• Home
  • »
  • News
  • »
  • south-bengal
  • »
  • প্রথম প্রচারেই মাইক বিভ্রাট, রুষ্ট মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়

প্রথম প্রচারেই মাইক বিভ্রাট, রুষ্ট মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়

Mamata Banerjee at Nandigram

Mamata Banerjee at Nandigram

প্রথম দিনের প্রচারেই মাইকে গন্ডগোল। বক্তব্য পেশ করতে বেশ অসুবিধায় পড়তে হল তৃণমূল সুপ্রিমো মমতা বন্দোপাধ্যায়কে। গোটা ঘটনায় তিনি দৃশ্যতই ক্ষুব্ধ।

  • Share this:

#নন্দীগ্রাম: প্রথম দিনের প্রচারেই মাইকে গন্ডগোল। বক্তব্য পেশ করতে বেশ অসুবিধায় পড়তে হল তৃণমূল সুপ্রিমো মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়৷ গোটা ঘটনায় তিনি দৃশ্যতই ক্ষুব্ধ। বক্তব্য শেষ করে মঞ্চে দাঁড়িয়েই মমতা বলেন, "আজকের মাইকটা সত্যিই খারাপ ছিল। এই মাইকে ভাষণ দেওয়া সম্ভব নয়। একদিনেই আমার গলা বসিয়ে দিয়েছেন। যে করেছেন ঠিক করেননি। নো দিজ ইজ নট ফেয়ার!"

এদিন মমতা বন্দোপাধ্যায়কে হেলিকপ্টার নন্দীগ্রামের আকাশে দেখা দিতেই উৎসাহী কর্মীরা মেতে ওঠেন খেলা হবে স্লোগানে। যদিও বিজেপি শিবিরের অভিযোগ মমতার সভায় ভিড় নেই। তৃণমূল নেত্রী অবশ্য সভার শুরুতেই মনে করিয়ে দিয়েছেন, "এটা কোনও জনসভা নয়। এটা আমাদের কর্মীসভা। নন্দীগ্রামের আমাদের কর্মীদের নিয়ে আমি আজ বুথ ভিত্তিক সভা করছি।" ফলে তাঁর সভায় কর্মীদের উপস্থিতি নিয়ে যে প্রচার বিজেপি করছে তা মানতে রাজি নন মমতা বন্দোপাধ্যায়।

এদিন মাইক নিয়ে বিভ্রাট অবশ্য শুরু থেকেই ছিল। মুখ্যমন্ত্রী মঞ্চে এসে বসার পর থেকেই মাইকে সমস্যা শুরু হয়। নন্দীগ্রামে মমতা বন্দোপাধ্যায়ের নির্বাচনী এজেন্ট শেখ সুফিয়ান বা পরবর্তী সময়ে  সভাপতি সুব্রত বক্সী মাইক নিয়ে সমস্যায় পড়েছেন। সেটা তাঁরা দৃষ্টি আকর্ষণ করেছেন। তবে মাইক সমস্যা করলেও দলের কর্মীদের উৎসাহে কোনও ভাটা পড়েনি। বিশেষ করে 'খেলা হবে' স্লোগানে এদিনও মুখরিত ছিল মমতার সভা।

এদিন মমতা  পরিদর্শন করেন বেশ কয়েকটি মন্দির। তিনি যান সোনাচূড়ার শহিদ বেদীতে। প্রতি জায়গাতেই মমতা বন্দোপাধ্যায়কে ঘিরে ছিল মানুষের উৎসাহ। সেকারণেই এদিন মমতা আরও একবার মনে করিয়ে দিয়েছেন তাঁর উন্নয়ন অ্যাজেন্ডাকে। নন্দীগ্রামের ঘরে ঘরে পানীয় জল পৌঁছে দেওয়া। বিশ্ববিদ্যালয় তৈরি করা হবে আগামী দিনে। সার্বিক ভাবে পরিকাঠামো উন্নয়নের দিকেই যে তার নজর এদিন তা আরও একবার স্পষ্ট করেছেন তিনি।রাজনৈতিক মহলের মতে মাইকে বিভ্রাট থাকলেও সুর সপ্তমে চড়িয়েছেন নন্দীগ্রামের তৃণমূল প্রার্থী মমতা বন্দোপাধ্যায়।

(আবীর ঘোষাল)

Published by:Subhapam Saha
First published: