Home /News /south-bengal /
West Bengal News: পেট তো নয়, যেন লোহার কারখানা! যা বের হল, দেখে চোখ কপালে ডাক্তারদের

West Bengal News: পেট তো নয়, যেন লোহার কারখানা! যা বের হল, দেখে চোখ কপালে ডাক্তারদের

বিরাট সাফল্য

বিরাট সাফল্য

West Bengal News: পূর্ব বর্ধমানের মঙ্গলকোটের কৃষ্ণবাটি গ্রামের বাসিন্দা বছরআটত্রিশের শেখ মইনুদ্দিন। বিগত ১৫-১৬ বছর ধরে তিনি মানসিক রোগী।

  • Share this:

#বর্ধমান: এ যেন লোহার কারখানা! অপারেশন থিয়েটারে রোগীর পেট কেটে চোখ ছানাবড়া চিকিৎসকদের। রোগীর পেট থেকে বের হল ২৫০টি পেরেক এবং ৩৫টি কয়েন। এ ছাড়াও ছিল বেশ কিছু পাথর কুচি। বাড়ির সকলের নজর এড়িয়ে ভাত রুটির বদলে সেসব খেয়েছিল সে। তারপর শুরু হয় পেটের তীব্র যন্ত্রনা। এক্স রে করতেই সব ধরা পড়েছিল। এরপর পেট কাটতেই তাজ্জব বর্ধমান মেডিক্যালের কলেজ ও হাসপাতালের চিকিৎসকরা। সফল অস্ত্রপচারের পর বর্তমানে অনেকটাই সুস্থ শেখ মইনুদ্দিন।

পূর্ব বর্ধমানের মঙ্গলকোটের কৃষ্ণবাটি গ্রামের বাসিন্দা বছরআটত্রিশের শেখ মইনুদ্দিন। বিগত ১৫-১৬ বছর ধরে তিনি মানসিক রোগী। পরিবারের লোকেরা বর্ধমান হাসপাতালের মানসিক বিভাগে তাঁর নিয়মিত চিকিৎসা করান। জানা গিয়েছে, শনিবার সকাল থেকে খাওয়া দাওয়া করছিলেন না ওই ব্যক্তি। বিকেলে এক গ্লাস দুধ ছাড়া কিছুই খাননি। হাবেভাবে পেটে ব্যথার কথা পরিবারের সদস্যদের বোঝান তিনি।

আরও পড়ুন: রাজ্যে কি অতীত হতে চলেছে টোটো? জায়গা নেবে ই-রিকশা? মন্ত্রীর মন্তব্য়ে জল্পনা তুঙ্গে

মঙ্গলবার বর্ধমান শহর সংলগ্ন একটি বেসরকারি নার্সিংহোমের চিকিৎসকের কাছে মইনুদ্দিনকে নিয়ে যান পরিবারের সদস্যরা। তাঁর পরামর্শে মইনুদ্দিনের পেটের এক্স-রে করা হয়। দেখা যায়, তাঁর পেটে অসংখ্য পেরেক রয়েছে। মইনুদ্দিনের অপারেশনের জন্য এক লক্ষ টাকা খরচ হবে বলে জানায় নার্সিংহোম কর্তৃপক্ষ। কিন্তু পরিবারের অত টাকা দেওয়ার সামর্থ ছিল না। তাই বুধবার সকালে মইনুদ্দিনকে বর্ধমান মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। তাঁকে সেখান ভর্তি করা হয়। চিকিৎসকরা এক্স-রে করেন।  রাতে অপারেশন করে তাঁর পেট থেকে ২৫০টি পেরেক, ৩৫টি কয়েন এবং বেশ কিছু পাথর কুচি বের করা হয়। আপাতত তিনি সুস্থ।

আরও পড়ুন: এসএসসি কাণ্ডে এবার এসপি সিনহা-র বাড়িতে সিবিআই! খুলে যাবে রহস্য়ের জট?

বর্ধমান মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের সুপার তাপস ঘোষ জানান, এই ধরনের অপারেশন বর্ধমান মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের একটা বড় সাফল্য। মইনুদ্দিনের দাদা শেখ মসলিনউদ্দিন জানান, তাঁর ভাইয়ের মানসিক সমস্যার কারণেই এই ঘটনা ঘটেছে। চিকিৎসকরা দ্রুত অস্ত্রোপচারের সিদ্ধান্ত নেওয়ায় জটিলতা কমে। এ জন্য বর্ধমান হাসপাতালের চিকিৎসকদের ধন্যবাদ জানান তিনি।

Published by:Suman Biswas
First published:

Tags: Bardhaman news, Kolkata News, West Bengal news

পরবর্তী খবর