Home /News /south-bengal /
Kharagpur horror: শরীরে অন্য পুরুষের স্পর্শ, জেগে উঠে স্ত্রী দেখলেন ভিডিও করছে স্বামী! খড়্গপুরে ধৃত ১

Kharagpur horror: শরীরে অন্য পুরুষের স্পর্শ, জেগে উঠে স্ত্রী দেখলেন ভিডিও করছে স্বামী! খড়্গপুরে ধৃত ১

প্রতীকী ছবি৷

প্রতীকী ছবি৷

ওই মহিলার অভিযোগ, শরীর খারাপ থাকায় শুক্রবার রাতে তাঁর স্বামী কয়েকটি ওষুধ এনে তাঁকে খেতে বলেন৷

  • Share this:

    #শোভন দাস, মেদিনীপুর: ঘুমের ওষুধ দিেয় প্রথমে স্ত্রী এবং সন্তানদের অচৈতন্য করে দিলেন স্বামী৷ তার পর স্ত্রীকে ধর্ষণ করার জন্য ঘরে ঢোকালেন বন্ধুকে৷ ধর্ষণ করার ভিডিও মোবাইলে রেকর্ড করে রাখারও পরিকল্পনা ছিল তার৷ নিজের স্বামীর বিরুদ্ধে এমনই চাঞ্চল্যকর অভিযোগ আনলেন পশ্চিম মেদিনীপুরের খড়্গপুরের বাসিন্দা এক মহিলা৷

    ঘটনাটি ঘটেছে খড়্গপুরের সাদাতপুর পুলিশ ফাঁড়ির অন্তর্গত গোকুলপুর এলাকায়। অসুস্থ অবস্থায় মেদিনীপুর মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি রয়েছেন ওই মহিলা৷ অভিযুক্ত স্বামীকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ৷ খোঁজ চলছে তাঁর বন্ধুর৷

    আরও পড়ুন: টাকা দিয়ে ফিরে যেতে বলে পুলিশ, উল্টোডাঙা ধর্ষণ কাণ্ডে চাঞ্চল্যকর অভিযোগ নির্যাতিতার

    ওই মহিলার অভিযোগ, শরীর খারাপ থাকায় শুক্রবার রাতে তাঁর স্বামী কয়েকটি ওষুধ এনে তাঁকে খেতে বলেন৷ সন্তানদেরও টনিক জাতীয় একটি ওষুধ খাওয়ান তিনি৷ ওষুধ খাওয়ার পরই আচ্ছন্ন বোধ করেন ওই গৃহবধূ৷

    তাঁর অভিযোগ, 'রাত বারোটা নাগাদ বুঝতে পারি আমায় কেউ স্পর্শ করছে। আমি প্রায় অচৈতন্য অবস্থায় ছিলাম, কোনও একটা ওষুধ খেয়ে নেওয়ার ফলে আমার হাত- পা অবশ হয়ে গিয়েছিল৷ চোখ খোলারও ক্ষমতা ছিল না। তাতেও আমি ওই লোকটি আমার স্বামী নয় বুঝতে পেরে ঠেলে সরিয়ে দিই, কোনও ভাবে মশারি থেকে পড়ে গিয়েও তার কলারটা ধরে ফেলি। তাকে চিনতে পেরে যাই, আটকানোর চেষ্টা করলে দেখতে পাই পাশ থেকে আমার স্বামী মোবাইলে পুরো ঘটনার ভিডিও রেকর্ড করছে। আমার স্বামীই তার বন্ধুকে দিয়ে এই কাজ করাচ্ছিল পরিকল্পিতভাবে। স্বামীর বন্ধুকে আমি ধরে ফেলতে আমার হাত থেকে ছাড়িয়ে নেয় আমার স্বামী। এর পর দু'জনেই বাড়ি থেকে পালায়। এখনও আমার হাত পা অনেকটা দুর্বল।'

    আরও পড়ুন: ডিভোর্সের আগের রাতে স্ত্রীর সঙ্গে এ কী কাণ্ড ঘটালেন স্বামী! নৃশংস ঘটনা, কাঁপছে হাঁসখালি

    স্থানীয় সূত্রে খবর, ওই দম্পতির দু'টি ছোট সন্তান রয়েছে। অভিযুক্ত স্বামী পেশায় সবজি বিক্রেতা। বিয়ের পর থেকেই স্বামী স্ত্রীর মধ্যে বিভিন্ন কারণে অশান্তি চলছিল। অভিযুক্ত ব্যক্তি স্ত্রীর উপরে প্রায়শই অত্যাচার করত বলে অভিযোগ।

    বিষয়টি মিটমাট করার জন্য বেশ কয়েকবার পুলিশ ও স্থানীয় জনপ্রতিনিধিদের হস্তক্ষেপও করতে হয়েছে। তবে শুক্রবার যা ঘটল তাতে ধৈর্যের বাঁধ ভেঙেছে ওই বধূ ও তার বাপের বাড়ির পরিবারের লোকজনের। পুলিশের কাছে অভিযোগ দায়ের করতেই অভিযুক্ত স্বামীকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। যদিও পুলিশ প্রথমে অভিযোগ নিতে চায়নি বলে দাবি ওই গৃহবধূর মায়ের৷

    Published by:Debamoy Ghosh
    First published:

    Tags: Paschim Medinipore, Rape

    পরবর্তী খবর