করোনায় শ্রাদ্ধ বাতিল বর্ধমানে! ফ্লেক্স টাঙিয়ে শ্রাদ্ধ বাতিল করল পরিবার

করোনায় শ্রাদ্ধ বাতিল বর্ধমানে! ফ্লেক্স টাঙিয়ে শ্রাদ্ধ বাতিল করল পরিবার
এই বাড়িতেই ছিল শ্রাদ্ধানুষ্ঠান
  • Share this:

#বর্ধমান: করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ ঠেকাতে এ বার বন্ধ হল শ্রাদ্ধ অনুষ্ঠানও।  করোনা সংক্রমণ ঠেকাতে বিয়েবাড়ি বন্ধ করে দেওয়ার ভাবনা চিন্তা চলছে। এমনিতেই অনেক জায়গায় মেলা, খেলা, জমায়েত বন্ধ। এবার তার সঙ্গে যুক্ত হল শ্রাদ্ধের অনুষ্ঠানও। সব রকম আয়োজনের পরও রীতিমতো ফ্লেক্স টাঙিয়ে শ্রাদ্ধ অনুষ্ঠান বাতিলের কথা ঘোষণা করা হল পূর্ব বর্ধমানের ভাতারে।

করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ ঠেকাতেই শ্রাদ্ধ অনুষ্ঠান বাতিলের কথা ফ্লেক্স টাঙিয়ে  ঘোষণা করেছেন মৃতের ছেলে ও নাতিরা। এই পদক্ষেপকে সমর্থন করেছেন এলাকার বাসিন্দারা।

পূর্ব বর্ধমান জেলার ভাতার বাজার ব্যবসায়ী সমিতির সভাপতি ধাত্রীপদ কোঁয়ার গত ৬ মার্চ বার্ধক্যজনিত কারণে শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন। আগামীকাল বৃহস্পতিবার ধাত্রীপদ কোঁয়ারের শ্রাদ্ধ উপলক্ষে প্রায় চার থেকে পাঁচ হাজার নিমন্ত্রিতের  খাওয়া-দাওয়ার আয়োজন করেছিল পরিবার। কিন্তু প্রশাসনের পক্ষ থেকে করোনা সতর্কতায় এখন জমায়েত না করার পরামর্শ দেওয়া হয়েছে।

প্রশাসনের পরামর্শকে মান্যতা দিয়ে মৃতের পরিবার থেকে ওই শ্রাদ্ধ অনুষ্ঠান বন্ধ করে দেয়া হয়েছে।

ভাতার বাজারের বিভিন্ন জায়গায় টাঙানো হয়েছে  ব্যানার, ফেক্স। এমনকি শ্রাদ্ধ বাতিলের কথা সোশ্যাল মিডিয়াতেও প্রচার করা হচ্ছে।

প্রয়াত ধাত্রীপদবাবুর নাতি মহেন্দ্রনাথ কোঁয়ার জানান, শ্রাদ্ধ অনুষ্ঠানের জন্য সমস্ত কিছুর আয়োজন করা হয়ে গিয়েছিল। এমনকি আত্মীয় স্বজনদের জানানোও হয়ে গিয়েছিল।প্যান্ডেল থেকে আরম্ভ করে সমস্ত প্রস্তুতি শেষের দিকে। কিন্তু করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ ঠেকাতে  সেই অনুষ্ঠান আমরা বন্ধ দিচ্ছি। এখন শুধুমাত্র ধর্মীয় রীতি মেনে দাদুর শ্রাদ্ধ অনুষ্ঠান হবে। সেখানে কোনও লোক জমায়েত হবে না।

বাসিন্দারা বলছেন, গোটা বিশ্ব করোনা ভাইরাসের আতঙ্কে কাঁপছে।প্রশাসনিকভাবে বিভিন্ন জায়গায় জমায়েত বন্ধ করে দেয়া হয়েছে । স্কুল কলেজ বিশ্ববিদ্যালয়গুলিতে ছুটি ঘোষণা করেছে রাজ্য সরকার। এই পরিস্থিতিতে শ্রাদ্ধের খাওয়া দাওয়ার অনুষ্ঠান বন্ধ করে ঠিক কাজই করেছে ওই পরিবার। খাওয়া দাওয়াা করতে গিয়ে বহু মানুষ এই  মারন ভাইরাসে আক্রান্ত হতে পারেন। তাই সাবধান থাকা দরকার।

SARADINDU GHOSH

First published: March 18, 2020, 3:03 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर