• Home
  • »
  • News
  • »
  • south-bengal
  • »
  • Ausgram Elephant: ৪৮ টি হাতির হানায় তছনছ ফসল, বন দফতরের কর্মীদের সঙ্গে বিবাদ ক্ষুব্ধ কৃষকদের

Ausgram Elephant: ৪৮ টি হাতির হানায় তছনছ ফসল, বন দফতরের কর্মীদের সঙ্গে বিবাদ ক্ষুব্ধ কৃষকদের

চাষিদের অভিযোগ, ক্ষতি হয় প্রচুর ধানজমির (Ausgram Elephant Attack)

চাষিদের অভিযোগ, ক্ষতি হয় প্রচুর ধানজমির (Ausgram Elephant Attack)

Ausgram Elephant: ৪৮ টি হাতির দল দামোদর নদ পেরিয়ে গলসির শিল্যা এলাকা দিয়ে ঢুকে গলসি ও আউশগ্রামের বিভিন্ন এলাকা দাপিয়ে বেড়ায়। চাষিদের অভিযোগ, ক্ষতি হয় প্রচুর ধান জমির।

  • Share this:

আউশগ্রাম : হাতির হানায় (Herd of 48 Elephants ransack cultivated paddy field) ফসল নষ্টের  আশঙ্কায় বন দফতরের কর্মীদের সঙ্গে বিবাদে জড়ালেন আউশগ্রামের (Ausgram) বাসিন্দারা। অভিযোগ, বনকর্মীদের সরিয়ে হাতি তাড়াতে উদ্যত হন স্থানীয়রা। এ নিয়ে দু’ পক্ষের মধ্যে উত্তেজনা তৈরি হয়। পরিস্থিতি সামাল দেয় আউশগ্রাম থানার পুলিশ। নষ্ট হয়ে যাওয়া ফসলের ক্ষতিপূরণ মিলবে বলে আশ্বাস দিয়েছে বন দফতর।

বৃহস্পতিবার সকাল ১০ টা নাগাদ ৪৮ টি হাতির দল দামোদর নদ পেরিয়ে গলসির শিল্যা এলাকা দিয়ে ঢুকে গলসি ও আউশগ্রামের বিভিন্ন এলাকা দাপিয়ে বেড়ায়। চাষিদের অভিযোগ, ক্ষতি হয় প্রচুর ধানজমির। আর কয়েকদিন মধ্যেই শস্য তুলে বাড়ি নিয়ে যাবার পরিকল্পনা  ছিলো তাঁদের।কিন্তু হাতির দল ধানক্ষেতে দাপিয়ে বেড়ানোয় বিস্তীর্ন এলাকার জমির ধান ক্ষতির মুখে।

আরও পড়ুন : কোথায় গেল ওরা? আউশগ্রামের আকাশে এখন ড্রোনের চক্কর!

বন দফতর হাতি তাড়াতে তেমন তৎপর নয়, এই অভিযোগ তুলে বন কর্মীদের সাথে বচসা জুড়ে দেন স্থানীয় বাসিন্দারা। এই বচসাকে  কেন্দ্র করে উত্তেজনা তৈরি হলে আউশগ্রাম থানার পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে।

যদিও বন দফতরের পক্ষ থেকে  কৃষকের ফসলের ক্ষতিপূরণের আশ্বাস দেওয়া হয়েছে। আধিকারিকরা জানিয়েছেন, নিয়মমাফিক ক্ষতিপূরণ পাবেন কৃষকরা। কোন জমিতে কী পরিমাণ ফসল নষ্ট হয়েছে তা হিসেব করে ক্ষতিপূরণ দেওয়া হবে।

আরও পড়ুন : ধানি জমিতে দাপিয়ে বেড়াচ্ছে পাল পাল হাতি! দেখেই চক্ষুচড়কগাছ বাসিন্দাদের...

এখন ধান কাটার সময় এসে গিয়েছে। বেশ কিছু এলাকায় ধান কাটার কাজ শুরুও হয়েছে। আর দু’ একদিনের মধ্যেই ধান কাটার ভরা মরশুম শুরু হয়ে যাবে। ঠিক সেই মুহূর্তে হাতির দল এসে সব তছনছ করে দিচ্ছে। বহু পরিশ্রমের ফসল এভাবে নষ্ট হতে দেখে ধৈর্যের বাঁধ ভাঙছে অনেকেরই। যত তাড়াতাড়ি সম্ভব জমি থেকে হাতি সরানো হোক, চাইছেন কৃষকদের সকলেই।

আরও পড়ুন :  গঙ্গায় কুমীর, রোদ পোহাচ্ছে পাড়ে! ডাঙায় মাইকিং, ভয়ে কাঁটা স্থানীয় মানুষ

বৃহস্পতিবার ভোরেই দামোদর পেরিয়ে বাঁকুড়া জেলা থেকে পূর্ব বর্ধমানে ঢোকে আটচল্লিশ হাতির দলটি। সকালে গলসির বিভিন্ন এলাকা দাপিয়ে বেড়ানোর পর চার শাবক-সহ হাতির দলটি আউশগ্রাম এলাকায় ঢোকে। সন্ধ্যার পরও হাতিগুলিকে আউশগ্রামেই দেখা গিয়েছে।

Published by:Arpita Roy Chowdhury
First published: