corona virus btn
corona virus btn
Loading

বুলবুলের পর আমফানে বিধ্বস্ত হেনরি আইল্যান্ড, লণ্ডভণ্ড 'সুন্দরী', 'ম্যানগ্রোভ' গেস্ট হাউজ  

বুলবুলের পর আমফানে বিধ্বস্ত হেনরি আইল্যান্ড, লণ্ডভণ্ড 'সুন্দরী', 'ম্যানগ্রোভ' গেস্ট হাউজ  

কয়েক মাস আগের বুলবুল ঝড়ে লণ্ডভণ্ড হয়েছিল এই আইল্যান্ডের সেক্টর এ। এবার আমফানের দাপটে মাথা তুলে দাঁড়াতে পারছে না সেক্টর বি-ও

  • Share this:

#দক্ষিণ ২৪ পরগনা: আমফানের ধাক্কায় বেসামাল হেনরি আইল্যান্ড। ক্ষতির মাত্রা এতটাই বেশি যে এই পরিস্থিতি থেকে ঘুরে দাঁড়াতে হেনরি আইল্যান্ডের সমস্যা হবে বলে স্বীকার করছেন দফতরের আধিকারিকরা। গত কয়েক বছর ধরে সপ্তাহান্তে বেড়ানোর জন্য স্বল্প দূরত্বের জায়গা বেছে নিচ্ছেন বহু ভ্রমণ পিপাসু। সেই কারণেই ভীষণ জনপ্রিয় হয়ে উঠেছে সমুদ্রের ধারের হেনরি আইল্যান্ড। বকখালি বা ফ্রেজারগঞ্জ যাঁরা পছন্দ করেন, তাঁরা এখন এসে থাকেন রাজ্য মৎস্য দফতরের হেনরি আইল্যান্ডে। কয়েক মাস আগের বুলবুল ঝড়ে লণ্ডভণ্ড হয়েছিল এই আইল্যান্ডের সেক্টর এ। এবার আমফানের দাপটে মাথা তুলে দাঁড়াতে পারছে না সেক্টর বি-ও। এই অংশে রয়েছে বনি, সুন্দরী-র মতো গেস্ট হাউজ।

বনি গেস্ট হাউজের তিন তলার একটি জানলাও নেই। ফ্রেম ভেঙে পড়ে আছে ঘরের মধ্যে। গোটা ঘর জুড়ে ছড়িয়ে ছিটিয়ে পড়ে আছে কাঁচ। ছাদের জলের ট্যাংক গিয়ে পড়েছে পাশের ম্যানগ্রোভ অরণ্যে। এছাড়া বাকি যে সমস্ত গেস্ট হাউজগুলি রয়েছে তাদের চাল গিয়েছে উড়ে। একাধিক গেস্ট হাউজের কংক্রিটের চাঙর ভেঙে পড়েছে। এই সেক্টরের দেখাশোনা করেন গুরুপদ মন্ডল। তিনি জানান, 'ঘরের আসবাবপত্র সব ভিজে গিয়েছে। একাধিক দেওয়ালে চিড় ধরেছে। জানলার ফ্রেম সব নষ্ট হয়ে গিয়েছে।' ঘরের যা দশা তাতে বেড়াতে এসে কেউ এখানে থাকতে পারবেন না আপাতত কয়েক মাস।

গোটা হেনরি আইল্যান্ড অন্ধকারে ডুবে। বিদ্যুতের খুঁটি উপড়ে পড়ে আছে। যোগাযোগ ব্যবস্থা সম্পূর্ণ বিকল। একাধিক জায়গায় বড় বড় গাছ পড়ে আছে। ট্যুরিজম ডেভলপমেন্ট কর্পোরেশন একটি আধুনিক মানের রেস্ট হাউজ তৈরি করছিল। সেটার সমস্ত কাঁচের দেওয়াল, ফলস সিলিং ভেঙে পড়েছে। ঘরের দরজা, জানলা সব ভেঙে পড়ে আছে। হেনরি আইল্যান্ড জুড়ে একাধিক জলাশয় রয়েছে। যেখানে বিভিন্ন ধরনের মাছের চাষ হয়। এই সমস্ত জলাশয়ের পাড় ভেঙে গিয়েছে। বহু মাছ মারা পড়েছে, বিশেষ করে নষ্ট হয়েছে মাছের খাবার। সূত্রের খবর সব মিলিয়ে প্রায় ১ কোটি টাকার ক্ষতি হয়েছে আমফানের জেরে।

ABIR GHOSAL

Published by: Rukmini Mazumder
First published: May 23, 2020, 12:02 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर