রাশিয়া ডাক দিল খড়গপুরের অনামী জয়ন্তকে, অর্থাভাবে টিকিটই কাটা হল না শিল্পীর!

রাশিয়া ডাক দিল খড়গপুরের অনামী জয়ন্তকে, অর্থাভাবে টিকিটই কাটা হল না শিল্পীর!

আর্থিক অনটনে রাশিয়ায় আন্তর্জাতিক প্রতিযোগিতায় ডাক পেয়েও বিমানের টিকিট কাটতে পারছেন না জয়ন্ত।

  • Share this:

#খড়গপুর: হাতছানি দিচ্ছে মস্কোর আকাশ। ডানা খুঁজে পাচ্ছেন না খড়গপুরের জয়ন্ত বর্মন। আর্থিক অনটনে রাশিয়ায় আন্তর্জাতিক প্রতিযোগিতায় ডাক পেয়েও বিমানের টিকিট কাটতে পারছেন না জয়ন্ত। শিল্পীর তুলির টানে এখন শুধু-ই হতাশার আঁকিবুকি।

তুলির সূক্ষ্ম আঁচড়ে মুহূর্তে জীবন্ত নিষ্প্রাণ মুখ........মুখ-মুখোশের যুদ্ধে ক্লান্ত শিরাগুলো বড় স্পষ্ট তাঁর ক্যানভাস......

পোর্ট্রেট আঁকতে ভালবাসেন......চতুর্দিকে যা কিছু রিয়্যালিস্টিক ...তাই জীবন্ত তাঁর হাতের মুঠোয় ধরা রঙের ভাণ্ডারে...

পেশা.... সামান্য বেতনের ঠিকাকর্মী। রঙ নিয়ে দশ আঙুলে খেলাই তাঁর নেশা। তিনি খড়গপুরের জয়ন্ত বর্মন।

 খড়গপুরের জয়ন্ত বর্মন।
খড়গপুরের জয়ন্ত বর্মন।

Loading...

আর্থিক অনটনে আর্ট কলেজে যাওয়া হয়নি। হাতেখড়ি পাড়ারই এক শিল্পীর কাছে.....পোর্ট্রেট এঁকেই দিন কাটছিল খড়গপুরের এই অনামী শিল্পী। বিদেশ থেকে সুযোগ এলেও, আর্থিক অনটনে স্বপ্নপূরণ হয়নি কখনও। এবার সুযোগ রাশিয়া থেকে।

রাশিয়ার প্রেস্টিজিয়াস সেন্ট পিটার্সবার্গ সেন্টার অফ হিউম্যানিটেরিয়ান প্রোগ্রাম আমন্ত্রণ জানিয়েছে জয়ন্তকে। পৃথিবীর কয়েকশো শিল্পীর সঙ্গে একসঙ্গে প্রতিযোগিতায় অংশ নেওয়ার সুযোগ। ভারতের ন'জন আমন্ত্রিতের মধ্যে অন্যতম জয়ন্ত। কাগজ, নথি সব রেডি। ২০শে অগাষ্ট মস্কো উড়ে যাওয়ার কথা। কিন্তু অর্থের অভাবে বিমানের টিকিট-ই কাটা হয়নি এখনও।

তুলির সূক্ষ টানে রঙিন করে তুলতে হবে রাশিয়ার ল্যান্ডস্কেপ। এটাই প্রতিযোগিতার শর্ত। আঁকতে হবে দশটি ছবি। তার মধ্যে বিবেচিত হবে দুটি। কিন্তু দিগন্ত-জয়ের স্বপ্ন চোখের জলেই ভিজে যায়।

পেন, পেনসিল, কয়লা, জল, তেল রঙে সাজানো সংসারে আজ শুধুই হতাশা। এবারও কি অধরা থেকে যাবে স্বপ্নের ক্যানভাসে আদরের নৌকা ভাসানোর সুযোগ?

First published: 10:13:44 AM Jul 30, 2019
পুরো খবর পড়ুন
Loading...
अगली ख़बर
Listen to the latest songs, only on JioSaavn.com