'এত ভয় কেন? কী হয়েছে?' কাটোয়ার সভা থেকে মমতাকে প্রশ্ন নাড্ডার

'এত ভয় কেন? কী হয়েছে?' কাটোয়ার সভা থেকে মমতাকে প্রশ্ন নাড্ডার

মমতাকে কটাক্ষ নাড্ডার৷ Photo-File

  • Share this:

    #কাটোয়া: 'এত ভয় কেন? কী হয়েছে?' কাটয়োর কৃষক সুরক্ষা সভা থেকে বাংলায় এ ভাবেই মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে কটাক্ষ করলেন বিজেপি সভাপতি জে পি নাড্ডা৷ এর আগের বার রাজ্য সফরে এসে ডায়মন্ড হারবার যাওয়ার পথে হামলা হয়েছিল জে পি নাড্ডার কনভয়ে৷ এ বার অবশ্য পূর্ব বর্ধমানে নির্বিঘ্নেই চলছে বিজেপি সভাপতির রাজ্য সফর৷

    এ দিন বিমানে দিল্লি থেকে অণ্ডাল বিমানবন্দরে পৌঁছন জে পি নাড্ডা৷ এর পর সেখান থেকে হেলিকপ্টারে পৌঁছন কাটোয়ার জগদানন্দপুর গ্রামে পৌঁছন বিজেপি সভাপতি৷ স্থানীয় রাধাকৃষ্ণ মন্দিরে পুজো দিয়ে সভা মঞ্চে পৌঁছন নাড্ডা৷ সেই সভা থেকেই নানা ইস্যুতে রাজ্য সরকার এবং শাসক দলকে আক্রমণ করেন তিনি৷ কটাক্ষের সুরে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের উদ্দেশে তিনি বলেন, 'মমতাদি, এত ভয় কেন? কী হয়েছে? খালি বলে হবে না, হবে না৷ মে মাসের পর থেকে হবে, হবে, হবে৷'

    দিল্লিতে চলতে থাকা কৃষক আন্দোলনের মধ্যেই মূলত কৃষকদের সঙ্গে জনসংযোগ সারাই এই সফরে উদ্দেশ্য ছিল জে পি নাড্ডার৷ সেই কারণেই বেছে নেওয়া হয়েছে রাজ্যের শস্য ভান্ডার হিসেবে পরিচিত পূর্ব বর্ধমান জেলাকে৷ সভার নামও দেওয়া হয়েছিল কৃষক সুরক্ষা সভা৷ রাজ্যের আপত্তিতে এতদিন বাংলার কৃষকরা প্রধানমন্ত্রীর কৃষক সম্মান নিধি প্রকল্পের আর্থিক সাহায্য পাচ্ছে না বলেও অভিযোগ করেন বিজেপি সভাপতি৷ সম্প্রতি এই প্রকল্পে রাজ্যের আবেদনকারী কৃষকদের তথ্য যাচাইয়ে রাজি হয়েছে রাজ্য সরকার৷ সেই প্রসঙ্গ তুলে নাড্ডা বলেন, 'এতদিনে মমতাদি প্রধানমন্ত্রীকে চিঠি লিখে প্রকল্পে যোগ দেওয়ার কথা জানিয়েছেন৷ আর আপনার দরকার নেই দিদি৷ আমরা কৃষক সুরক্ষা সভা করলাম তখন গিয়ে আপনার টনক নড়ল? বিজেপি-র সরকার ক্ষমতায় এলে বাংলার কৃষকরা এমনিই অর্থ সাহায্য পাবে৷'

    এ দিন সভাস্থলে আসার সময় রাস্তার দু' পাশে মানুষের ভিড় দেখেও উৎসাহিত বিজেপি সভাপতি৷ সভা মঞ্চ থেকে তিনি বলেন, 'এই ভিড় থেকে স্পষ্ট, বাংলায় পরিবর্তন হচ্ছেই৷'

    বিজেপি সভাপতি আরও অভিযোগ করেন, কেন্দ্রের বিভিন্ন প্রকল্পের নাম চুরি করছে রাজ্য সরকার৷ কেন্দ্রীয় প্রকল্পের নাম বদলে দিয়ে রাজ্যের নামে চালানো হচ্ছে বলেও অভিযোগ করেন নাড্ডা৷ যদিও এ ভাবে প্রধানমন্ত্রীর নাম বাংলার মানুষের মন থেকে বোঝা যাবে না বলেও দাবি করেন বিজেপি সভাপতি৷

    এই সভা থেকেই আনুষ্ঠানিক ভাবে 'এক মুঠো চাল' কর্মসূচির উদ্বোধন করেন জে পি নাড্ডা৷ আগামী ২৪ জানুয়ারি পর্যন্ত এই কর্মসূচিতে কৃষকদের বাড়ি বাড়ি গিয়ে চাল এবং সব্জি সংগ্রহ করবে বিজেপি৷ এ দিন পাঁচটি কৃষক পরিবারে গিয়েও চাল এবং সব্জি সংগ্রহ করেন বিজেপি সভাপতি৷ সংগৃহীত চাল এবং সব্জি দিয়ে খিচুড়ি রান্না করে আগামী ৩১ জানুয়ারি পর্যন্ত কৃষকদের মধ্যেই তা বণ্টন করবে বিজেপি৷ এ দিন দুপুরে মথুরা মণ্ডল নামে এক কৃষকের বাড়িতে মধ্যাহ্নভোজও সারেন জে পি নাড্ডা৷

    Published by:Debamoy Ghosh
    First published:

    লেটেস্ট খবর