দক্ষিণবঙ্গ

?>
corona virus btn
corona virus btn
Loading

‘স্যার, আমার বউ চাই’ বলেই থানায় কেঁদে ভাসালেন এক ব্যক্তি, কোথায় ঘটল এমন ঘটনা!

‘স্যার, আমার বউ চাই’ বলেই থানায় কেঁদে ভাসালেন এক ব্যক্তি, কোথায় ঘটল এমন ঘটনা!

এমন আর্জি যে শুনতে হবে তা ভাবনার মধ্যে ছিল না পুলিশ অফিসারদের।

  • Share this:

#বর্ধমান: স্যার, আমার বউ চাই। কাঁদো কাঁদো গলায় বললেন এক ব্যক্তি অদ্ভুত দাবি শুনে নড়েচড়ে বসলেন পুলিশ অফিসার। এমন আর্জি যে শুনতে হবে তা ভাবনার মধ্যে ছিল না পুলিশ অফিসারদের। তারপর তাঁর মুখে কাহিনী শুনে ফয়সালা করতেই দু’দিন কাবার পুলিশ অফিসারদের। কিন্তু তেমন সমাধান সূত্র মিলল কই। ঠিক কি এমন ঘটনা ঘটল পূর্ব বর্ধমানের ভাতার থানায়!

পূর্ব বর্ধমান জেলার ভাতারের নরজা গ্রামের বাসিন্দা উৎপল মেটে। তিনিই বুধবার বউ ফেরত পাওয়ার আর্জি জানিয়ে ভাতার থানার দ্বারস্থ হয়েছিলেন। প্রথমে কর্তব্যরত পুলিশ অফিসার তাঁর কথায় অবাক হয়ে যান। পরে আজ, বৃহস্পতিবার তাঁর স্ত্রীকে থানায় ডেকে পাঠানো হয়। সেখানে যা হল সে আর এক কাণ্ড।

স্বামী-স্ত্রী দু’জনের মধ্যে ইদানিং বনিবনা হচ্ছিল না। থানায় এসে উৎপল বাবুর স্ত্রী সোনালী দেবী স্পষ্ট জানিয়ে দেন, তিনি আর তাঁর স্বামীর বাড়ি যাবেন না। তা শুনে কান্নায় ভেঙে পড়েন স্বামী।

সোনালীদেবী তাতে কোনও ভ্রুক্ষেপ করেননি। তিনি জানিয়ে দেন, ‘‘আমার প্রেম রয়েছে। সেই প্রেমিকের বাড়িতেই যেতে চাই আমি। আমি আমার স্বামীকে ডিভোর্স দিয়ে পুনরায় বিয়ে করতে চাই। আমাকে প্রচুর মারধর করে আমার স্বামী।’’

জানা গেল, এই দম্পতির পনের বছর বয়সী একটি কন্যা ও এগারো বছর বয়সী একটি পুত্র সন্তান রয়েছে। সেই ছেলে মেয়েকে সঙ্গে নিয়েই প্রেমিকের বাড়ি তিনি চলে যেতে চান বলে জানিয়ে দেন ওই মহিলা।প্রেমিকের নাম ঠিকানাও জানিয়ে দেন তিনি।

এই কথা শুনে অবাক হয়ে যান উৎপল মেটে। তিনি জানান, স্ত্রী যাকে প্রেমিক বলে পরিচয় দিচ্ছে সেই ব্যক্তি তাঁরই ঘনিষ্ঠ বন্ধু। বন্ধু যে এত বড় সর্বনাশ করবে তা তিনি কোনও দিনই ভেবে উঠতে পারেননি সন্দীপবাবু। সব মিলিয়ে বউ ফিরে পেতে পুলিশের দ্বারস্থ হয়ে খালি হাতেই ফিরতে হল উৎপল বাবুকে। মীমাংসা চেষ্টা চালিয়েছিলেন ভাতার থানার পুলিশ অফিসাররা। কিন্তু সোনালী দেবীর সিদ্ধান্তের কথা শুনে থমকে যান তাঁরাও।

শরদিন্দু ঘোষ 

Published by: Siddhartha Sarkar
First published: October 1, 2020, 8:23 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर