যৌনাঙ্গে কামড়, দগদগে ক্ষত... বিকৃতকাম বৃদ্ধের যৌন লালসার শিকার দুই নাবালিকা

যৌনাঙ্গে কামড়, দগদগে ক্ষত... বিকৃতকাম বৃদ্ধের যৌন লালসার শিকার দুই নাবালিকা
representative image

যৌন নির্যাতনের পাশাপাশি তাদের শরীরের বিভিন্ন জায়গায় এবং গোপন অঙ্গে কামড়ে দেওয়া হয় বলেও অভিযোগ

  • Share this:

#জোকা: ঘরে বসে খেলা করছিল দুই বান্ধবী। সেই সময় পাশের বাড়ির দাদু এসে তার ঘরে ডাকে। যেতে না চাইলে কার্যত টেনে নিয়ে যায় বলে অভিযোগ। আখের রস খাওয়ানোরও লোভ দেখানো হয়।

নিজের ঘরে নিয়ে যাওয়ার পর কেউ না থাকার সুযোগ নিয়ে প্রথমে দশ বছরের কিশোরীকে যৌন নির্যাতন করা হয় বলে অভিযোগ। এরপর সাত বছরের কিশোরীকেও একইভাবে নির্যাতন করে বিকৃতকাম ওই প্রৌঢ়। শুধু তাই নয় যৌন নির্যাতনের পাশাপাশি তাদের শরীরের বিভিন্ন জায়গায় এবং গোপন অঙ্গে কামড়ে দেওয়া হয় বলেও অভিযোগ। রবিবার রাতে ঘটনাটি ঘটেছে জোকা ডায়মন্ডপার্ক খালপাড় এলাকায়।

 বিষয়টি বুঝতে পারে ওই দুই কিশোরীর আরেক বান্ধবী। অভিযোগ, তাকেও এর আগে একইভাবে নির্যাতন করে বিকৃতকাম ওই প্রৌঢ়। সে-ই তখন দুই কিশোরীর বাড়িতে যানায়। তারা এসে প্রৌঢ়ের ঘর থেকে উদ্ধার করে দুই মেয়েকে। পুলিশ বৃদ্ধকে আটক করেছে।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে খবর, অভিযুক্তের নাম অমল মজুমদার। পেশায় আখের রস বিক্রেতা। বাড়িতে তার স্ত্রী ও পুত্র রয়েছে।  ঘটনার সময় কেউ বাড়িতে না থাকার সুযোগ নিয়ে এই কান্ড ঘটায় অভিযুক্ত অমল। স্থানীয় বাসিন্দারা আরও জানিয়েছেন, এর আগেও এই ধরনের কাজ করেছে অভিযুক্ত ব্যক্তি। গতকালের ঘটনার পর ওই কিশোরীরা যাতে কাউকে না জানায় সেজন্য তাদেরকে খুন করারা  হুমকিও দেয় অভিযুক্ত।

গতকাল বিষয়টি প্রকাশ্যে আসার পর স্থানীয় বাসিন্দাদের রোষ গিয়ে পড়ে অভিযুক্তর উপরে। মারধরে জখমও হয়, বর্তমানে হাসপাতালে চিকিৎসাধীন প্রৌঢ়। ইতিমধ্যেই হরিদেবপুর থানার পুলিশ পকসো আইনে মামলা রুজু করেছে। হাসপাতাল থেকে ছাড়া পেলে অভিযুক্ত ব্যক্তিকে গ্রেফতার করা হবে বলেও জানানো হয়েছে।

নির্যাতিত কিশোরীর পরিবারের এক সদস্য বলেন, "ওকে আমরা মেসো বলেই ডাকতাম। এরকম ঘটনা ঘটাতে পারে তা দুঃস্বপ্নেও ভাবতে পারিনি। প্রথমে আমার মেয়ে কিছুই বলতে চাইছিল না। ওদের খুন করে দেওয়ার ভয় দেখিয়ে রেখেছিল। পরে ওদের পোশাক খুলে দেখা যায় শরীরের বিভিন্ন জায়গায় আঁচড়-কামড়ের দাগ। তারপর মেয়েরা জানায় ওদের উপর কিভাবে অত্যাচার করা হয়েছে।"

নির্যাতিত এক কিশোরীর বাবা বলেন, "আমরা ওর চরমতম শাস্তি চাইছি। এমন শাস্তি দেওয়া হোক যাতে কোনওদিন এরকম দুষ্কর্ম করার কথা ভাবতেও না পারে।"

SUJOY PAL

First published: March 2, 2020, 6:56 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर