'আমি পঞ্জাবে গেলে কি বহিরাগত হয়ে যাব?' বারাসতের সভায় প্রশ্ন তোলেন বিমান বসু

'আমি পঞ্জাবে গেলে কি বহিরাগত হয়ে যাব?' বারাসতের সভায় প্রশ্ন তোলেন বিমান বসু

বহিরাগত বলে মানুষে মানুষে ভাগাভাগি তিনি দেশের মধ্যে মানতে নারাজ।

বহিরাগত বলে মানুষে মানুষে ভাগাভাগি তিনি দেশের মধ্যে মানতে নারাজ।

  • Share this:

#বারাসত: শনিবার বারাসতে বামফ্রন্ট চেয়ারম্যান বিমান বসু ন্যায্য মূল্যের বাজারের সমাপ্তি অনুষ্ঠানে এসে বহিরাগত তত্বে তৃণমূলকে নিশানা করেন। তিনি বলেন, " যারা বহিরাগতের কথা বলছে। তারাও রবীন্দ্রনাথ আওরায়।কিন্তু রবীন্দ্রনাথ কে মানছেন না! রবীন্দ্রনাথ সারা ভারতকে মহামানবের মিলন ক্ষেত্র হিসাবে দেখেছেন।আজ  ঝাঁকে ঝাঁকে তৃণমূল ছেড়ে বিজেপিতে কেন?"  তৃণমূল নেতা কর্মীরা চলে যাচ্ছে -তা নিয়ে প্রশ্ন তুলে বামফ্রন্টের চেয়ারম্যান বিমান বসু বলেন, " তৃণমূল কংগ্রেসের কোন আদর্শ নেই, না আছে কোন কর্মসূচি।তাই আদর্শহীন দল ছাড়ছে মানুষ।"

একই সঙ্গে বিমান বসু স্বীকার করেন যে বিজেপি দলের একটি আদর্শ আছে।বিমান বসুর কথায় সেটা হল মনুবাদের আদর্শ।আর সেই মনুবাদকে না বুঝেই তৃণমূল কংগ্রেসের নেতা কর্মীরা বিজেপিতে যাচ্ছে।সেটা বিপদ বলে মত তাঁর।তিনি এদিন বলেন, "আর এস এস আর বিজেপি মিলে সারা দেশে মানুষে মানুষে বিভেদ তৈরীিকরছে। এখন তারা ধর্ম ,জাতপাত সঙ্গে ভাষার ভিত্তিতে মানুষকে বিভাজন করছে। আর রাজ্যের সরকারও তৃণমূলও মানুষে মানুষে বিভেদ করছে। সরকার ও তৃণমূল কংগ্রেস।

বহিরাগত বলে মানুষে মানুষে ভাগাভাগি তিনি দেশের মধ্যে মানতে নারাজ। তাঁর দাবি তিনি যদি পঞ্জাবে যান তাহলে কি তিনি বহিরাগত হবেন?বরং বিমান বসু এদিন  আরও প্রশ্ন তোলেন,  দেশের বিভিন্ন রাজ্যে বাঙালিরা রয়েছেন তাদের কি বহিরাগত বলা হবে?  তার দাবি সবাই আগে ভারতীয়। বিমান বসু এদিন বলেন তিনি চূড়ান্ত বিজেপি বিরোধী। তবে বিরোধী মানে তাঁকে চাড্ডা নাড্ডা ভাড্ডা বলে আক্রমণ করতে হবে?বরং বিমান বসু এদিন বলেন নাড্ডা জাতিটি পরিশ্রমী একটি জাত। রাজ্য সরকার ও তৃণমূলের সমালোচনা করে বিমান বসু এদিন আঁকড়ে ধরেন রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরকে।বলনে রবীন্দ্রনাথ তো মহামানবের মিলব ক্ষেত্র হিসাবে দেশকে দেখেছিলেন। আমাদেরও উচিত সেভাবেই ভাবা। তবে তাঁকে সঠিক সম্মান জানানো হবে।

RAJARSHI ROY

Published by:Piya Banerjee
First published: