• Home
  • »
  • News
  • »
  • south-bengal
  • »
  • ঢাকের বাদ্যির মধ্যেই মুখ্যমন্ত্রীর ভার্চুয়াল উদ্বোধন, পূর্ব বর্ধমান জেলায় পুজোর শুরু

ঢাকের বাদ্যির মধ্যেই মুখ্যমন্ত্রীর ভার্চুয়াল উদ্বোধন, পূর্ব বর্ধমান জেলায় পুজোর শুরু

মাস খানেক আগেও এই করোনার আবহে পুজোর আয়োজন কীভাবে সম্ভব হবে তা ভেবে উঠতে পারছিলেন না পুজোর উদ্যোক্তারা।

মাস খানেক আগেও এই করোনার আবহে পুজোর আয়োজন কীভাবে সম্ভব হবে তা ভেবে উঠতে পারছিলেন না পুজোর উদ্যোক্তারা।

মাস খানেক আগেও এই করোনার আবহে পুজোর আয়োজন কীভাবে সম্ভব হবে তা ভেবে উঠতে পারছিলেন না পুজোর উদ্যোক্তারা।

  • Share this:

    #বর্ধমান: করোনা আবহের মধ্যে শুরু হয়ে গেল এবারের দুর্গা পুজো। ঢাকের বাদ্যির মধ্যেই পূর্ব বর্ধমান জেলার সাতটি পুজোর উদ্বোধন করলেন রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। ভার্চুয়াল মাধ্যমে এই উদ্বোধন করেন তিনি। মুখ্যমন্ত্রীর উদ্বোধন করা পূজা মণ্ডপগুলিতে জেলা প্রশাসনের আধিকারিকরা উপস্থিত ছিলেন। ছিলেন পুজোর আয়োজকরাও।

    মাস খানেক আগেও এই করোনার আবহে পুজোর আয়োজন কীভাবে সম্ভব হবে তা ভেবে উঠতে পারছিলেন না পুজোর উদ্যোক্তারা। স্পনসর না থাকায় বেশিরভাগ পুজোর বাজেট এবার অনেক কমিয়ে আনা হয়েছে। থিমের বৈচিত্র্যের বদলে এবার সাধারণ মানের মণ্ডপের উপর জোর দিয়েছেন পুজোর উদ্যোক্তারা। পুজো যে হচ্ছেই সেই সিদ্ধান্ত নিতেই এবার অনেক দেরি হয়ে গিয়েছিল। মণ্ডপ তৈরির কাজ শুরু হয় কয়েকদিন আগেই। তারই মধ্যে মুখ্যমন্ত্রী ভার্চুয়াল পুজো উদ্বোধনের দিনক্ষণ চূড়ান্ত হয়ে যাওয়ায় জোর তৎপরতার সঙ্গে কাজ শেষ করার চেষ্টা চালায় এই সাতটি পুজো কমিটি। দিনরাত এক করে পরিশ্রমের পর মণ্ডপ ও প্রতিমা উদ্বোধনের উপযোগী করে তুলেছেন শিল্পীরা। তবে এখনও অনেক কাজ বাকি বলে জানিয়েছেন তাঁরা।

    এ দিন কালনার যোগীপাড়া পুরাতন বাস স্ট্যান্ড ব্যবসায়ী সমিতির পুজো,নাদন ঘাটের নসরতপুর ইন্দ্রপল্লি বারোয়ারি পুজো, কাটোয়া যাজিগ্রাম মোড়ের নবোদয় সংঘ, বর্ধমানের বরশুল জাগরণী, মেমারির সারদাপল্লি, অরবিন্দ পল্লি,বর্ধমানের সবুজ সংঘ ও লাল্টু স্মৃতি সংঘের পুজোর ভার্চুয়াল উদ্বোধন করেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। পুজোর উদ্যোক্তারা জানিয়েছেন, 'এই পরিস্থিতিতে রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীর হাত দিয়ে পুজোর উদ্বোধন হওয়ায় আমরা আপ্লুত। কীভাবে কাজ সম্পূর্ণ করব তা ভেবে উঠতে পারছিলাম না। দিনরাত এক করে শিল্পীরা অসম্ভবকে সম্ভব করে তুলেছেন।' এই মহামারি পরিস্থিতিতে সকলে যাতে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলেন, দুর্গাপুজোর দিনগুলিতে যাতে পুজো মণ্ডপ ও তার আশপাশে দর্শকরা সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখেন তা নিশ্চিত করার ব্যাপারে জোর দেওয়া হবে বলে জানিয়েছেন পুজোর উদ্যোক্তারা। বাসিন্দাদের সচেতন করতে পুজোর দিন গুলিতে মাইকে প্রচার চালানো হবে বলে জানিয়েছেন তাঁরা।

    Saradindu Ghosh

    Published by:Debamoy Ghosh
    First published: