পায়ে চোট লাগার পর কেটেছে ৮ দিন, এখন কেমন আছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়? নিজেই জানালেন মুখ্যমন্ত্রী

পায়ে চোট লাগার পর কেটেছে ৮ দিন, এখন কেমন আছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়? নিজেই জানালেন মুখ্যমন্ত্রী

কেমন আছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়? নিজেই জানালেন মুখ্যমন্ত্রী

এখন কেমন আছেন মুখ্যমন্ত্রী তথা তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্য়ায়? পশ্চিম মেদিনীপুরের রাজনৈতিক সভা থেকে তার উত্তর দিয়েছেন স্বয়ং মুখ্যমন্ত্রীই।

  • Share this:

#কলকাতা: ভাঙা পায়ে খেলা হবে, জিততে হবে। এই স্লোগানকে সামনে রেখে ভোটের প্রচার শুরু করে দিয়েছে তৃণমূল কংগ্রেস। দুর্ঘটনার পর কেটে গিয়েছে আট দিন। এখন কেমন আছেন মুখ্যমন্ত্রী তথা তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্য়ায়? পশ্চিম মেদিনীপুরের রাজনৈতিক সভা থেকে তার উত্তর দিয়েছেন স্বয়ং মুখ্যমন্ত্রীই।

এদিন গড়বেতার সভা থেকে মমতা বন্দোপাধ্যায় জানিয়েছেন, "পায়ে আমার চোট লেগেছে। আগে আমার মাথায় মেরেছে। আমার হাত ভেঙে দিয়েছে। পা আমার ঠিক ছিল। ২০-২৫ কিমি আমি হাঁটাহাটি করতাম। আমার পায়ে চোট করে দিয়েছে। এই চোট আসলে আমার হৃদয়ে লেগেছে।"

মানুষের পা-ই যে তার প্রধান ভরসা এদিন আরও একবার মনে করিয়ে দিয়েছেন মমতা বন্দোপাধ্যায়। বুধবার ঝাড়গ্রামে দুটি রাজনৈতিক সভা করার পরে কলকাতায় ফেরেন মমতা বন্দোপাধ্যায়। বুধবার চিকিৎসকরা পরীক্ষা করে দেখেন তার আঘাতপ্রাপ্ত পা। মমতা বন্দোপাধ্যায় জানিয়েছেন, "পায়ে এখনও রক্ত জমাট বেঁধে আছে। আমার যন্ত্রণা রয়েছে। তাও আমি আসছি। কারণ দুয়ারে সাপ আর দুয়ারে বাঘ আসলে তাদের ঘরে ঢুকতে দেওয়া যাবে না।"

গত ১০ মার্চ হলদিয়ায় মনোনয়ন পেশের পরে ফের নন্দীগ্রামে যান মমতা বন্দোপাধ্যায়। সেখানেই বিরুলিয়া বাজারে আঘাত লাগে তার বাঁ পায়ে। মমতা বন্দোপাধ্যায়কে নিয়ে আসা হয় কলকাতার এসএসকেএম হাসপাতালে। সেখানেই ভর্তি করা হয় তাকে। চিকিৎসকরা তাঁকে হাসপাতালে ভর্তি থাকতে বললেও তিনি সেই প্রস্তাবে রাজি ছিলেন না। ৪৮ ঘন্টা হাসপাতালে থাকার পরে তিনি বাড়ি ফিরে যান। গত রবিবার ১৪ মার্চ থেকে তিনি প্রচার শুরু করে দেন।

রবিবার কলকাতায় মিছিল করেন। সোমবার থেকে লাগাতার তিনি সভা করে চলেছেন রাজ্যের একাধিক জেলায়। তার পায়ের চোট নিয়ে ইতিমধ্যেই লাগাতার আক্রমণ করে চলেছেন বিজেপি সহ সমস্ত বিরোধী রাজনৈতিক দলের সদস্যরা। তার পায়ে চোট থাকায় সভাস্থলে আসা যাওয়ায় বেশি সময় লাগছে মমতা বন্দোপাধ্যায়ের।

Abir Ghoshal

Published by:Swaralipi Dasgupta
First published:

লেটেস্ট খবর