corona virus btn
corona virus btn
Loading

আমফানের জল শুকোনোর আগেই ফের প্রবল বৃষ্টিতে ভাসল এই এলাকা

আমফানের জল শুকোনোর আগেই ফের প্রবল বৃষ্টিতে ভাসল এই এলাকা

এদিন বিকেলে কালবৈশাখী ঝড়ের সঙ্গে মুষলধারে বৃষ্টি হয় কাটোয়া কেতুগ্রাম মঙ্গলকোট ভাতার গলসি সহ জেলার বেশ কিছু অংশে।

  • Share this:

#বর্ধমান: আমফানের জেরে এমনিতেই জল থই থই  পূর্ব বর্ধমানের বিস্তীর্ণ এলাকা।  তার ওপর আবার সোমবারের মুষলধারে বৃষ্টিতে ভাসলো কাটোয়া মহকুমা সহ জেলার বেশ কিছু অংশ।এদিন বিকেলে কালবৈশাখী ঝড়ের সঙ্গে মুষলধারে বৃষ্টি হয় কাটোয়া কেতুগ্রাম মঙ্গলকোট ভাতার গলসি সহ জেলার বেশ কিছু অংশে। নতুন করে ভারী বৃষ্টিতে সমস্যায় পড়েছেন বাসিন্দারা।আগামী তিন দিন ভারি বর্ষণের সম্ভাবনা রয়েছে বলে কৃষি দপ্তর সূত্রে জানা গিয়েছে।

আমফানের বিপর্যয়ের পর এখনও ঘর গোছাতে পারেননি অনেকেই। ছন্নছাড়া হয়ে রয়েছে অনেক এলাকা। আউসগ্রাম ভাতার মঙ্গলকোট গলসি ভাতার আউশগ্রামের বহু জমিতেই জল দাঁড়িয়ে রয়েছে। তার ওপর ভারী বর্ষণে বিপর্যয় আরও বাড়লো বলেই মনে করছেন এলাকার বাসিন্দারা। জেলা প্রশাসনের হিসেব অনুযায়ী, পূর্ব বর্ধমান জেলায় পাঁচশো সত্তর কোটি টাকার ফসল নষ্ট হয়েছে। বোরো ধান জলের তলায়। নষ্ট হয়ে গিয়েছে তিল বাদাম চাষ। লাউ কুমড়ো ঝিঙে পটলের মাচা ভেঙে গিয়েছে। সেইসব মাচা আবার সোজা করে নতুনভাবে লড়াই শুরু করার চেষ্টা চালাচ্ছেন এলাকার বাসিন্দারা। অনেক বোরো ধানের জমি এখনও জলের তলায়। সেই জমি থেকে জল সরাতেই ব্যস্ত কৃষকরা। অনেকের ঘর লন্ডভন্ড হয়ে গিয়েছে। ঘর সাড়ানোর টাকা নেই অনেকের হাতে।

সেই সময়ে এই মুষলধারে বৃষ্টি বাসিন্দাদের সমস্যাকে আরও বাড়িয়ে তুলল। বোরো চাষীরা বলছেন, আবহাওয়া দফতরের পূর্বাভাস অনুযায়ী আগামী তিন দিন ভারি বর্ষণ হবে দক্ষিণবঙ্গ জুড়ে। সেই পূর্বাভাস সত্যি করে এই জেলায় ফের ভারি বর্ষণ হলে যেটুকু বোরো ধান অবশিষ্ট আছে তাও আর পাওয়া যাবে না। এমনিতেই লকডাউনের জেরে উপার্জন হারিয়েছেন অনেকেই। তার ওপর আমফান নিঃস্ব করে ছেড়েছে। কবে এই  বিপর্যয়ের ঘা শুকাবে তা ভেবে উঠতে পারছেন না অনেকেই।

Published by: Dolon Chattopadhyay
First published: May 25, 2020, 7:18 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर