অশোকনগরে ISF কর্মীদের হুমকি-মারধর, প্রতিবাদে রাতভর থানা ঘেরাও, তৃণমূলের বিরুদ্ধে অভিযোগ

অশোকনগরে ISF কর্মীদের হুমকি-মারধর, প্রতিবাদে রাতভর থানা ঘেরাও, তৃণমূলের বিরুদ্ধে অভিযোগ

ইন্ডিয়ান সেক্যুলার ফ্রন্ট প্রধান আব্বাস সিদ্দিকি। ফাইল ছবি।

আইএসএফ কর্মীদের ‘হুমকি-মারধর’। উত্তর ২৪ পরগনার অশোকনগর থানার বামুনিয়া এলাকায় এই ঘটনাকে কেন্দ্র করে উত্তপ্ত হয়ে ওঠে এলাকা।

  • Share this:

    #অশোকনগরঃ আইএসএফ কর্মীদের ‘হুমকি-মারধর’। উত্তর ২৪ পরগনার অশোকনগর থানার বামুনিয়া এলাকায় এই ঘটনাকে কেন্দ্র করে উত্তপ্ত হয়ে ওঠে এলাকা। মঙ্গলবার রাতে দলের মিটিং চলাকালীন তৃণমূল কর্মী-সমর্থকরা হামলা চালায় বলে অভিযোগ। যদিও গোটা ঘটনার অভিযোগ অস্বীকার করেছে তৃণমূলের। এ দিকে হামলার প্রতিবাদে অশোকনগর খানা ঘেরাও করে ইন্ডিয়ান সেকুলার ফ্রন্টের কর্মীরা। দোষীদের শাস্তির আশ্বাস দেন হাবড়া থানার আইসি গৌতম মিত্র। আশ্বাস পেয়ে ঘেরাও তোলেন ফ্রন্ট কর্মীরা।

    দলীয় সূত্রে জানা গিয়েছে, প্রার্থী তালিকা ঘোষণা হতেই বিভিন্ন ধরনের হুমকি এবং ISF কর্মীদের মারধর করা হয়। অভিযোগের তীর তৃণমূলের বিরুদ্ধে। ঘটনাটি অশোকনগর থানার গুমা বড় বামুনিয়া এলাকায়। অভিযোগে, মঙ্গলবার রাতে দলীয় কর্মীদের নিয়ে মিটিং চলাকালীন হটাৎ করে তৃণমূল কর্মীরা চড়াও হয়। আইএসএফ কর্মীদের ব্যাপক মারধর করা হয়।  ঘটনায় চার ISF কর্মী আহত হয়েছেন। এরপর দোষীদের অবিলম্বে গ্রেফতার এবং শাস্তির দাবিতে অশোকনগর থানায় মঙ্গলবার রাত সাড়ে এগারোটা থেকে ঘেরাও শুরু করেন করমীরা। ঘেরাও কর্মসূচি চলে ভোর পৌনে চারটে পর্যন্ত।

    এ দিনের এই বিক্ষোভ কর্মসূচিতে দলীয় কর্মীদের সঙ্গে উপস্থিত ছিলেন অশোকনগর বিধানসভা কেন্দ্রের ISF প্রার্থী তাপস বন্দ্যোপাধ্যায়।অশোকনগর থানার পুলিশের পাশাপাশি খবর পেয়ে অশোকনগর থানায় হাজির হয় অশোকনগরের সিআই তথা হাবড়া থানার আইসি গৌতম মিত্র।দফায়-দফায় আলোচনার পর পরবর্তীতে দোষীদের বিরুদ্ধে অবিলম্বে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলে আশ্বস্ত করা হলে ভোর পৌনে চারটে নাগাদ বিক্ষোভ এবং থানা ঘেরাও কর্মসূচি তুলে নেয় ISF কর্মীরা। তবে বিক্ষোভকারীদের দাবি, যদি প্রশাসন দোষীদের বিরুদ্ধে দ্রুত ব্যবস্থা না নেয় তাহলে বৃহত্তর আন্দোলনের পথে নামবেন ISF এবং বাম-কংগ্রেসের জোট সমর্থিত কর্মীরা। এ দিনের থানা ঘেরাও বিক্ষোভে উপস্থিত ছিলেন কয়েক শত কর্মী সমর্থক। তবে এই নিয়ে এখনও পর্যন্ত তৃণমূলের কোন প্রতিক্রিয়া পাওয়া যায়নি।

    Published by:Shubhagata Dey
    First published:

    লেটেস্ট খবর