অভিনেত্রী সায়নী ঘোষের পাশে দাঁড়ালেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। পুরুলিয়া থেকে তোপ দেগে বললেন, বাংলায় ধমকের রাজনীতি করতে এলে এলে রুখে দেবেন তিনিই।

    এ দিন হাটমুড়ার জনসভা থেকে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় প্রসঙ্গটি তুলে এনে বলেন, "সায়নী ঘোষ বলে একটি মেয়েকে ধমকাচ্ছে । ও সিনেমার কাজ করে।" এর পরেই মমতার উবাচ- বাংলায় ধমকালে লিউকোপ্লাস্ট দিয়ে দেবো।

    আক্ষেপের সুরে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, " উনি নাতনির বয়সি মেয়েকে ভয় দেখাচ্ছেন!" নাম না করলেও স্পষ্টই মমতা অভিযোগের তির তথাগত রায়ের দিকেই।


    শুধু মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ই নন, সায়নী অবশ্য পাশে পেয়েছেন তৃণমূলের আরেক নেত্রী কাকলি ঘোষ দস্তিদারকেও। সায়নীকে যেভাবে ধর্ষণের হুমকি দেওয়া হচ্ছে ট্যুইটারে তার বিরুদ্ধে সরব হন কাকলিও।

    ঘটনার সূত্রপাত দিন কয়েক আগে। একটি টিভি শো-তে সায়নী বলেন, জয়শ্রীরাম স্লোগানটি যেন রণধ্বনিতে পরিণত হচ্ছে। ঈশ্বরকে ডাকা উচিত ভালোবেসে। এরপর সায়নীর একটি পুরনো ট্যুইট তুলে এনে সায়নীর বিরুদ্ধে রবীন্দ্র সরোবর থানায় এফআইআর করেন মেঘালয়ের প্রাক্তন রাজ্যপাল। সায়নীর বিরুদ্ধে অভিযোগ তিনি ২০১৫ সালে একটি গ্রাফিক ট্যুইট করেন, সেটি এইডস সচেতনতার বিজ্ঞাপন ছিল। বিজ্ঞাপনে দেখা যায় শিবলিঙ্গে কন্ডোম পরাচ্ছেন এক মহিলা। গ্রাফিকে লেখা ছিল বুলাদির শিবরাত্রি।

    তথাগত রায় অভিযোগে বলেন, এই ছবি দেখে তাঁর ধর্মীয় ভাবাবেগ আহত হয়েছে। তিনি চান সায়নীর বিরুদ্ধে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ করা হোক। এই সংঘাতের আবহে টলি শিবিরও দ্বিধাবিভক্ত। যুদ্ধে নেমে অবশ্য় মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে পাশে পেলেন সায়নী।

    Published by:Arka Deb
    First published: