• Home
  • »
  • News
  • »
  • south-bengal
  • »
  • রাতের জোয়ারে ভেঙে পড়ল কাকদ্বীপের একাধিক বসতি বাড়ি !

রাতের জোয়ারে ভেঙে পড়ল কাকদ্বীপের একাধিক বসতি বাড়ি !

Representational Image

Representational Image

কোটালের জলোচ্ছ্বাস ও টানা বৃষ্টির জেরে প্লাবিত সুন্দরবনের উপকূলবর্তী একাধিক এলাকা। চাষের জমি, পুকুর ডুবে গিয়েছে। ভেঙেছে বেশ কিছু কাঁচা বাড়ি।

  • Share this:

    Image is used for Representational Purpose

    #কাকদ্বীপ: বৃহস্পতিবার কোটালের জেরে নদী গুলিতে যেভাবে জলস্তর বাড়ে তার জেরে নদীর পাশের মাটি আলগা হয়ে ধস নামে বলে জানা যায়।

    কাকদ্বীপের অক্ষয়নগর শিবপুর গ্রামের পাশে থেকে বয়ে গিয়েছে কালনাগীনি খাল আর গত দুই দিন ধরে সেখানে প্রবল জলস্রোত তৈরি হয় । তার জেরে খালের পাশে থাকা বাড়িগুলিতে ফাটল দেখা যায় ৷ পরে পুরোপুরি ধস নামায় অন্তত ৬টা বাড়ি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। এলাকার বাসিন্দা সুমিত্রা দাস জানান, ‘‘বৃহস্পতিবার গভীর রাতে দিকে বিকট একটা আওয়াজ পায় ঘুম ভেঙে যায় । সেই সময় তড়িঘড়ি উঠে বাড়ির বাচ্চাদের সরাতে সরাতেই তৎক্ষণাৎই ঘরগুলি একের পর এক নদী গর্ভে চলে যায়। এখন সারা রাত জাগা আমরা ৷ আতঙ্কে রয়েছি কখন কি হয়।’’

    অন্যদিকে কোটালের জলোচ্ছ্বাস ও টানা বৃষ্টির জেরে প্লাবিত সুন্দরবনের উপকূলবর্তী একাধিক এলাকা। চাষের জমি, পুকুর ডুবে গিয়েছে। ভেঙেছে বেশ কিছু কাঁচা বাড়ি। বাড়িতে জল ঢোকায় বাঁধের পাশ থেকে অন্যত্র সরিয়ে নিয়ে যাওয়া হয়েছে কিছু মানুষকে। বুধবার রাত থেকেই ঝোড়ো বাতাসের সঙ্গে বৃষ্টি শুরু হয় সারা জেলা জুড়ে। শুক্রবার সকাল থেকে বৃষ্টির পরিমাণ আরও বাড়তে থাকে। অমাবস্যার কোটালের জেরে নদী ও সমুদ্রের জলস্তর বৃদ্ধি পাওয়ায় বাঁধ উপচে নোনা জল ঢুকতে থাকে উপকূলবর্তী এলাকায়। আমফান পরবর্তী সময়ে দ্রুত বাঁধ মেরামত না হওয়ার জেরে পরিস্থিতি আরও ভয়ঙ্কর হয়ে উঠেছে। স্থানীয় বাসিন্দারা নিজেদের উদ্যোগে অনেক এলাকায় বাঁধ মেরামতের চেষ্টা করেন। কিন্তু বেহাল বাঁধ ধুয়ে মুছে সাফ হয়ে গিয়েছে। প্রশাসন এই বিষয়ে নজর রাখছে। আগামী দু’দিন সুন্দরবন জুড়ে বৃষ্টির পূর্বাভাস আছে এবং জলোচ্ছ্বাসও হবে। সব মিলিয়ে আগামী কয়েকদিন সুন্দরবনে দুর্যোগের আশঙ্কা তৈরি হয়েছে।

    Published by:Siddhartha Sarkar
    First published: