Modi Mamata Meeting: ১৫ মিনিট আকাশে চক্কর, আরও ১৫ মিনিট অপেক্ষা! অবশেষে মোদিকে রিপোর্ট দিলেন মমতা

প্রধানমন্ত্রীর হাতে এই রিপোর্টই তুলে দিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী৷

নবান্ন সূত্রের খবর, এ দিন সাগরে প্রশাসনিক বৈঠক সেরে কলাইকুন্ডায় প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির (Narendra Modi) সঙ্গে দেখা করতে রওনা দেওয়ার কথা ছিল মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় (Mamata Banerjee)৷

  • Share this:

#দিঘা: প্রথমে বলা হল কুড়ি মিনিট দেরিতে রওনা দিতে৷ তার পর কলাইকুন্ডায় নামার আগে আরও পনেরো মিনিট আকাশে চক্কর কাটল মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের কপ্টার৷ এখানেই শেষ নয়, কলাইকুন্ডা বিমান ঘাঁটিতে পৌঁছেও প্রায় ১৫ মিনিট অপেক্ষা করার পর প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে দেখা করতে পারলেন মুখ্যমন্ত্রী৷

নবান্ন সূত্রের খবর, এ দিন সাগরে প্রশাসনিক বৈঠক সেরে কলাইকুন্ডায় প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে দেখা করতে রওনা দেওয়ার কথা ছিল মুখ্যমন্ত্রীর৷ কিন্তু নির্দিষ্ট সময়ের কুড়ি মিনিট পর মুখ্যমন্ত্রীর কপ্টার উড়বে বলে তাঁকে জানানো হয়৷ সম্ভবত প্রধানমন্ত্রীর দফতর থেকেই এই নির্দেশ আসে৷ এর পর মুখ্যমন্ত্রী কলাইকুন্ডার উদ্দেশ্যে রওনা দেন৷ কিন্তু কলাইকুন্ডায় নামার আগে ফের বিপত্তি৷ এবার প্রায় ১৫ মিনিট আকাশে চক্কর কাটার পর অবতরণের অনুমতি পায় মুখ্যমন্ত্রীর কপ্টার৷ মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় আগেই জানিয়েছিলেন, তিনি প্রধানমন্ত্রীর রিভিউ মিটিংয়ে থাকবেন না৷ ঘূর্ণিঝড়ের জেরে রাজ্যের কী ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে, প্রধানমন্ত্রীর হাতে সেই সংক্রান্ত রিপোর্ট তুলে দিয়েই ফিরে আসবেন৷

যদিও সূত্রের খবর, কলাইকুন্ডা বিমান ঘাঁটিতে পৌঁছেও প্রায় ১৫ মিনিট অপেক্ষা করতে হয় মুখ্যমন্ত্রীকে৷ প্রধানমন্ত্রীর দফতরের আধিকারিকরা তাঁকে জানান, প্রধানমন্ত্রীর রিভিউ মিটিং শুরু হয়ে গিয়েছে৷ সেই বৈঠক শেষ না হলে প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে সাক্ষাৎ করা যাবে না বলেও জানানো হয়৷ কিন্তু মুখ্যমন্ত্রীর এ দিনই দিঘায় প্রশাসনিক বৈঠক ছিল৷ অন্যদিকে আবহাওয়ার পরিস্থিতিও ক্রমশ খারাপ হতে থাকে৷ ফলে রিভিউ মিটিং শেষ হওয়ার আগেই প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে দেখা করেন মুখ্যমন্ত্রী৷ সৌজন্য বিনিময়ের পর প্রধানমন্ত্রীর হাতে ইয়াসের জেরে ক্ষয়ক্ষতি সংক্রান্ত রিপোর্ট তুলে দেন মুখ্যমন্ত্রী৷ রাজ্যের তরফে ২০ হাজার কোটি টাকা ক্ষতিপূরণের দাবি জানানো হয়েছে৷ পাশাপাশি দিঘা এবং সুন্দরবনের জন্য ১০ হাজার কোটি টাকা করে আলাদা প্যাকেজ দাবি করা হয়েছে৷

জানা গিয়েছে, রাজ্যের তরফে প্রধানমন্ত্রীকে ১৪ পাতার রিপোর্ট তুলে দেওয়া হয়েছে৷ রিপোর্টে তথ্যের পাশাপাশি ক্ষতিগ্রস্ত এলাকার ছবিও দেওয়া হয়েছে৷ কোন এলাকায় কী কী ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে, পুনর্গঠনে কত খরচ, তা পয়েন্ট আকারে দিয়ে দেওয়া হয়েছে৷ কোন এলাকাগুলিতে ইয়াসের তাণ্ডব বেশি হয়েছে, তারও উল্লেখ করা হয়েছে৷ পাশাপাশি, ঘূর্ণিঝড়ে বিধ্বস্ত দিঘা এবং সুন্দরবনের জন্য মাস্টার প্ল্যানও জমা দেওয়া হয়েছে৷

নরেন্দ্র মোদির হাতে রিপোর্ট তুলে দেওয়ার পর অবশ্য আর কলাইকুন্ডায় অপেক্ষা করেননি মুথ্যমন্ত্রী৷ দিঘায় বৈঠক থাকার কারণে প্রধানমন্ত্রীর অনুমতি নিয়েই রওনা দেন তিনি৷

Abir Ghosal

Published by:Debamoy Ghosh
First published: