মুখ্যমন্ত্রীর লেখা 'কথাঞ্জলি'-র নামে নয়া 'কফি হাউস' আসানসোলে

মুখ্যমন্ত্রীর লেখা 'কথাঞ্জলি'-র নামে নয়া 'কফি হাউস' আসানসোলে

আসানসোল পুরনিগমের উদ্যোগে ঝাঁ-চকচকে 'কথাঞ্জলি 'র উদ্বোধন এখন শুধুই সময়ের অপেক্ষা

  • Share this:

#আসানসোল: কফির দাম বেড়েছে। কিছুটা পরিবেশনের ধরনও  বদলেছে। তবে একসময়ের কলকাতার সংস্কৃতির কেন্দ্রবিন্দু আজও সেই ঐতিহ্য বহন করে চলেছে... কলকাতার কফি হাউস। আমজনতা থেকে শহরের বিখ্যাত মানুষজনের যাতায়াত ছিল এই কফি হাউসে। কলকাতা থেকে ২২০ কিলোমিটার দূরত্বে কফি হাউসের সেই স্বাদ এবার শিল্পশহর  আসানসোলের মানুষ পেতে চলেছে। আসানসোল পুরনিগমের  উদ্যোগে ঝাঁ-চকচকে  'কথাঞ্জলি 'র  উদ্বোধন এখন শুধুই সময়ের অপেক্ষা।

পশ্চিম বর্ধমান জেলার অন্যতম শিল্পশহর  আসানসোল। সংস্কৃতির পীঠস্থান হিসেবেও সুপরিচিত। প্রায় সারা বছরই  শিল্প - সংস্কৃতির বিভিন্ন চর্চা লেগে থাকলেও নাগরিকদের সেভাবে  মিলিতভাবে  আড্ডা দেওয়ার জায়গা বলতে কিছুই ছিল না।  শহরের বুদ্ধিজীবী মহল দীর্ঘদিন ধরে দাবি জানিয়ে আসছিলেন , কলকাতার কফিহাউসের মতো আসানসোলেও  কিছু একটা করা হোক। অবশেষে স্বপ্নপূরণ হতে চলেছে শহরবাসীর। নাগরিকদের পাশে দাঁড়িয়েছে আসানসোল পুরনিগম। শহর আসানসোলের লাইফলাইন জি টি রোড। আর এই জিটি রোড  বিএনআর মোড় লাগোয়া প্রাণকেন্দ্রে অবস্থিত রবীন্দ্রভবন। যা শিল্প সংস্কৃতির অন্যতম স্থান হিসেবে পরিচিত। এই রবীন্দ্রভবন চত্বরেই গড়ে উঠছে  আধুনিক শিল্পকর্মে সজ্জিত আসানসোলের কফি হাউস 'কথাঞ্জলি'।  সুসজ্জিত দ্বিতল  এই ভবনের সর্বত্রই থাকছে রুচির ছোঁয়া। এবার কলকাতার কফি হাউসের সেই আড্ডার আমেজ পেতে চলেছেন আসানসোলবাসী। কলকাতার মতো এখানকার কবি , শিল্পী,  সাহিত্যিক, পড়ুয়া থেকে সাধারণ মানুষ... দীর্ঘদিনের চাহিদা পূরণ হওয়ায় খুশি সকলেই।  মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের  নিজের লেখা নানা  বই  ইতিমধ্যেই  প্রকাশিত হয়েছে। তাঁর বইয়ের নামকরণ করেন  তিনি নিজেই। সেরকমই  মুখ্যমন্ত্রীর লেখা  একটি  বইয়ের নাম থেকেই  নবনির্মিত আসানসোলের কফি হাউসের নামকরণ হয়েছে  'কথাঞ্জলি'। শেষ পর্যায়ের কাজ চলছে জোর কদমে।

খুব শীঘ্রই শহরের নাগরিকদের জন্য খুলে দেওয়া হবে  এই প্রাঙ্গণ বলে জানালেন আসানসোলের মেয়র জিতেন্দ্র তিওয়ারি। তাঁর কথায়, ' মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দোপাধ্যায়ের অনুপ্রেরণায় শহরবাসীর ইচ্ছেপূরণ  করতে পেরে ভাল লাগছে।' মেয়র এও বলেন,' বুদ্ধিজীবীদের আড্ডার জায়গার সত্যিই অভাব ছিল। এবার সেই অভাব পূরণ হল। পাশাপাশি  'কথাঞ্জলি'তে শুধুমাত্র বুদ্ধিজীবীরাই  নন, সমাজের বিভিন্ন ক্ষেত্রের  মানুষজনের  আড্ডার ফলে অনেক নতুন ভাবনার সৃষ্টি হবে বলে মনে করি।' সঙ্গীতশিল্পী মান্না দে'র গাওয়া 'কফি হাউসের সেই আড্ডাটা' গানের মধ্যে দিয়ে কফি হাউস আরও বেশি পরিচিতি লাভ করে। এবার সেই আড্ডা  শুরু হতে চলেছে আসানসোলে। তবে শুধু কফি নয়, আধুনিক এই ক্যাফেতে মিলবে লোভনীয়  হরেক রকমের মনপসন্দ খাবারের পদও। সব মিলিয়ে এই মুহূর্তে প্রাণে খুশির তুফান উঠেছে প্রাণের শহর আসানসোলে।

Venkateswar Lahiri

First published: March 6, 2020, 1:28 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर