• Home
  • »
  • News
  • »
  • south-bengal
  • »
  • HOW STUDENT ADMISSION WILL BE DONE IN BIRBHUM IS A CONCERN FOR PARENTS AND COLLEGE ADMINISTRATION PBD

স্নাতক স্তরে কোন কলেজে ভর্তি হবেন বীরভূমের পড়ুয়ারা? চিন্তায় অভিভাবক থেকে কলেজ কর্তৃপক্ষ

যে পরিমাণ ছাত্র-ছাত্রী উচ্চ মাধ্যমিকে পাস করেছেন তাদের সবাই এই সমস্ত কলেজে ভর্তি হতে পারবে কিনা তা নিয়া যথেষ্ট সন্দেহ প্রকাশ করেছে কলেজ কর্তৃপক্ষ।

যে পরিমাণ ছাত্র-ছাত্রী উচ্চ মাধ্যমিকে পাস করেছেন তাদের সবাই এই সমস্ত কলেজে ভর্তি হতে পারবে কিনা তা নিয়া যথেষ্ট সন্দেহ প্রকাশ করেছে কলেজ কর্তৃপক্ষ।

  • Share this:

    #বীরভূম: স্নাতক স্তরে পড়াশোনা করার জন্য বীরভূমের রয়েছে ষোলটি সরকারি কলেজ৷ অন্যদিকে রয়েছে দুটি বেসরকারি কলেজ। কারিগরি শিক্ষার জন্য রয়েছে বেশ কয়েকটি কলেজ। তবে যে পরিমাণ ছাত্র-ছাত্রী উত্তীর্ণ হয়েছেন উচ্চমাধ্যমিকে তাতে কলেজগুলিতে কতজন ভর্তি হতে পারবে তা নিয়ে কিন্তু যথেষ্ট চিন্তা রয়েছে। বীরভূমের সিউড়িতে রয়েছে সিউড়ি বিদ্যাসাগর কলেজ ও বীরভূম মহাবিদ্যালয় কলেজ। সিউড়ি বিদ্যাসাগর কলেজের সর্বোচ্চ মোট তিন হাজার জনকে ভর্তি নেওয়া যেতে পারে। সিউড়ি বিদ্যাসাগর কলেজ রয়েছে আর্টস, সাইন্স, কমার্স। অন্যদিকে রয়েছে পাস কোর্সও। সিউড়ি বিদ্যাসাগর কলেজে বাংলা, ইংরাজি, ইতিহাস, রাষ্ট্রবিজ্ঞান, দর্শন ও সংস্কৃত অনার্সে ৯৭ জন করে ভর্তি হতে পারেন। এছাড়া আর স্নাতকে ৬০ জন ভর্তি হতে পারেন। মাস কমুনিকেশনে ৪০ জন, ভূগোলে ৩১ জন, ইকোনমিক্সে ৪০ জন ভর্তি হতে পারে অনার্সে। বিদ্যাসাগর কলেজে অঙ্ক অনার্সে ৮০ জন, কেমিস্ট্রি - ৪২, দর্শন -৪২, বোর্টানি - ৪২ জন, জুলজি - ৪২, মাইক্রোবায়োলজি তে - ৪৫ জন অনার্স নিয়ে ভর্তি হতে পারেন। কমার্সের একাউনটেনসি তে - ৯৭ জন ভর্তি হতে পারেন। অন্যদিকে মর্নিং ও দিবা বিভাগের পাসকোর্সে মোট ২৩৩০ জন মত ভর্তি হতে পারেন। সিউড়ি বিদ্যাসাগর কলেজে অধ্যাপক রয়েছেন ১০০ জন।

    সিউড়ি বীরভূম মহাবিদ্যালয় কলেজে মোট ৭০০ থেকে ৭৫০ জন মোট ভর্তি নেওয়ার ক্ষমতা রয়েছে। তারমধ্যে অনার্স বাংলা - ৮১ জন, ইংরাজি - ৭২জন, ভূগোল - ৩৬জন, রাষ্ট্রবিজ্ঞানে - ৫২ জন, সংস্কৃত ৫৫ জন, ইতিহাস - ৫৯ জন ও দর্শন ৪৫ জন প্রায় অনার্সে ভর্তি হতে পারেন।

    তবে যে পরিমাণ ছাত্র-ছাত্রী উচ্চ মাধ্যমিকে পাস করেছেন তাদের সবাই এই সমস্ত কলেজে ভর্তি হতে পারবে কিনা তা নিয়া যথেষ্ট সন্দেহ প্রকাশ করেছে কলেজ কর্তৃপক্ষ। ইতিমধ্যেই বর্ধমান বিশ্ববিদ্যালয়ের অধীনে থাকা এই সমস্ত কলেজ গুলি ওয়েবসাইটে ভর্তি পক্রিয়া চালুর নির্দেশিকা জানিয়েছে বিশ্ববিদ্যালয়ের নিয়ম মেনে। আগস্ট-সেপ্টেম্বরের মধ্যে সমস্ত প্রক্রিয়া শেষ হয়ে যাওয়ার কথা। তবে যারা উচ্চমাধ্যমিক পাশ করেছেন সেই সমস্ত ছাত্র-ছাত্রী ও তাদের অভিভাবকরা যথেষ্ট চিন্তার কারণ কি হবে, কোথায় ভর্তি হবে ছাত্র-ছাত্রীরা তা নিয়ে কিছুই বুঝে উঠতে পারছেন না তারা৷

    Published by:Pooja Basu
    First published: