আবর্জনার গন্ধে, ডেঙ্গির প্রকোপে জীবন জেরবার খড়গপুরের আজাদ বস্তির বাসিন্দাদের

আবর্জনার গন্ধে, ডেঙ্গির প্রকোপে জীবন জেরবার খড়গপুরের আজাদ বস্তির বাসিন্দাদের

খড়গপুর রেল স্টেশন থেকে মাত্র এক কিলোমিটার দূরে আজাদ বস্তি। এখানে গেলে মনেই হবে না, এই বস্তি খড়গপুর শহরে।

  • Share this:

#খড়গপুর: খড়গপুর শুনলেই মনে হয় আইআইটির কথা। আর এই খড়গপুর শহরেই এমন এক জায়গা আছে, যেখানে আবর্জনার গন্ধে টেকা দায়। কাঁচা নর্দমার গা ঘেঁসে চলে জীবনযাপন। এই জায়গার নাম আজাদ বস্তি। আজাদ বস্তিতে ডেঙ্গি আর ম্যালেরিয়ার মশার বেলাগাম আজাদি।

খড়গপুর রেল স্টেশন থেকে মাত্র এক কিলোমিটার দূরে আজাদ বস্তি। এখানে গেলে মনেই হবে না, এই বস্তি খড়গপুর শহরে। খড়গপুর মানেই আইআইটি। খড়গপুর মানেই প্রযুক্তি চর্চার অন্যতম পীঠস্থান। সেই খড়গপুরের মত জায়গায় আজাদ বস্তি। নামেই এই বস্তি আজাদ। নোংরা আবর্জনা থেকে আজাদি নেই। আজাদি নেই অপরিচ্ছন্নতা আর রোগভোগ থেকে। কেন্দ্রের স্বচ্ছ ভারত বা রাজ্যের মিশন নির্মল বাংলা থেকে শতযোজন দূরে আজাদ বস্তি।

- খড়গপুর শহরের ২১ নম্বর ওয়ার্ডে আজাদ বস্তি

- ২০১২ সালে আজাদ বস্তিতে ছিল ৪০০ পরিবার

- ২০১৯ সালে বস্তিতে পরিবারের সংখ্যা ৬৫০

আজাদ বস্তিতে যে কতদিন নিকাশিনালা পরিষ্কার হয়নি, তার হিসেব নেই। রাস্তার অবস্থা ভয়াবহ। আবর্জনা আর রাস্তায় পড়ে থাকা বর্জ্য পদার্থের গন্ধে টেকা দায়। বস্তির গায়ে উচ্চমাধ্যমিক স্কুল। রান্না হয় মিড ডে মিল। আজাদ বস্তির মশা মাছি ভনভন করে। ডেঙ্গি আর ম্যালেরিয়ার মশার আনাগোনা বাড়ে। মাথাব্যথা নেই কারওরই। কয়েকদিন আগে হাওড়ায় বস্তিতে গিয়ে বেহাল দশা দেখে ক্ষোভপ্রকাশ করেন মুখ্যমন্ত্রী। এরপর প্রশাসনিক বৈঠক থেকে কাউন্সিলরদের নির্দেশ দেন বস্তি উন্নয়নের। আজাদ বস্তিতে যে সেসব কিছুই হয়নি, তা ছবিতেই স্পষ্ট।

রেলের জমিতে বস্তি এলাকা। রেলের দাবি, অবৈধভাবে জায়গা দখল করে বস্তি তৈরি হয়েছে। আজাদ বস্তির সাফাই নিয়ে হেলদোল নেই পুরসভারও। নিয়ম মাফিক ভোটের লাইনে দাঁড়ায় আজাদ বস্তি। লোকসভা, বিধানসভা, পুরসভা ভোট আসে-যায়। ভোট ফুরোলে নটে গাছের মত আজাদ বস্তির গল্পও মুড়িয়ে যায়। রেল আর পুরসভার কাজিয়ায় পিছিয়ে পড়ে আজাদ বস্তি। বস্তিটা প্রশ্ন করে, নামে আজাদ হলেও কবে আসবে আসল আজাদি? কবে নোংরা আবর্জনা আর রোগভোগের জ্বালা থেকে মুক্তি মিলবে?

আরও দেখুন-

First published: 04:44:58 PM Aug 26, 2019
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर