• Home
  • »
  • News
  • »
  • south-bengal
  • »
  • ভিড় এড়াতে ভার্চুয়াল অঞ্জলি! কাটোয়ার খেপি মার পুজো এবার জায়ান্ট স্ক্রিনে

ভিড় এড়াতে ভার্চুয়াল অঞ্জলি! কাটোয়ার খেপি মার পুজো এবার জায়ান্ট স্ক্রিনে

করোনা সংক্রমণ এড়াতে এবার কালী পুজোয় ভার্চুয়াল অঞ্জলি। এমনই অভিনব উদ্যোগ নিয়েছে কাটোয়ার খেপি মায়ের পুজোর উদ্যোক্তারা।

করোনা সংক্রমণ এড়াতে এবার কালী পুজোয় ভার্চুয়াল অঞ্জলি। এমনই অভিনব উদ্যোগ নিয়েছে কাটোয়ার খেপি মায়ের পুজোর উদ্যোক্তারা।

করোনা সংক্রমণ এড়াতে এবার কালী পুজোয় ভার্চুয়াল অঞ্জলি। এমনই অভিনব উদ্যোগ নিয়েছে কাটোয়ার খেপি মায়ের পুজোর উদ্যোক্তারা।

  • Share this:

#বর্ধমান: করোনা সংক্রমণ এড়াতে এবার কালী পুজোয় ভার্চুয়াল অঞ্জলি। এমনই অভিনব উদ্যোগ নিয়েছে কাটোয়ার খেপি মায়ের পুজোর উদ্যোক্তারা। ভিড় এড়াতেই এই ব্যবস্থা বলে উদ্যোক্তাদের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে। এজন্য কাটোয়া শহরের গুরুত্বপূর্ণ কয়েকটি এলাকায় বসানো হচ্ছে জায়ান্ট স্ক্রিন। সেখানে পুরোহিতের মন্ত্র শুনে অঞ্জলি দিতে পারবেন ভক্তরা।শুধু তাই নয়, বাড়িতে বসেই যাতে ভার্চুয়াল অঞ্জলি দেওয়া যায় তারও ব্যবস্থা থাকছে। কেবল টিভির মাধ্যমে সরাসরি সম্প্রচার করা হবে খেপি মায়ের পুজো।টিভিতে পুরোহিতের মন্ত্র শুনে মায়ের ছবির সামনে অঞ্জলি দিতে পারবেন বাসিন্দারা।অঞ্জলির পুষ্প পরে মায়ের মন্দিরে নির্দিষ্ট বাক্সে জমা দেওয়ার ব্যবস্থা থাকছে। জেলার প্রসিদ্ধ কালী মন্দির গুলির মধ্যে অন্যতম কাটোয়ার খেপি মা। বছর বছর এই মন্দিরে ভক্তদের ভিড় বেড়েই চলেছে। পাঁচ কেজির বেশি সোনার গয়নায় সেজে ওঠেন খেপি মা। সেই প্রতিমা দেখতে দীপান্বিতা কালীপূজা অগণিত ভক্তের ঢল নামে।প্রতিবছর কাটোয়ার খেপি মায়ের মন্দিরে কালীপুজোয় রাজ্যের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে ভক্তরা ভিড় করেন। হাজার হাজার বাসিন্দা পুষ্পাঞ্জলি দিতে জমায়েত হন। সেই ভিড় থেকে করোনার সংক্রমণ ছড়িয়ে পড়ার আশঙ্কা থেকেই যাচ্ছে। তাই ভিড় কমাতে এই ভার্চুয়াল অঞ্জলির ব্যবস্থা করা হয়েছে বলে জানা গিয়েছে। পুজো কমিটির সদস্যরা জানিয়েছেন, কাটোয়া শহরের স্টেশন বাজার চৌরাস্তা, আনন্দ সংঘের মাঠ, পুরসভার মোড়ে জায়েন্ট স্ক্রিন বসানো হবে। সেখানে সরাসরি পুজো দেখানোর ব্যবস্থা থাকবে। জায়েন্ট স্ক্রিনের পাশেই থাকবে পুষ্প রাখার বাক্স। জায়ান্ট স্ক্রিনে প্রতিমা ও পুরোহিতের পূজা পাঠ দেখতে পারবেন ভক্তরা। পুরোহিতের মন্ত্রচ্চারণ শুনে অঞ্জলি দেবেন বাসিন্দারা। অঞ্জলীর পুষ্প রাখা হবে বাক্সে। সেই পুষ্প অঞ্জলি শেষে মূল মন্দিরে নিয়ে যাওয়া হবে। তবে জায়ান্ট স্ক্রিনে ভার্চুয়াল অঞ্জলি দিতে আসা বাসিন্দাদেরও মাস্কে মুখ ঢেকে সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে দাঁড়ানোর আবেদন জানাচ্ছেন উদ্যোক্তারা। ইতিমধ্যেই এই ভার্চুয়াল অঞ্জলির ব্যাপারে বাসিন্দাদের অবহিত করতে কাটোয়া শহরে মাইকিংও শুরু হয়েছে।

Published by:Akash Misra
First published: