দক্ষিণবঙ্গ

?>
corona virus btn
corona virus btn
Loading

আউশগ্রামের মাজিবাড়িতে সাত রকমের শাক দিয়ে মা দুর্গার পুজো হয়

আউশগ্রামের মাজিবাড়িতে সাত রকমের শাক দিয়ে মা দুর্গার পুজো হয়

চতুর্থীতে মা পুজো পান শাকম্বরী রূপে। সেদিন সাত শাকের ভোগ দেওয়া হয়।

  • Share this:

#বর্ধমান: অব্রাহ্মন পরিবারে সারা বছর একই আসনে পূজা পান কালী ও দুর্গা। এখানে শারদোৎসবে পুজো হয় ১৫ দিন ধরে। অন্যান্যবার মহালয়ার সাতদিন আগে বোধনের মধ্য দিয়ে পুজোর সূচনা হয় এখানে। চতুর্থীতে মা পুজো পান শাকম্বরী রূপে। সেদিন সাত শাকের ভোগ দেওয়া হয়। পূর্ব বর্ধমানের আউশগ্রামের ঘোঘাতলায় বংশ পরম্পরায় এই রীতি চলে আসছে।

কাঁকসার গড় জঙ্গলে রয়েছে বহু প্রাচীন শ্যামারূপার মন্দির। প্রাচীন কাল থেকেই জঙ্গলের মাঝে এই মন্দিরে বহু ভক্তের সমাগম হয়। মানত করেন অনেকে। বহু ছাগ বলি হয়। তবে সবাব আগে হয় চাল কুমড়ো বলি। বংশ পরম্পরায় সেই চাল কুমড়ো আসতো আউশগ্রামের ঘোঘাতলা গ্রামের মাজিবাড়ি থেকে। আগে সেই চাল কুমড়ো বলির পর অন্য সব বলি হবে এমনটাই চলে আসছিল।

তেমনই এক মহানবমীতে মাজি পরিবারের সদস্য সুধীর মাজি চাল কুমড়ো নিয়ে চলেছেন শ্যামারূপা মন্দিরের উদ্দেশে। ঘন জঙ্গলে পথ হারান তিনি। এদিকে সময় যায় যায়। বেশ কিছুক্ষণ পর সুধীরবাবু পৌঁছন মন্দির। তিনি দেখেন, স্হানীয়ভাবে চালকুমড়ো জোগাড় করে বলি শুরু হয়ে গিয়েছে মন্দিরে। অপমানে তিনি মন্দির থেকে একটি পাথর কুরিয়ে নিয়ে বাড়ির পথ ধরেন।

বাড়ি ফিরে সেই নবমীতেই পাথরকে দেবী শ্যামারূপা হিসেবে প্রতিষ্ঠা করে তাঁর সামনে ফেরত নিয়ে আসা সেই চালকুমড়ো বলি দেন। সেই থেকেই ঘোঘাতলা গ্রামে শ্যামারূপার পুজো শুরু। পরবর্তী সময়ে এখানে মূর্তি পুজো শুরু হয়।

একই ঘরে একসঙ্গে পুজো পান দুর্গা ও কালী। মা সিদ্ধেশ্বরী রূপে পুজো পান কালী। মা দুর্গা এখানে সিংহবাহিনী। মা দুর্গা এখানে সিংহের ওপর অধিষ্ঠাত্রী। মহিষ ও মহিষাসুর থাকলেও এখানে লক্ষ্মী গনেশ কার্তিক সরস্বতী নেই।

ইদুঁরের গর্ত থেকে মাটি তুলে সেই মাটির ওপর বোধনের সময় ঘট স্থাপন করা হয়। ঘটের ওপর দেওয়া হয় পাঁচ রকমের কলাই। চতুর্থীতে শাকম্বরী পুজোয় শুসনি, কলমি, লাল খাঁড়া, লাউ, কুমড়ো, পালং, পুনকো এই সাত শাকের ভোগ দেবীকে নিবেদন করা হয়।

Saradindu Ghosh

Published by: Siddhartha Sarkar
First published: October 6, 2020, 1:09 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर