• Home
  • »
  • News
  • »
  • south-bengal
  • »
  • লকডাউন থোড়াই কেয়ার! বিক্রি হচ্ছিল মাছ, সবজি, পুলিশ যেতেই ছন্দপতন মেমারিতে

লকডাউন থোড়াই কেয়ার! বিক্রি হচ্ছিল মাছ, সবজি, পুলিশ যেতেই ছন্দপতন মেমারিতে

লকডাউনের মধ্যে মাছ সবজি বিক্রি হচ্ছিল ভালই। আর সেই খবর পেয়েই অভিযানে নামে মেমারি থানার পুলিশ।

লকডাউনের মধ্যে মাছ সবজি বিক্রি হচ্ছিল ভালই। আর সেই খবর পেয়েই অভিযানে নামে মেমারি থানার পুলিশ।

লকডাউনের মধ্যে মাছ সবজি বিক্রি হচ্ছিল ভালই। আর সেই খবর পেয়েই অভিযানে নামে মেমারি থানার পুলিশ।

  • Share this:

#‌মেমারি:‌ লকডাউনকে থোড়াই কেয়ার। করোনার সংক্রমণ ঠেকাতে রাজ্যের নির্দেশে লকডাউন চললেও সকাল থেকেই খোলা ছিল বাজার। উচ্ছে পটল লাউ কুমড়ো নিয়ে পসার সাজিয়েছিলেন বিক্রেতারা। রুই কাতলা চারাপোনা নিয়ে বাজারে দোকান সাজিয়ে বসেছিলেন মাছ বিক্রেতারাও। অবাধে চলছিল বেচাকেনা। বাজার বসেছে দেখে ছাতা হাতে নাইলনের ব্যাগ নিয়ে গুটিগুটি পায়ে বাজারে ভিড় করেছিলেন ক্রেতারাও। এভাবেই ধীরে ধীরে জমে উঠেছিল মেমারির পুরাতন বাজার। লকডাউন অমান্য করে বাজার বসেছে খবর পেয়ে অভিযানে নামে মেমারি থানার পুলিশ। বাজার বন্ধ করার পাশাপাশি বেশ কয়েকজন বিক্রেতাকে আটকও করেছেন তাঁরা।

পূর্ব বর্ধমানের পৌর শহর মেমারি ও তার আশপাশ এলাকাতেও করোনার সংক্রমণ উদ্বেগজনক ভাবেই বাড়ছে। বাজারে ভিড় নিয়ন্ত্রণে জেলার অন্যান্য পৌরসভা ও বেশ কয়েকটি গ্রাম পঞ্চায়েতের মতই মেমারি শহরেও দোকান বাজার খোলা এবং বন্ধের ক্ষেত্রে বেশ কিছু বিধিনিষেধ জারি করেছে পূর্ব বর্ধমান জেলা প্রশাসন। বিকেল পাঁচটার মধ্যে প্রতিদিনই এই শহরেও দোকান বাজার সবকিছু বন্ধ হয়ে যাচ্ছে। প্রতিদিনই সকালের দিকে এক বারের বেশি সবজি ও মাছ বাজার খুলতে দেওয়া হচ্ছে না। কিন্তু রাজ্যের ঘোষিত লকডাউনের দিনে সব দোকান বাজার পুরোপুরি বন্ধ রাখার নির্দেশ রয়েছে।কিন্তু সেই নির্দেশকে কোনওরকম পাত্তা না দিয়েই মেমারির পুরাতন বাজারে এদিন মাছ ও সবজি বিক্রি শুরু হয়েছিল আর পাঁচটা দিনের মতোই।

লকডাউনের মধ্যে মাছ সবজি বিক্রি হচ্ছিল ভালই। আর সেই খবর পেয়েই অভিযানে নামে মেমারি থানার পুলিশ। স্থানীয় বাসিন্দারা জানান, সকাল থেকেই রোজকার মতোই বাজার বসেছিল। ক্রেতারাও ভিড় করেছিলেন। হঠাৎই দেখি পুলিশের গাড়ি এসে দাঁড়ায়। এরপর পুলিশকর্মীরা নেমে বাজারে ঢুকতেই ক্রেতা বিক্রেতাদের মধ্যে হুড়োহুড়ি পড়ে যায়। অনেকেই নিরাপদ দূরত্বে পালানোর চেষ্টা করে। পুলিশ সব দোকান বাজার বন্ধ করে দেয়। লকডাউন অমান্য করে দোকান বাজার খোলা রাখার অভিযোগে কয়েকজন বিক্রেতাকে আটক করে থানায় নিয়ে যায় পুলিশ।

Saradindu Ghosh

Published by:Uddalak Bhattacharya
First published: