৪২ বছর ধরে মুসলিম বাড়িতে আশ্রয়, বৃদ্ধের শেষ যাত্রায় সামিল হিন্দু-মুসলিম সকলেই

৪২ বছর ধরে মুসলিম বাড়িতে আশ্রয়, বৃদ্ধের শেষ যাত্রায় সামিল হিন্দু-মুসলিম সকলেই

প্রতিবেশীদের কাছে চাঁদা তুলে সৎকার করে সম্প্রীতির নজির গড়লেন কান্দি মহালন্দী আশরাফ পাড়া এলাকার বাসিন্দারা।

  • Share this:

#মুর্শিদাবাদ: সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতির অনন্য নজির মুর্শিদাবাদের কান্দিতে । দীর্ঘ ৪২বছর ধরে মুসলিম পরিবারে থাকার পর প্রদীপ মন্ডল (৭২) নামে এক ব্যক্তির মৃত্যু হয় শুক্রবার সকালে । শুক্রবার দুপুরে সৎকারে এগিয়ে এলেন স্থানীয় মুসলিম সম্প্রদায়ের মানুষ। প্রতিবেশীদের কাছে চাঁদা তুলে সৎকার করে সম্প্রীতির নজির গড়লেন কান্দি মহালন্দী আশরাফ পাড়া এলাকার বাসিন্দারা।

শুক্রবার দুপুরে বহরমপুর খাগড়াঘাট শ্মশান ঘাটে দাহ করা হয় দেহ ।  মহলন্দী গ্রামে প্রায় ৪২ বছর ধরে সেই প্রদীপ মণ্ডলের ঘর বাড়ি ছিল মেরু মিঞাঁর বাড়িতে। মহলন্দী আশরাফ পাড়াতেই সকলের কাছেই ছিল আপনজন প্রদীপ বাবু। শনিবার বার্ধক্যজনিত কারণে মৃত্যু হলে গোটা গ্রাম হিন্দু মুসলিম সকলেই ভিড় করেছিল মেরু মিঁ বাড়িতে শেষ শ্রদ্ধা জানাতে।  মুখাগ্নি করেন প্রাক্তন উপপ্রধান মহলন্দী গ্রাম পঞ্চায়েতের দমন দাস। ঠিক হয় হিন্দু মতে শ্রাদ্ধ কার্য হলেও মুসলিমরাও সকলে একসঙ্গে যোগদান করে একসঙ্গে খাওয়া দাওয়া হবে। তার জন্য সকলে আর্থিক সহযোগিতা করেন। মহলন্দী পঞ্চায়েতের উপপ্রধান আবুল হাসানাত বলেন, ‘‘নিজেদের কাকার মতো ছিল। মৃত্যুর পরেই আমি বাড়ি চলে আসি। শ্মশানে সৎকার্য করে এইমাত্র ফিরেছি। প্রতিদিন দেখা করতে যেতাম। ভালোই ছিল। কাজের দিন গোটা গ্রামের মানুষ একসাথে খাওয়া দাওয়া হবে। ছোট থেকে বড় সকলের কাছে ছিল কাকা বলে পরিচিত।’’

গোপাল দাস বলেন, ‘‘ আমাদের গ্রামে হিন্দু মুসলিমের মধ্যে কোন ভেদাভেদ নেই। ৪২ বছর ধরে মুসলিম বাড়িতেই তিনি নিজের লোকের মত থাকতেন। সকলেই এসেছেন শ্মশানে। আমরা সকলে একসঙ্গে কাজ করব।’’

Pranab Kumar Banerjee

First published: January 17, 2020, 11:03 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर