কী সাংঘাতিক! মাধ্যমিক পরীক্ষা দিয়ে ফেরার পথে ছাত্রীর শ্লীলতাহানি

কী সাংঘাতিক! মাধ্যমিক পরীক্ষা দিয়ে ফেরার পথে ছাত্রীর শ্লীলতাহানি

মাধ্যমিক পরীক্ষা দিয়ে বাড়ি ফেরার পথে এক ছাত্রীর শ্লীলতাহানির ঘটনায় চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে পূর্ব বর্ধমানের মেমারির ঘোষগ্রামে।

  • Share this:

#মেমারি: কি সাংঘাতিক ঘটনা! পরীক্ষাকেন্দ্র থেকে বাড়ি ফেরার পথে নির্যাতনের শিকার হতে হল এক নাবালিকা মাধ্যমিক পরীক্ষার্থীকে!

মাধ্যমিক পরীক্ষা দিয়ে বাড়ি ফেরার পথে এক ছাত্রীর শ্লীলতাহানির ঘটনায় চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে পূর্ব বর্ধমানের মেমারির ঘোষগ্রামে। ওই ছাত্রীর মায়ের অভিযোগের ভিত্তিতে অভিযুক্ত যুবককে গ্রেফতার করেছে মেমারি থানার পুলিশ। ধৃতের নাম প্রকাশ সিং। ঘোষগ্রামেই তার বাড়ি।

মঙ্গলবার ধৃতকে বর্ধমানে পকসো আদালতে পেশ করা হয়। বিচারক সৈয়দ নিয়াজউদ্দিন আজাদ ধৃতকে বিচার-বিভাগীয় হেফাজতের নির্দেশ দিয়েছেন। আগামী ৭ মার্চ ধৃতকে বর্ধমান আদালতে পেশের নির্দেশ দিয়েছেন বিচারক। স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে, ওই ছাত্রীর মাধ্যমিক পরীক্ষায় সিট পড়েছিল রাধাকান্তপুর উচ্চ বিদ্যালয়ে। সোমবার বিকেল ৪টে নাগাদ পরীক্ষা দিয়ে বাড়ি ফিরছিল ওই ছাত্রী। অভিযোগ, সেই সময় গ্রামের পশ্চিম পাড়ায় একটি পুকুর পাড়ের কাছে প্রকাশ ওই ছাত্রীর শ্লীলতাহানি করে। তার হাত ধরে টানতে টানতে নিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করে। এমনকি অভিযুক্ত যুবক ছাত্রীর কপালে সিঁদুর পরিয়ে দেওয়ারও চেষ্টা করে বলে স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে। ওই ছাত্রী চিৎকার করলে স্থানীয়রা ছুটে আসেন। তখন প্রকাশ সেখান থেকে পালিয়ে যায়।

 বাড়ি ফিরে ওই ছাত্রীর পরিবারের সকলকে বিষয়টি জানান। ওইদিন রাতেই ছাত্রীর মা মেমারি থানায় প্রকাশের বিরুদ্ধে শ্লীলতাহানির অভিযোগ দায়ের করেছেন। তার ভিত্তিতে শ্লীলতাহানি ও পকসো আইনের ধারায় মামলা রুজু করে পুলিশ তদন্ত শুরু করেছে। ওইদিন রাতেই বাড়ি থেকে প্রকাশকে গ্রেফতার করে পুলিশ। মঙ্গলবার আদালতে পেশের সময় অবশ্য প্রকাশ কোনও মন্তব্য করতে চায়নি। গ্রামেরই মেয়ের এইভাবে শ্লীলতাহানির অভিযোগকে ঘিরে চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে।

First published: February 25, 2020, 8:56 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर