প্রেমিকের সঙ্গে সংসার পেতেছিলেন স্ত্রী ! রাগে স্ত্রী সহ প্রেমিককে ধারালো অস্ত্রের কোপ স্বামীর

প্রেমিকের সঙ্গে সংসার পেতেছিলেন স্ত্রী ! রাগে স্ত্রী সহ প্রেমিককে ধারালো অস্ত্রের কোপ স্বামীর
photo source collected

স্বামীর হাতে রক্তাক্ত প্রেমিককে দেখে চিৎকার জুড়ে দেয় রিঙ্কু। তখন স্ত্রী কে থামাতে তাঁকে লক্ষ করে দাঁ চালায় তপন দাস।

  • Share this:

#বনগাঁ: উত্তর ২৪ পরগনার বাগদা থেকে প্রায় দিন বনগাঁয় এসে নজর রাখতেন তাঁকে ছেড়ে যাওয়া স্ত্রীর উপর।বেশ কয়েক দিনের রেকিও করেন রিঙ্কুর স্বামী তপন দাস। বৃহঃস্পতিবার রাতে রিঙ্কু দাস তাঁর প্রেমিক চন্দন দত্তকে সঙ্গে নিয়ে বনগাঁয় বাজার করতে বেড়িয়েছিলেন। রাত প্রায় নটার দিকে রিঙ্কুর স্বামী ওৎ  পেতে ছিলেন বনগাঁ হাসপাতালের পিছনে সুনাসান জায়গায়।একটু অন্ধকার পেয়ে শিকারের উপর ঝাপিয়ে পড়ে সে। স্ত্রীর প্রেমিক চন্দন দত্তর ঘাড় লক্ষ করে দাঁ চালায় সে। কিন্তুু অপটু হাতে ধরা দাঁয়ের কোপ পড়ে গলার কাছে।স্বামীর হাতে রক্তাক্ত প্রেমিককে দেখে চিৎকার জুড়ে দেয় রিঙ্কু। তখন স্ত্রী কে থামাতে তাঁকে লক্ষ করে দাঁ চালায় তপন দাস। রিঙ্কুর মাথায় লাগে।  রিঙ্কুর চিৎকারে ছুটে আসে আশেপাশের লোকজন।

তপন দাসকে উপস্থিত জনতা  পুলিশের হাতে তুলে দেয়। প্রেমিক প্রেমিকাকে উদ্ধার করে বনগাঁ হাসপাতালে ভর্তি ও করায় তারা।ঘটনাটি ঘটেছে উত্তর 24 পরগনা বনগাঁ হাসপাতালের পিছনে বৃহস্পতিবার রাতে  l বাগদার কোনিয়ার গ্রামের তপন দাস এর সঙ্গে ২০১৩ সালে বিয়ে হয়েছিল মালদা জেলার রিঙ্কু মন্ডলের l তাঁদের একটি সাড়ে তিন বছরের পুত্র সন্তানও রয়েছে  l রিঙ্কুর অভিযোগ বিয়ের পর থেকেই তার উপরে অত্যাচার চালাত স্বামী তপন দাস l স্বামীর নির্যাতন সহ্য না করতে পেরে একাধিক বার বাপের বাড়িতে গিয়ে থেকেছেন তিনিl  ২০১৯ এর ডিসেম্বর মাসে বাগদা থানায় স্বামীর বিরুদ্ধে লিখিত বধূ নির্যাতনের অভিযোগও দায়ের করেন l সাম্প্রতিক বনগাঁর বাসিন্দা চন্দন দত্তের সঙ্গে থাকা শুরু করে রিঙ্কু l বৃহস্পতিবার রাতে তপন দাসের স্ত্রী রিঙ্কু ও তার প্রেমিক চন্দন দত্তেকে আগে থেকেই নজর রাখছিল তপন দাস।  তপনের দাঁয়ের কোপে আহত চন্দন দত্ত বর্তমানে বনগাঁ হাসপাতালে ভর্তি।  প্রেমিক কে বাঁচাতে গিয়ে আহত হয় রিঙ্কু মন্ডলের মুখে দায়ের কোপ  লাগে।তাঁকে  হাসপাতালে ভর্তি করা হলেও, প্রাথমিক চিকিৎসার পরে ছেড়ে দেওয়া হয় l চন্দন গুরুতর আহত অবস্থায় বনগাঁ মহকুমা হাসপাতালে চিকিৎসাধিন l

আহত চন্দন দত্তের ভাই ইন্দ্রজিৎ দত্তের দাবি রিঙ্কু স্বেচ্ছায় তার ভাইয়ের সঙ্গে এসে থাকেন l এই সম্পর্ক রিঙ্কুর স্বামী তপন দাস কোন দিন মানেননি। তাই একাধিকবার চন্দন দত্তকে ফোনে হুমকি দিয়েছে তপন দাস অভিযোগ চন্দন দাসের ভাই ইন্দ্রজিৎ দত্তেরl আর রিঙ্কু মন্ডল এর দাবি স্বামী তাকে নির্যাতন করত।তাই তাঁকে ছেড়ে নিজের ইচ্ছায় চন্দন দত্তর সঙ্গে থাকেন। বৃহস্পতিবার রাতেই ঘটনাস্থল থেকেই অভিযুক্ত তপন দাসকে গ্রেপ্তার করে বনগাঁ থানার পুলিশ l

RAJORSHI ROY 

First published: February 7, 2020, 11:13 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर