"আমি স্ট্রিটফাইটার, মুখ্যমন্ত্রী বলে বিশেষ কেউ না" হুইল চেয়ারে বসেই আক্রমনাত্মক মেজাজে মমতা

"আমি স্ট্রিটফাইটার, মুখ্যমন্ত্রী বলে বিশেষ কেউ না" হুইল চেয়ারে বসেই আক্রমনাত্মক মেজাজে মমতা

হুইল চেয়ারে বসেই আক্রমনাত্মক মেজাজে মমতা

দীর্ঘ ৪৫ মিনিটের বক্তব্য তিনি বুঝিয়ে দিলেন হুইল চেয়ারে বসেই। পুরনো মেজাজেই ফের বক্তব্য রাখলেন। সোমবার পুরুলিয়ার বলরামপুরের জনসভা থেকে বিজেপিকে একের পর এক চাঁচাছোলা ভাষায় আক্রমণ করলেন তৃণমূল নেত্রী।

  • Share this:

#পুরুলিয়া: হুইল চেয়ারে বসেই পুরনো মেজাজেই সোমবার নির্বাচনী জনসভা করলেন তৃণমূল নেত্রী তথা মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। দীর্ঘ ৪৫ মিনিটের বক্তব্য তিনি বুঝিয়ে দিলেন হুইল চেয়ারে বসেই। পুরনো মেজাজেই ফের বক্তব্য রাখলেন। সোমবার পুরুলিয়ার বলরামপুরের জনসভা থেকে বিজেপিকে একের পর এক চাঁচাছোলা ভাষায় আক্রমণ করলেন তৃণমূল নেত্রী। তিনি বলেন " আজ পা ভাঙা নিয়ে এলাম। জিতে দুটো পা নিয়ে আসব।" শুধু তাই নয় এদিন নির্বাচনী জনসভা থেকে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বুঝিয়ে দেন হুইল চেয়ারে বসে সভা করলেও তিনি আদপে স্ট্রিটফাইটার। পুরুলিয়া বলরামপুর এর জনসভা থেকে তিনি বলেন " আমি এখন স্ট্রিটফাইটার।মুখ্যমন্ত্রী বলে আমি বিশেষ কেউ নয়।"

এদিন পুরুলিয়ার বলরামপুর এর জনসভা থেকে আদিবাসীদের উন্নয়নের জন্য একাধিক প্রতিশ্রুতি দেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। গত লোকসভা নির্বাচনে পুরুলিয়া লোকসভা আসন ছিনিয়ে নিয়েছিল বিজেপি। কার্যত ভরাডুবি হয়েছিল তৃণমূল কংগ্রেসের। একটিমাত্র বিধানসভা ছাড়া বাকি সব কটি বিধানসভাতেই এগিয়েছিল বিজেপি। আদিবাসী ভোট কার্যত তৃণমূলের থেকে মুখ ফিরিয়ে নিয়েছিল। এবার সেই ভোটকে ফেরানো তৃণমূলের লক্ষ্য। যার জন্য আদিবাসীদের জন্য এখনও পর্যন্ত রাজ্য কী কী করেছে তার খতিয়ান এদিন তুলে ধরেন তৃণমূল নেত্রী। রাজ্যের তরফে পেশ করা গত বাজেটে আদিবাসীদের উন্নয়নের জন্য কী কী পরিকল্পনা করা হয়েছে তা এদিন পুরুলিয়ার বলরামপুরের জনসভা থেকে মনে করিয়ে দিয়েছেন তৃণমূল নেত্রী।

যদিও বলরামপুরের জনসভা থেকে পরোক্ষভাবে গোষ্ঠীদ্বন্দ্ব নিয়েও এদিন বার্তা দেন তৃণমূল নেত্রী। তিনি বলেন "কাজ করতে গিয়ে কেউ যদি ভুল করে থাকে. আমি তাহলে তার হয়ে ক্ষমা চেয়ে নিচ্ছি। কেউ অন্যায় করলে আমি তাকে ক্ষমা করি না।" গত লোকসভা নির্বাচনে পুরুলিয়া তৃণমূলের ভরাডুবি কারণ হিসেবে গোষ্ঠীদ্বন্দ্ব অন্যতম ছিল বলেই রাজনৈতিক পর্যবেক্ষকদের মত। তৃণমূলের বলরামপুরের জনসভা থেকে নেত্রী বুঝিয়ে দিলেন আগামী দিনে গোষ্ঠীদ্বন্দ্ব আরও চলতে থাকলে এবার শাস্তি পেতেই হবে নেতাদের।

তবে শুধু আদিবাসী উন্নয়ন নয় জঙ্গলমহলের জন্য কী কী পরিকল্পনা বাস্তবায়িত করেছে এই সরকার তারও খতিয়ান এদিন তুলে ধরেন মুখ্যমন্ত্রী। তিনি বলেন " আমি যখন পুরুলিয়া-বলরামপুরে আসতাম তখন মানুষ রাস্তা বেরোতে ভয় পেত।এখন সবাই শান্তিতে ঘুরে বেড়ায়। পুরুলিয়ায় জলের সমস্যা আছে আমি জানি। আশা করি সেই সমস্যা খুব তাড়াতাড়ি মিটে যাবে।" পাশাপাশি এদিন তিনি একহাত নেন পুরুলিয়ার বিজেপি সাংসদ কেও।

সোমরাজ বন্দ্যোপাধ্যায়

Published by:Swaralipi Dasgupta
First published: