নরেন্দ্রপুরে দম্পতি খুনের ঘটনায় মূল অভিযুক্তকে গ্রেফতার সিআইডির

নরেন্দ্রপুরে দম্পতি খুনের ঘটনায় মূল অভিযুক্তকে গ্রেফতার সিআইডির

এর আগে নরেন্দ্রপুর জেলা পুলিশের হাতে মোটরসাইকেল চুরির অভিযোগে বিশালের বন্ধু সৌরভ মণ্ডল গ্রেফতার হয় | সৌরভকে জেরা করেই সিআইডি জালে বিশাল |

এর আগে নরেন্দ্রপুর জেলা পুলিশের হাতে মোটরসাইকেল চুরির অভিযোগে বিশালের বন্ধু সৌরভ মণ্ডল গ্রেফতার হয় | সৌরভকে জেরা করেই সিআইডি জালে বিশাল |

  • Share this:

    #কলকাতা:  নরেন্দ্রপুরে তিউরিয়াতে জোড়া খুনে মূল অভিযুক্ত  বিশাল বৈরাগীকে গ্রেফতার করল সিআইডি | কলকাতা লেদার কমপ্লেক্স থানা এলাকা থেকে গ্রেফতার করে সিআইডি  আধিকারিকরা  | বিশাল, তিউরিয়ার বাসিন্দা | এর আগে নরেন্দ্রপুর  জেলা পুলিশের হাতে মোটরসাইকেল  চুরির অভিযোগে বিশালের বন্ধু সৌরভ মণ্ডল গ্রেফতার হয় | সৌরভকে জেরা করেই সিআইডি  জালে বিশাল  |

    ২০১৯ সালে ৩০ জুলাই নরেন্দ্রপুরে  বাগানবাড়ির মধ্যে দম্পতিকে গলা নলি কেটে হত্যা করে ট্রলি ব্যাগে ভরে রাখা হয় | পরে পুলিশ গিয়ে আলপনা  বিশ্বাস ও তার স্বামী প্রদীপ বিশ্বাসের দেহ উদ্ধার করে |  সেই ঘটনার তদন্তভার হাতে নেয় সিআইডি | কিছুদিন আগে তদন্তকারীরা সৌরভকে গ্রেফতার করে জানতে পারে বেশ  কিছু গুরুত্বপূর্ণ  তথ্য |  সৌরভ জেরায় তদন্তকারীদের জানায়, গৃহবধূ  আলপনার সঙ্গে ঘনিষ্ঠ সম্পর্কে জড়িয়ে পড়েছিল বিশাল |  ঘনিষ্ঠ অবস্থায় দেখে ফেলেন স্বামী প্রদীপ | এরপর প্রদীপ বিশালকে চড়  মারেন |  তখন থেকেই প্রতিহিংসা আগুন জ্বলতে থাকে |  এরপরই  বিশাল ও তার বন্ধু সৌরভ  প্রদীপকে খুন করে | প্রদীপকে হত্যা  করতে বাধা দিলে আলপনাকেও খুন করে সে | দুজনকেই এরপর ট্রলি  ব্যাগে ভরে চম্পট দেয় | পুলিশকে বিভ্রান্ত করতে আলমারি জিনিস ওলোটপালোট  করে | যাতে দেখে মনে হয় লুঠ পথের উদ্দেশ্য  খুন |

    যদিও ঘর থেকে একটি টিভি  ছাড়া আর কিছুই খোয়া যায়নি |  কিন্তু ট্রলি  ব্যাগে কেন দেহ রাখা হল? সিআইডি  সূত্রে খবর, দেহগুলিকে একদম গুম করার জন্যই ট্রলিতে ভরা হয়েছিল | কিন্তু সেদিন বৃষ্টি  হচ্ছিল, তার উপর এত ভারী দুটো ট্রলি নিয়ে বেরোনো মুশকিল ছিল | এছাড়াও  আশপাশের লোকজনের আওয়াজ পেয়ে বাড়ির মধ্যে ট্রলি  রেখেই পালায় | কিন্তু সৌরভ ও বিশালের কথায় বেশ কিছু অসঙ্গতিও রয়েছে৷ সেই মিসিং লিঙ্ক গুলিকে খুঁজে পাওয়ার চেষ্টা করছেন গোয়েন্দারা |

    ARPITA HAZRA
    Published by:Pooja Basu
    First published: