জুন মাসের পরও বিনামূল্যে রেশন মিলবে, বর্ধমানে মাটি উৎসবে বললেন মুখ্যমন্ত্রী

জুন মাসের পরও বিনামূল্যে রেশন মিলবে, বর্ধমানে মাটি উৎসবে বললেন মুখ্যমন্ত্রী
মা মাটি মানুষের সরকার। আগামী দিনেও আপনারা বিনা পয়সায় রেশন পাবেন। জুন মাসের পরেও বিনা পয়সায় রেশন মিলবে। বছরে পাঁচ লক্ষ টাকা করে স্বাস্থ্যসাথীর সুবিধা মিলবে।

মা মাটি মানুষের সরকার। আগামী দিনেও আপনারা বিনা পয়সায় রেশন পাবেন। জুন মাসের পরেও বিনা পয়সায় রেশন মিলবে। বছরে পাঁচ লক্ষ টাকা করে স্বাস্থ্যসাথীর সুবিধা মিলবে।

  • Share this:

#বর্ধমান: আগামী দিনেও বিনা পয়সায় রেশন মিলবে। বর্ধমানে এবারের মাটি উৎসবের সূচনা করে এ কথা জানালেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তিনি বলেন, আগামী দিনেও বিনা পয়সায় রেশন দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছি আমরা। মঙ্গলবার বর্ধমানের মাটি উৎসবের মঞ্চ থেকে কেন্দ্রের বিজেপি সরকারের কড়া সমালোচনা করেন মুখ্যমন্ত্রী। রাজ্য সরকারের বিভিন্ন দপ্তরের সম্মিলিত উদ্যোগে আয়োজিত মাটির উৎসবের উদ্বোধনের পাশাপাশি তিনি এদিন মঞ্চ থেকে রাজ্য সরকারের বিভিন্ন প্রকল্পের উপভোক্তাদের হাতে বিভিন্ন প্রকল্পের সুবিধা তুলে দেন। সেইসঙ্গে মাটি উৎসবের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে বিভিন্ন জেলার কৃষকদের সম্মান জানানো হয়। সভায় মুখ্যমন্ত্রী ছাড়াও কৃষিমন্ত্রী আশিস বন্দোপাধ্যায়, কৃষি বিপনন মন্ত্রী তপন দাশগুপ্ত, শ্রম মন্ত্রী মলয় ঘটক উপস্থিত ছিলেন।

মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, কৃষকরা আমাদের রত্ন। তাঁদের প্রণাম জানাই। সব কৃষক পরিবার যাতে স্বাস্থ্যসাথীর আওতায় আসতে পারে তা নিশ্চিত করতে হবে। বছরে দুবার করে দুয়ারে সরকার শিবির হবে। তাতে সবাই নাম লেখাবেন। দুয়ারে সরকার থেকে আঠারো লক্ষ কাস্ট সার্টিফিকেট দেওয়া হয়েছে। পনেরো লক্ষ বিধবা ভাতা, বার্ধক্য ভাতা দেওয়া হয়েছে।


তিনি বলেন, মনে রাখবেন এটা মা মাটি মানুষের সরকার। আগামী দিনেও আপনারা বিনা পয়সায় রেশন পাবেন। জুন মাসের পরেও বিনা পয়সায় রেশন মিলবে। বছরে পাঁচ লক্ষ টাকা করে স্বাস্থ্যসাথীর সুবিধা মিলবে। প্রতি তিন বছর অন্তর স্বাস্থ্য সাথী কার্ড রিনিউ করা হবে। মা মাটি মানুষের সরকার মানুষের জন্য। জন্ম থেকে মৃত্যু পর্যন্ত বিভিন্ন প্রকল্প করা হয়েছে মানুষের সুবিধার জন্য। আমাদের সরকার মানুষের সরকার। তাই তৃণমূল কংগ্রেসের সরকার বারবার দরকার। আমরা বিজেপির মত অত্যাচার করি না। দাঙ্গা বাধাই না। আমরা মা বোনদের মধ্যে ঝগড়া বাঁধাই না। কৈকেয়ী ও মন্থরার কাজ করি না। আমরা চাই মানুষ শান্তিতে থাকুক। ভালো থাকুক। নয়া কৃষি আইন নিয়ে কেন্দ্রীয় সরকারের কড়া সমালোচনা করেন তিনি। মুখ্যমন্ত্রী বলেন, কৃষকরা যাতে ন্যায্য মূল্য পায় তা নিশ্চিত করতে আমরা সহায়ক মূল্য কৃষকদের উৎপাদিত ধান কিনে নিচ্ছি। কেন্দ্রে বিজেপি সরকার কৃষি আইন করে কৃষকদের সর্বস্বান্ত করতে চাইছে।

Saradindu Ghosh

Published by:Debalina Datta
First published:

লেটেস্ট খবর