মাধ্যমিক পরীক্ষার্থী প্রেমিকার সঙ্গে দেখা করার 'অপরাধে' মাথা কামানো হল যুবকের!

মাধ্যমিক পরীক্ষার্থী প্রেমিকার সঙ্গে দেখা করার 'অপরাধে' মাথা কামানো হল যুবকের!
এই সেই ছেলে

অভিযোগ সেখানে তাকে মারধরের পাশাপাশি প্রকাশ্যে তার মাথা কামিয়ে দেওয়া হয়। এরপর মেয়েটির সঙ্গে দেখা করলে ফল আরও ভয়ানক হবে বলে তাকে শাসানো হয় বলেও অভিযোগ।

  • Share this:

#ভাতার: প্রেমিকা মাধ্যমিকের পরীক্ষার্থী। তার সঙ্গে দেখা করতে যাওয়ার অভিযোগে এক যুবককে বেদম মারধর করে মাথা কামিয়ে দেওয়ার অভিযোগ উঠলো। এই ঘটনাকে কেন্দ্র করে শনিবার সন্ধে থেকে উত্তাল পূর্ব বর্ধমানের ভাতার। ঘটনাকে কেন্দ্র করে দীর্ঘক্ষণ বর্ধমান কাটোয়া রাস্তা অবরোধ করেও রাখা হল। রাতে বিশাল পুলিশ বাহিনী এলাকায় গিয়ে পরিস্থিতি সামাল দেয়।

মাধ্যমিক দিচ্ছে প্রেমিকা। শনিবার ছিল ইতিহাস পরীক্ষা। উৎকন্ঠা আঁচ করে মনে সাহস দিতে তার সঙ্গে পরীক্ষা কেন্দ্রে দেখা করতে গিয়েছিল প্রেমিক। বছর কুড়ির ওই যুবকের নাম রজব আলি। কাটোয়ার রাজোয়া গ্রামে তার বাড়ি। এই প্রেমের সম্পর্কে মত ছিল না মেয়েটির পরিবারের। তারা দু জনকেই আগেই মেলামেশা করতে নিষেধ করেছিল। এদিন পরীক্ষা কেন্দ্রের বাইরে রজবকে দেখে ফেলে মেয়েটির এক আত্মীয়। অভিযোগ, এরপরই পরিচিতদের সাহায্যে রজবকে ধরে ফেলে তারা। তাকে পাকড়াও করে নিয়ে যাওয়া হয় ভাতারের পাটনা গ্রামে।

অভিযোগ  সেখানে তাকে মারধরের পাশাপাশি প্রকাশ্যে তার মাথা কামিয়ে দেওয়া হয়। এরপর মেয়েটির সঙ্গে দেখা করলে ফল আরও ভয়ানক হবে বলে তাকে শাসানো হয় বলেও অভিযোগ। সেখান থেকে ছাড়া পেয়ে রজব ভাতার থানায় গিয়ে লিখিত অভিযোগ জানায়। সেই অভিযোগের ভিত্তিতে ভাতার থানার পুলিশ পাটনা গ্রামে যায় ও ঘটনায় জড়িত থাকার অভিযোগে ছ জনকে আটক করে।

এরপর উত্তেজনা আরও বেড়ে যায়। বলগোনায় বর্ধমান কাটোয়া রাস্তা অবরোধ করে বিক্ষোভ শুরু করে তৃণমূল কংগ্রেস। তাদের বক্তব্য, পুলিশ যাদের ধরেছে তারা সকলেই তৃনমূল কংগ্রেস কর্মী। তাদের অভিযোগ, পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে হাতের কাছে যাদের পেয়েছে তাদের ধরেছে। প্রকৃত অপরাধীরা পালিয়েছে। যাদের ধরা হয়েছে তারা কেউই রজবকে মারধর বা তাকে হেনস্তার সঙ্গে জড়িত নয়। দলীয় নেতৃত্বের হস্তক্ষেপে রাত আটটা নাগাদ অবরোধ ওঠে। ঘটনার বিস্তারিত তদন্ত শুরু হয়েছে বলে জানিয়েছে জেলা পুলিশ।

Saradindu Ghosh

First published: February 22, 2020, 11:34 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर