corona virus btn
corona virus btn
Loading

 মাখা সন্দেশের দাম রোজ ওঠানামা করে কোন শহরে!

 মাখা সন্দেশের দাম রোজ ওঠানামা করে কোন শহরে!

কালনার মাখা সন্দেশের বিশেষত্ব হল, এই সন্দেশ মোলায়েম নয়। দানা দানা। চিনির ভাগ থাকে কম। ছানার ভাগ বেশি। সে কারণেই তার স্বাদও বেশি। চাহিদাও ব্যাপক।

  • Share this:

#কালনা: শেষ পাতে চাই মিষ্টি। মাখা সন্দেশ হলে কেমন হয়? তবে চলুন যাই কালনায়। এক দু দশক নয়, তিনশো বছরেরও বেশি সময় ধরে মাখা সন্দেশের জন্য বিখ্যাত গঙ্গা তীরের এই শহর। সারা বছর প্রতিদিন  মাখা সন্দেশ তৈরি হয় এ শহরে। ক্রেতাদের হাত ধরে তা পৌঁছে যাচ্ছে জেলায় জেলায়, ভিন রাজ্যে। কালনায় মাখা সন্দেশের দাম ওঠানামা করে নিয়মিত। ছানার দামের সঙ্গে তাল মিলিয়ে দাম বাড়ে কমে।

পূর্ব বর্ধমানের গঙ্গা তীরের মহকুমা শহর কালনা। এই শহর সুদৃশ্য ইতিহাস প্রাচীন মন্দিরের পাশাপাশি মাখা সন্দেশের জন্য বিখ্যাত। মাখা সন্দেশ অনেক জায়গাতেই পাওয়া যায়। কিন্তু কালনার মাখা সন্দেশের স্বাদই আলাদা। কালনার পাশেই হুগলির গুপ্তিপাড়া। সেখানের বাসিন্দাদের দাবি, মাখা সন্দেশ আবিষ্কার হয় গুপ্তিপাড়ায়। কালনা বাজার এলাকায় তা বিশেষ পরিচিতি পায়। প্রবীণ ব্যক্তিরা বলছেন, কালনার মাখা সন্দেশের কাছে রসগোল্লা বয়সে নেহাতই শিশু।

কালনার মাখা সন্দেশের বিশেষত্ব হল, এই সন্দেশ মোলায়েম নয়। দানা দানা। চিনির ভাগ থাকে কম। ছানার ভাগ বেশি। সে কারণেই তার স্বাদও বেশি। চাহিদাও ব্যাপক।

সন্তোষকুমার সাউ রাইস মিলের ব্যবসার কারণে বিভিন্ন রাজ্যে যাতায়াত করেন। পরিচিতদের জন্য মাখা সন্দেশ নিয়ে যান। তিনি বলেন, কালনার মাখা সন্দেশের তারিফ করেন সকলেই। কালনার বাসিন্দা টুম্পা রায় বলেন, এই সন্দেশ অনেক দিন থাকেও। তাই তাড়াতাড়ি খারাপ হওয়ার ভয় থাকে না। সেজন্য আত্মীয় বাড়ি নিয়ে যাওয়া যায় স্বচ্ছন্দে।

কালনার মিষ্টি ব্যবসায়ী মনজিৎ মোদক বলেন,  কালনার মাখা সন্দেশের স্বাদ বেশি এখানের উৎকৃষ্ট মানের ছানার জন্য। কালনায় দুটি ছানার বাজার রয়েছে। গোরুর দুধের খাঁটি ছানা মেলে সেখানে। কালনা ও পাশের নদীয়া জেলা থেকে সেই ছানা আসে। সেই ছানা ও দক্ষ কারিগরদের হাতের জাদুতে স্বাদে পরিপূর্ণ হয়ে ওঠে এই শহরের এই মিষ্টি।

কালনার মাখা সন্দেশের গড় পড়তা দাম কেজি প্রতি ২৪০ টাকা। তবে ছানার দাম বাড়া কমার ওপর মাখা সন্দেশের দাম ওঠানামা করে এই শহরে। ছানার দাম কমলে মাখা সন্দেশের দামও কমে। তখন বিক্রিও হয় অনেক বেশি।

Published by: Arindam Gupta
First published: March 12, 2020, 10:44 AM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर