দক্ষিণবঙ্গ

corona virus btn
corona virus btn
Loading

পটনা থেকে কলকাতা পাচারের সময় উদ্ধার প্রচুর টিয়া-ময়না

পটনা থেকে কলকাতা পাচারের সময় উদ্ধার প্রচুর টিয়া-ময়না

আন্তঃরাজ্য পাখি পাচার চক্রের হদিশ পেল বনদফতর। পূর্ব বর্ধমানের গলসিতে উদ্ধার করা হল প্রচুর টিয়া পাখি ও ময়না

  • Share this:

#পূর্ব বর্ধমান: আন্তঃরাজ্য পাখি পাচার চক্রের হদিশ পেল বনদফতর। পূর্ব বর্ধমানের গলসিতে উদ্ধার করা হল প্রচুর টিয়া পাখি ও ময়না। এই পাখিগুলি রাতের বাসে কলকাতায় পাচার করার পরিকল্পনা ছিল। উত্তর প্রদেশ, বিহার, ঝাড়খন্ড থেকে এই পাখিগুলি এ'রাজ্যে আসছিল। গোপন সূত্রে খবর পেয়ে অভিযান চলায় বন দফতর। সেই অভিযানে এই পাখিগুলিকে উদ্ধার করা হয়। সেগুলিকে এখন বর্ধমানের রমনাবাগান অভয়ারণ্য রাখা হয়েছে।

বেআইনিভাবে পাখি পাচার চক্রের সঙ্গে জড়িত থাকার অভিযোগে ২  জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। ধৃতদের এদিন বর্ধমান আদালতে তোলা হয়। তাদের হেফাজতে নিয়ে এই চক্রের ব্যাপারে বিস্তারিত জিজ্ঞাসাবাদ করা হবে বলে জেলা পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে।

বন দফতর সূত্রে জানা গিয়েছে, কলকাতা ও তার আশপাশ এলাকায় বিক্রির জন্য এই টিয়া ও ময়না নিয়ে আসা হচ্ছিল। চড়া দামে এই পাখিগুলি বিক্রি করা হয়। চাহিদাও ব্যাপক। পুলিশ ও বনদফতরের নজর এড়াতে রাতের অন্ধকারে এই পাখিগুলি পাচার করার পরিকল্পনা ছিল। সেই মতো পটনা থেকে কলকাতাগামী বাসে পাখিগুলিকে নিয়ে আসা হচ্ছিল। মাঝপথে ছোট গাড়িতে সেইসব পাখিগুলি চালান করার পরিকল্পনা ছিল পাচারকারীদের।

আঞ্চলিক বন আধিকারিক দেবাশিষ শর্মা জানান, মঙ্গলবার গোপন সূত্রে এই পাখি আসার খবর মেলে। সেই তথ্যের উপর ভিত্তি করে বন দফতর  আধিকারিকরা অভিযানে নামে। রাত ৩টে থেকে জাতীয় সড়কে টহল শুরু করেন,  গলসিতে পটনা থেকে আসা বাস দাঁড়ানোর পর পাখিগুলি ছোট গাড়িতে তোলা হচ্ছিল। সেই সময় অভিযানে অংশ নেওয়া বন দফতরের অফিসাররা পুলিশের সাহায্য নিয়ে দুই পাচারকারীকে ধরে ফেলে। তাদের কাছ থেকে প্রায় সাড়ে ৭০০ টিয়া পাখি উদ্ধার করা হয়েছে। এছাড়াও বেশ কয়েকটি ময়নাও বাজেয়াপ্ত করা হয়। পাখিগুলিকে উদ্ধারের পর রমনাবাগান অভয়ারণ্যে নিয়ে আসা হয়েছে।

এই পাচার চক্রর সঙ্গে আর কারা কারা জড়িত ?  চক্রের পান্ডারা কোন কোন রাজ্যে ছড়িয়ে রয়েছে ? কোন পাখি কত দামে এ'রাজ্যে বিক্রি হয় ? সে'সব জানতে ধৃতদের বিস্তারিত ভাবে জিজ্ঞাসাবাদ করা হবে বলে জেলা পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে।

SARADINDU GHOSH

Published by: Rukmini Mazumder
First published: September 30, 2020, 7:00 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर