পুজোর সময় পুজোর ভিড়ে নয়, এখানে দিন কাটে পাখিদের ভিড়ে ...

গায়ে ওদের রং-বেরঙের পালক জামা.. তার উপর শরতের রং তুলি বোলায়.. মনের বাঁকে, ঝাঁকে ঝাঁকে মিলে ওরা ঠিক জায়গা খুঁজে নেয়। উপরে আকাশ নীল।

News18 Bangla
Updated:Sep 27, 2019 11:11 PM IST
পুজোর সময় পুজোর ভিড়ে নয়, এখানে দিন কাটে পাখিদের ভিড়ে ...
News18 Bangla
Updated:Sep 27, 2019 11:11 PM IST

#কুলিক: পুজোর সময় পুজোর ভিড়ে নয়। যদি দিন কাটে পাখিদের ভিড়ে? কিচিরমিচিরে ভাঙে সবুজের নিস্তব্ধ? নিরিবিলি এসে বলে যায় মন কেমনের কথা? তাহলে যেতে হবে পাখিদের কাছে। ওদের দু’ডানায় দূর দেশের খবর। সেই খবরে কান পাততে পায়ে পায়ে বেরিয়ে পড়তে হবে..

গায়ে ওদের রং-বেরঙের পালক জামা.. তার উপর শরতের রং তুলি বোলায়.. মনের বাঁকে, ঝাঁকে ঝাঁকে মিলে ওরা ঠিক জায়গা খুঁজে নেয়। উপরে আকাশ নীল। নীচে সবুজের নরমে ওদের ভিড়। পুজোয় যখন শহুরে ভিড়, ওদের গা ঘেঁসাঘেঁসিতেও এক অপার শান্তি.. মনে ঢাক বাজে... আর কানে কিচির মিচির...

হয়ত অনেক দূর থেকে আপনি গিয়েছেন। দু’ডানায় দূর দেশের খবর নিয়ে ওরাও এসেছে। বাইনোকুলার নিয়ে বেরিয়ে পড়ুন কুলিক পাখিরালয়ে..

ওপেন বিল স্টর্ক, নাইট হেরন, কর্মোন্যান্টাল ইগ্রেট। মোটামুটি এপ্রিল-মে নাগাদ উত্তর পূর্ব এশিয়ার বিভিন্ন দেশ থেকে উড়ে আসে পরিযায়ীরা।

পাখপাখালির ডানার ঝাপট শুনে পথ এগোয় প্রাচীন বাহিন জমিদার বাড়িতে। যে বাড়ির ভাঙা খিলানে স্মৃতির পাতা ওলটানোর শব্দ..

Loading...

আরও আছে.. এত কাছে এলে দুর্গাপুর রাজবাড়িও ডেকে নিয়ে যায়.. দু’দণ্ড থমকে যেতে বলে...

- কলকাতা থেকে কলকাতা-রাধিকাপুর ট্রেনে করে রায়গঞ্জ স্টেশন

- রায়গঞ্জ স্টেশন থেকে টোটো নিয়ে ৫ কিলোমিটার দূরে কুলিক পক্ষীনিবাস

- পর্যটন দফতরের রায়গঞ্জ টুরিস্ট লজে থাকার ব্যবস্থা

- ওয়েবসাইট www.wbtdcl.com -এ রুম বুক করা যাবে

- নন এসি রুম ৭০০ টাকা

- এসি রুম ১ হাজার - ১২০০ টাকা

- কুলিক থেকে বাস বা টোটোয় করে বাহিন জমিদার বাড়ি

- বাহিন থেকে বাসে করে দুর্গাপুর রাজবাড়ি যাওয়া যাবে

First published: 11:11:36 PM Sep 27, 2019
পুরো খবর পড়ুন
Loading...
अगली ख़बर