অভিষেকের মন্তব্য়ের নিন্দা, শিশির অধিকারীকেও দলে টানতে বার্তা দিলেন নাড্ডা?

অভিষেকের মন্তব্য়ের নিন্দা, শিশির অধিকারীকেও দলে টানতে বার্তা দিলেন নাড্ডা?
শিশির অধিকারীকে বার্তা জে পি নাড্ডার?

যেভাবে এ দিন বারংবার শিশির অধিকারীর প্রতি অভিষেকের আক্রমণের বিরোধিতা করেছেন বিজেপি সভাপতি, তা বিশেষ তাৎপর্যপূর্ণ বলেই মনে করছে রাজনৈতিক মহল৷

  • Share this:

    #লালগড়: শিশির এবং দিব্যেন্দু অধিকারীর রাজনৈতিক ভবিষ্যৎ নিয়ে জল্পনা অব্যাহত৷ এরই মধ্যে রাজ্যে এসে সেই জল্পনা আরও বাড়িয়ে দিলেন বিজেপি সভাপতি জে পি নাড্ডা৷ এ দিন তারাপীঠ এবং লালগড়, দুই সভা থেকেই শিশির অধিকারীর উদ্দেশে কয়েকদিন আগে করা অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের মন্তব্যের বিরুদ্ধে সরব হন তিনি৷

    গত ৬ ফেব্রুয়ারি কাঁথিতে জনসভা করেন তৃণমূল সাংসদ অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়৷ সেই সভা থেকেই শুভেন্দু অধিকারীর উদ্দেশে তিনি বলেছিলেন, 'তোর বাপকে গিয়ে বল, বাড়ির পাঁচ কিলোমিটারের মধ্যে দাঁড়িয়ে আছি৷ কী করবি এসে করে নে, আছে হিম্মত?' এ দিন প্রথমে তারাপীঠ এবং তার পরে লালগড়ের সভা থেকেই অভিষেকের এই বক্তব্যের তীব্র সমালোচনা করেন বিজেপি সভাপতি৷ তিনি বলেন, 'সম্মানীয় শিশির অধিকারীর উদ্দেশে যে শব্দের ব্যবহার ভাইপো করেছেন, তা আমি মুখে আনতে পারব না৷ এরা নাকি বাংলার সংস্কৃতি রক্ষা করবে? ভাইপোই জানে না কীভাবে কার সঙ্গে কথা বলতে হয়৷' শুধু অভিষেকের এই মন্তব্য নয়, মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় যে ভাবে তাঁর পদবী নিয়ে কয়েকদিন আগে সমালোচনা করেছিলেন, তারও সমালোচনা করেন জে পি নাড্ডা৷ তাঁর দাবি, বাংলার মানুষই ভোট বাক্সে তৃণমূলকে এর জবাব দেবেন৷ লালগড়ের সভায় উপস্থিত ছিলেন শুভেন্দু অধিকারীও৷ তৃণমূলনেত্রীর উদ্দেশে জে  পি নাড্ডা বলেন, 'বাংলায় এই সংস্কৃতির পরিবর্তন হবে দিদি৷ আপনার এই সংস্কৃতি শেষ হবে, অরবিন্দ, শ্যামাপ্রসাদের সংস্কৃতি বাংলায় প্রতিষ্ঠিত হবে৷'

    তবে যেভাবে এ দিন বারংবার শিশির অধিকারীর প্রতি অভিষেকের আক্রমণের বিরোধিতা করেছেন বিজেপি সভাপতি, তা বিশেষ তাৎপর্যপূর্ণ বলেই মনে করছে রাজনৈতিক মহল৷ কারণ খাতায় কলমে এখনও তৃণমূলেই রয়েছেন শিশিরবাবু৷ দিব্যেন্দু অধিকারীও এখনও তৃণমূলের সাংসদ৷ যদিও দু' জনের সঙ্গেই তৃণমূলের সম্পর্ক তলানিতে পৌঁছেছে৷ দিব্যেন্দুর বিজেপি-তে যোগ নিয়ে জল্পনা ছড়ালেও শিশির অধিকারী কী সিদ্ধান্ত নেন, তা এখনও স্পষ্ট নয়৷ তবে শিশিরবাবু জানিয়েছেন, তিনি রাজনীতিতেই থাকবেন৷


    প্রসঙ্গত গত ৭ তারিখ হলদিয়ায় এসেও দিব্যেন্দু অধিকারীর সঙ্গে আলাদা করে কথা বলেছিলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি৷ সেদিনও শিশিরবাবুর শারীরিক অবস্থার খোঁজখবর নেওয়ার পাশাপাশি তাঁর খেয়াল রাখার পরামর্শ দিয়েছিলেন মোদি৷ দিল্লি গেলে তাঁর সঙ্গে দেখা করার জন্যও দিব্যেন্দুকে বলেছিলেন প্রধানমন্ত্রী৷ এর পর এ দিন জে পি নাড্ডার এ দিনের বার্তা শিশির অধিকারীর প্রতি গেরুয়া শিবিরের ইঙ্গিতবাহী বার্তা বলেই মনে করছে রাজনৈতিক মহল৷

    Published by:Debamoy Ghosh
    First published:

    লেটেস্ট খবর