হস্তশিল্প মেলার প্রধান আকর্ষণ 'গোলি মারো, খেলা হবে' !

হস্তশিল্প মেলার প্রধান আকর্ষণ 'গোলি মারো, খেলা হবে' !
হস্তশিল্পীদের দাবী, যুগের সঙ্গে তাল মিলিয়ে শিল্প হলে, তাতে বিক্রি বাড়ে।

হস্তশিল্পীদের দাবী, যুগের সঙ্গে তাল মিলিয়ে শিল্প হলে, তাতে বিক্রি বাড়ে।

  • Share this:

 #পূর্ব পুটিয়ারি: গত কাল থেকে শুরু হয়েছে ,পূর্ব পুটিয়ারি সোনাঝুরি হস্তশিল্প মেলা। মেলা এবার একটু অন্যরকম।মেলায় ঢুকলেই চোখে পড়বে ' খেলা হবে ' 'গোলি মার' এই সমস্ত কিছু লেখা। কোথাও, শাড়িতে লেখা ।কোথাও আবার কানের দুলে লেখা। কেউ আবার জিলিপি লিখছেন 'খেলা হবে'।  রাজ্যের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে এসেছেন, টেরাকোটা থেকে আরম্ভ করে বিভিন্ন হাতে তৈরি জিনিস নিয়ে শিল্পীরা।মুর্শিদাবাদ থেকে কাপড় এনেছেন সোনালি কর।তিনি কাপড়ের ওপর নানা ধরনের সচেতনতা মূলক শব্দ বন্ধ দিয়েছেন। তবে তার মধ্যে কাপড়ে লেখা ' খেলা হবে ' বেশ দর্শক সমালোচিত হচ্ছে, ও ক্রেতাদের আকর্ষণ করছে এই মেলা।

সোনালি দেবীর দাবি,'মেলাতে এসে খরিদ্দারেরা খুব দর কষাকষি করে।আমরা খরিদ্দার না ফিরিয়ে,অল্প লাভে বিক্রি করতে বাধ্য হই আমাদের তৈরি জিনিস গুলি।তবে ইদানিং কালে মজাদার কিছু মিলিয়ে তৈরি করার ফলে দরাদরি করার দিকে তেমন যাচ্ছে না ক্রেতারা।'   সামনে রাজ্য বিধানসভার নির্বাচন।সেই সুযোগে, বেশ কিছু স্লোগান সাধারণ কথ্য ভাষা থেকে - বেশ মজাদার ভাষার রূপ পেয়েছে। শিল্পীরা এই ভাষাগুলো ব্যবহার করছেন তাদের শিল্প কর্মে। সব থেকে মজার ব্যাপার হল, গেরুয়া রঙের কানের দুলে লেখা রয়েছে 'গোলি মার'।আর সবুজ রঙের কানের দুলের লেখা রয়েছে 'খেলা হবে'।

হস্তশিল্পীদের দাবী, যুগের সঙ্গে তাল মিলিয়ে শিল্প হলে, তাতে বিক্রি বাড়ে।তাই তারা এই ভাবে লিখে,কোথাও কাপড়ের ওপর,কোথাও কানের দুলে লিখছেন।  মেলার আয়োজক কর্তা, রাজশ্রী দাসের কথায়, 'সারা লক ডাউন ধরে, হস্ত শিল্পীদের অবস্থা খুবই খারাপ হয়ে গিয়েছিল।তাদের নিয়ে প্রতিটা জেলায় মেলা করে সাফল্য আসছে।শিল্পীরা তাদের তৈরি দ্রব্যের দাম পাচ্ছেন।কোথাও মজার ,আবার কোথাও বিতর্কিত লেখার জন্য ক্রেতাদের কেনার আগ্রহ বাড়ছে।'  মেলায় সেই কৃষ্ণ-কালের বাঁশি ওয়ালাকে দেখা গেল,একমনে সেই যুগান্তরের প্রচলিত নিয়ম মেনেই,বাঁশের বাঁশি বাজিয়ে,মেলার আবহাওয়া শ্রুতি মধুর করছে,সঙ্গে নিজের বিক্রিও সারছে।


SHANKU SANTRA

Published by:Piya Banerjee
First published: