Corona: সাবধান! আজ থেকে Mask না পরে ট্রেনে উঠলেই জরিমানা হতে পারে ৫০০ টাকা

Corona: সাবধান! আজ থেকে Mask না পরে ট্রেনে উঠলেই জরিমানা হতে পারে ৫০০ টাকা

মাস্ক থুতনির কাছে নামিয়ে রাখলেও জরিমানা দিতে হবে। যাত্রীদের উপর নজর রাখবে স্টেশনে থাকা রেলের বিশেষ দল।

মাস্ক থুতনির কাছে নামিয়ে রাখলেও জরিমানা দিতে হবে। যাত্রীদের উপর নজর রাখবে স্টেশনে থাকা রেলের বিশেষ দল।

  • Share this:

#কলকাতা: মাস্ক না পরে আজ থেকে আর ট্রেনে উঠবেন না। মাস্ক বা ফেস কভার না পরে রেল স্টেশনে ঘোরাঘুরিও করবেন না। কারণ আজ থেকে মাস্ক বা ফেস কভার না পরে ট্রেনে উঠলেই আপনার জরিমানা হবে ৫০০ টাকা। এই ব্যবস্থা চালু করল পূর্ব ও দক্ষিণ পূর্ব রেল। তবে দক্ষিণ পূর্ব রেল সূত্রে জানানো হয়েছে, রেলওয়ে বোর্ডের নির্দেশিকা হাতে পাওয়ার পরেই তারা এই ব্যবস্থা চালু করে দিয়েছে। রেল যাত্রীদের একটা বড় অংশ এখনও সচেতন হয়নি। নজরদারির জন্যে অবশ্য বিশেষ দল বিভিন্ন স্টেশনে মোতায়েন রয়েছে।শিয়ালদহ, হাওড়া সহ বিভিন্ন ডিভিশনের একাধিক গুরুত্বপূর্ণ স্টেশনে আজ থেকে শুরু হয়ে গেল এই জরিমানা নেওয়ার কাজ৷ মূলত টিকিট পরীক্ষকরাই এই কাজ করবেন।

যে সব স্টেশন দিয়ে বেশি যাত্রী যাতায়াত করেন যেমন বালিগঞ্জ, সোনারপুর, বারুইপুর, যাদবপুর, ঢাকুরিয়া, দমদম, বিধাননগর, বেলঘড়িয়া, ব্যারাকপুর, সোদপুর, নৈহাটি, ব্যান্ডেল, চুচুঁড়া, চন্দননগর, শেওড়াফুলি, শ্রীরামপুর, উত্তরপাড়া, বালি, লিলুয়া, বারাসত, নিউ ব্যারাকপুর, হাবড়া, বনগাঁ, দত্তপুকুর, সাঁতরাগাছি, আন্দুল স্টেশনে থাকবে এই বিশেষ দল৷ যারা টিকিট পরীক্ষকদের এই কাজে সাহায্য করবেন। রেলের নয়া নির্দেশিকা অনুযায়ী, মাস্ক না পরা, স্টেশন চত্বরে থুতু ফেলা অপরাধ হিসাবে গণ্য হবে। যে সব যাত্রী মাস্ক থুতনির কাছে নামিয়ে রাখবেন তাদেরও মাস্ক না পরার অপরাধে জরিমানা করা হবে ৫০০ টাকা করে। আগামী ৬ মাস এই নিয়ম বজায় থাকবে। তবে সংক্রমণের সময়সীমার ওপরে নির্ভর করবে এই জরিমানার সময়সীমা।

পূর্ব রেলের এক আধিকারিক জানিয়েছেন, জরিমানা আদায় করে রেলের লভ্যাংশ বাড়ানো আমাদের উদ্দেশ্য নয়। আসল উদ্দেশ্য সংক্রমণ রোধ করা। সকলেই যাতে মাস্ক ব্যবহার করেন, তা নিশ্চিত করতে চাই আমরা। আর যারা করবেন না তাদের জরিমানা করে ছেড়ে দিয়ে দায় সারা হবে না। মাস্ক ও ফেস কভার দেওয়া হবে। দক্ষিণ পূর্ব রেলের এক আধিকারিক জানিয়েছেন, অনেকেই জরিমানার বিষয়টি জানেন, তাই মাস্ক নামিয়ে রেখেছেন থুতনির কাছে। যখনই টিকিট পরীক্ষক দেখছেন তখনই মাস্ক পরে নিচ্ছেন। এই সব যাত্রীরা নিজেদের বিপদ কিছুতেই বুঝতে চাইছেন না। তাই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে স্টেশনের সিসি ক্যামেরায় যেমন নজর রাখা হবে, ঠিক তেমনই নজর রাখা হবে ফ্লাইং স্কোয়াডের সাহায্য নিয়ে বিভিন্ন ক্যামেরায়। সংক্রমণের গ্রাফ বাড়তে শুরু করায় কমতে শুরু করেছে লোকাল ও দূরপাল্লার ট্রেনের যাত্রী। চিকিৎসকরাও এড়িয়ে চলতে বলছেন ট্রেন যাত্রা। তবে সংক্রমণ রোধে যাত্রীরা যাতে সচেতন থাকেন তাই জরিমানা চালু করল রেল।

Published by:Suman Majumder
First published: