BonchitokenoAsansol: 'আসানসোল বঞ্চিত কেন?' ফের সোস্যাল মিডিয়ায় 'বিপ্লব' জিতেন্দ্র তিওয়ারির

ফের সোশ্যাল মিডিয়ায় পোস্ট করে বঞ্চনার অভিযোগে সরব হলেন জিতেন্দ্র তিওয়ারি।

ফের সোশ্যাল মিডিয়ায় পোস্ট করে বঞ্চনার অভিযোগে সরব হলেন জিতেন্দ্র তিওয়ারি।

  • Share this:

#আসানসোল:   আসানসোল পুরনিগমকে বঞ্চনা করা হচ্ছে। অবহেলা করা হচ্ছে। সেইসঙ্গে আসানসোলকেও। ফের সোশ্যাল মিডিয়ায় পোস্ট করে বঞ্চনার অভিযোগে সরব হলেন জিতেন্দ্র তিওয়ারি। তিনি যখন পুর প্রশাসকের মসনদে ছিলেন তখনই রাজ্য সরকারের বিরুদ্ধে বিস্ফোরক অভিযোগ প্রকাশ্যে এনেছিলেন। সেই নিয়ে শুরু হয় তুমুল বিতর্ক। সেই বিতর্কের জল গড়ায় বহুদূর। সেই সময় তাঁর বিস্ফোরক অভিযোগ ছিল, স্রেফ রাজনীতির কারণেই পুরসভাকে পাঠানো কেন্দ্রীয় অনুদানের টাকা নেওয়ার ক্ষেত্রে অনীহা দেখাচ্ছে সরকার। তৎকালীন মন্ত্রী ফিরহাদ হাকিমের বিরুদ্ধেও একের পর এক অভিযোগ করেছিলেন জিতেন্দ্র তিওয়ারি। শেষমেষ বঞ্চনার অভিযোগকে সামনে এনে দলের বিভিন্ন পদ ও আসানসোল  পুরনিগমের প্রশাসক বোর্ডের প্রধান হিসেবেও পদত্যাগ করেন জিতেন্দ্র। দলের সঙ্গে তৈরি হয় দূরত্ব। তাঁকে ঘিরে তৈরি হয় জল্পনা।

পরিস্থিতি সামাল দিতে জিতেন্দ্রর সঙ্গে সেই সময়েই কলকাতায় বৈঠকে বসেন অরূপ বিশ্বাস ও প্রশান্ত কিশোর। জিতেন্দ্র তিওয়ারির হঠাৎ ভোলবদলে  জিতেন্দ্রকে নিয়ে তৃণমূল শিবির সাময়িক স্বস্তি পেলেও কিছুদিন পরেই শিবির পরিবর্তন করে দিলীপ ঘোষের হাত ধরে বিজেপিতে যোগ দেন জিতেন্দ্র। এরপরই নিজের পুরনো দল তৃণমূলের বিরুদ্ধে একের পর এক বোমা ফাটাতে শুরু করেন জিতেন্দ্র। গত বিধানসভা নির্বাচনে বিজেপি জিতেন্দ্রকে তাঁর পুরনো কেন্দ্র পাণ্ডবেশ্বর থেকেই নির্বাচনে টিকিট দেয়। তবে  প্রেস্টিজ ফাইটে তৃণমূল প্রার্থীর কাছে হেরে যান জিতেন্দ্র। পরাজয়কে মাথা পেতে বেশ কিছুদিন কার্যত 'চুপচাপ' বসে ছিলেন জিতেন্দ্র তিওয়ারি। তৃতীয়বারের জন্য তৃণমূল সরকারে আসার পর থেকেই বিজেপির অনেক দলবদলুই  ফের তৃণমূলে ফেরার ব্যাপারে যখন মরিয়া হয়ে রয়েছেন ঠিক তখনই সরকারকে খোঁচা দিয়ে নিজের শহরের বঞ্চনার বিরুদ্ধে সরব বিজেপি নেতা জিতেন্দ্র।

নিজের সোশ্যাল মিডিয়ার অ্যাকাউন্ট থেকে জিতেন্দ্র তিওয়ারির সাম্প্রতিক দুটি পোস্টকে ঘিরে ফের শুরু হয়েছে রাজনৈতিক চাপানউতোর। প্রথম পোস্টে তিনি #BonchitoKenoAsansol প্রশ্ন তুলে বলেন, বাংলার সর্ববৃহৎ পুরনিগম হয়েও বঞ্চিত ও অবহেলিত কেন আসানসোল? জিতেন্দ্র নিজের দ্বিতীয় পোস্টে উল্লেখ করেন, কলকাতা পুরসভা যেখানে 206.08 Sq.km. আয়তন হয়েও সেখানে সরকারি মেডিকেল কলেজ ও অসংখ্য ডাক্তারি পড়াশোনা করার প্রতিষ্ঠান রয়েছে। অথচ আসানসোল পুরসভার  আয়তন  326 sq.km. কলকাতা পুর এলাকার থেকে বেশি হওয়া সত্ত্বেও একটিও সরকারি মেডিকেল কলেজ নেই। আর জিতেন্দ্র তিওয়ারির এই পোস্টকে নিয়েই শুরু হয়েছে  চাপানউতোর। আসানসোল পুর নিগমের বর্তমান প্রশাসক বোর্ডের চেয়ারম্যান অমরনাথ চট্টোপাধ্যায় জিতেন্দ্র তিওয়ারিকে কটাক্ষের সুরে জবাব দিয়ে বলেন , 'উনি পাগলের প্রলাপ বকছেন। পুরসভাকে কোনও ভাবেই বঞ্চিত ,অবহেলিত করছে না সরকার। উল্টে অতিরিক্ত গুরুত্ব দিচ্ছে। তাই উনি যাই অভিযোগই করুক না কেন ওঁর আমল থেকে বর্তমান আমলে আসানসোলের মানুষ ভালো আছেন'। অমরনাথকে  জিতেন্দ্রর পাল্টা  , 'শহরের মানুষের কী  দুরাবস্থা তা আসানসোলবাসী  হাড়ে হাড়ে টের পাচ্ছেন।

Published by:Suman Majumder
First published: