corona virus btn
corona virus btn
Loading

মিথ্যা মামলায় ফাঁসানোর অভিযোগ, অপমানে আত্মঘাতী প্রধান শিক্ষক

মিথ্যা মামলায় ফাঁসানোর অভিযোগ, অপমানে আত্মঘাতী প্রধান শিক্ষক
নিজস্ব চিত্র

হাওড়ার জগৎবল্লভপুরে আত্মঘাতী বেসরকারি স্কুলের প্রধান শিক্ষক। সুইসাইড নোটে প্রধান শিক্ষকের দাবি, পরিচালন সমিতির বিরুদ্ধে সরব হওয়ায় মিথ্যে মামলায় তাঁকে ফাঁসানো হয়।

  • Share this:

#হাওড়া: হাওড়ার জগৎবল্লভপুরে আত্মঘাতী বেসরকারি স্কুলের প্রধান শিক্ষক। সুইসাইড নোটে প্রধান শিক্ষকের দাবি, পরিচালন সমিতির বিরুদ্ধে সরব হওয়ায় মিথ্যে মামলায় তাঁকে ফাঁসানো হয়। সেই কারণেই অপমানে আত্মঘাতী হয়েছেন তিনি। পুলিশ উদ্ধারে গেলে দেহ আটকে বিক্ষোভ দেখায় স্থানীয়রা। স্কুল পরিচালন কমিটির এক সদস্যের দোকানেও ভাঙচুর চালানো হয়। এক চতুর্থ শ্রেণির মহিলা কর্মীকে আটক করেছে পুলিশ।

মাস কয়েক আগের ঘটনা। হাওড়ার জগৎবল্লভপুরের বল্লভাটিতে একটি বেসরকারি স্কুলে প্রধান শিক্ষকের দায়িত্ব পান সুজিত বন্দ্যোপাধ্যায়। সোমবার তাঁর ঝুলন্ত দেহ উদ্ধার হয় বাড়ির পাশের একটি বাগান থেকে। শিক্ষকের হাত থেকে উদ্ধার হয়েছে একটি সুইসাইড নোটও। তাঁর মৃত্যুর জন্য স্কুলের পরিচালন কমিটির কয়েকজন সদস্য ও এক চতুর্থ শ্রেণির মহিলা কর্মীকেই দায়ী করেছেন তিনি। সুইসাইড নোটে শিক্ষকের দাবি

- স্কুলের পরিচালন কমিটি আর্থিক অনিয়মে যুক্ত - তিনি কমিটির বিরুদ্ধে সরব হয়েছিলেন - তাই তাঁর বিরুদ্ধে ৪ নভেম্বর মিথ্যে মামলা রুজু - চতুর্থ শ্রেণির মহিলা কর্মীর শ্লীলতাহানির মিথ্যে মামলা - এর জেরে অপমানে আত্মহত্যা

ওই মহিলা কর্মীও শ্লীলতাহানির কোনও ঘটনা ঘটেনি বলে টেলিফোনে দাবি করেন প্রধান শিক্ষকের কাছে।

ঘটনা সামনে আসতেই ক্ষোভে ফেটে পড়েন স্থানীয়রা। স্কুলের সামনে দেহ রেখে চলে বিক্ষোভ। পরিচালন কমিটির সদস্য গণেশ দের দোকানেও ভাঙচুর চালায় উত্তেজিত জনতা। হাওড়া আমতা রোডও কিছুক্ষণের জন্য অবরোধ করেন স্থানীয়রা। পুলিশ গিয়ে পরিস্থিতি আয়ত্তে আনে।

তাহলে কি চাপের মুখেই প্রধান শিক্ষকের বিরুদ্ধে এই অভিযোগ করেন মহিলা? উঠছে প্রশ্ন। বৃদ্ধ মা-বাবার সঙ্গে থাকতেন ওই প্রধান শিক্ষক। তাঁর আত্মহত্যা মানতে পারছে না পরিবার।

First published: November 20, 2017, 7:49 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर