দক্ষিণবঙ্গ

corona virus btn
corona virus btn
Loading

'আমি পাগলা ষাঁড় হয়ে যাইনি', বিজেপির নব্য নেতা শুভেন্দুকেই কী বিঁধলেন ভাই দিব্যেন্দু! জল্পনা তুঙ্গে...

'আমি পাগলা ষাঁড় হয়ে যাইনি', বিজেপির নব্য নেতা শুভেন্দুকেই কী বিঁধলেন ভাই দিব্যেন্দু! জল্পনা তুঙ্গে...

বাবা শিশির এবং ভাই দিব্যেন্দু অধিকারী এখনও তৃণমূলের সাংসদ। তার মধ্যে একজন দলের জেলা সভাপতি। পরিবারের আরেকজন সদস্য স্থানীয় পুরপ্রধান তথা বিধায়ক। এমতাবস্থায় শুভেন্দু শনিবার বিজেপিতে যোগ দিয়েছেন।

  • Share this:

#কাঁথি: বাবা শিশির এবং ভাই দিব্যেন্দু অধিকারী এখনও তৃণমূলের সাংসদ। তার মধ্যে একজন দলের জেলা সভাপতি। পরিবারের আরেকজন সদস্য স্থানীয় পুরপ্রধান। এমতাবস্থায় পরিবারের বড় ছেলে শুভেন্দু শনিবার তৃণমূলের সঙ্গে ২১ বছরের সম্পর্ক ছিন্ন করে বিজেপিতে যোগ দিয়েছেন। কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ মেদিনীপুরের কলেজ মাঠে দাঁড়িয়ে শুভেন্দুর হাতে বিজেপির পতাকা তুলে দিয়েছেন।

রাজ্যের মন্ত্রী হওয়ার পাশাপাশি শুভেন্দু ছিলেন দলের ৩৫টি পদের অধিকারী। তবে সব সম্পর্কই শেষ ১৫ দিনে ধীরে ধীরে শেষ করেছেন শুভেন্দু। তবে কী এ বার তৃণমূল ছেড়ে বিজেপিতে যাবেন পরিবারের ছোট ছেলে দিব্যেন্দুও? সেই প্রশ্নের উৎরেই এ দিন দিব্যেন্দু বলেন, 'এটা শুভেন্দু অধিকারীর ব্যক্তিগত সিদ্ধান্ত। একই পরিবারে আমরা থাকই। তবে রাজনীতির ময়দানে তৃণমূলের সংসদ আছি, থাকব। আমি মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের অনুগত সৈনিক। আগামী দিনেও থাকব।' আর এ দিনের এই মন্তব্যের পরেই সমালোচনার ঝড় উঠেছে রাজনৈতিক মহলে। অনেকেরই ব্যঙ্গ করতে শুরু করেছেন, তবে কী দিব্যেন্দু পাগলা ষাঁড় বললেন শুভেন্দুকেই?

তবে রাজনৈতিক মহলের মতে, মুকুল রায় বিজেপিতে যোগদান করার পরে শুভ্রাংশুও বলেছিলেন তিনি দলে সঙ্গেই থাকবেন। কিন্তু পরবর্তীতে দল ছেড়ে বিজেপিতে যোগ দেন মুকুল-পুত্র। ফলে সম্ভাবনা একেবারেই উড়িয়ে দিচ্ছেন না কেউই। এ দিন বিজপি যাওয়ার সম্ভাবনার কথা বলাতেই তীব্র শ্লেষ ঝড়ে পড়ে তাঁর গলায়। দিব্যেন্দু বলেন, 'আমি তো আর পাগলা ষাঁড় হয়ে যাইনি। আমার অবস্থান স্পষ্ট।' এ দিকে ছেলের দলবদল নিয়ে কোনও মন্তব্য করতে চাননি শিশির অধিকারী।

শনিবার মেদিনীপুর শহরের কলেজ মাঠে বিজেপির সেকেন্ড ম্যান ইন কম্যান্ড তথা দেশের কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহের উপস্থিতিতে গেরুয়া শিবিরে যোগদান করেছেন শুভেন্দু অধিকারী। সেই মাঠে দাঁড়িয়েই কড়া ভাষায় আক্রমণ শানিয়েছেন তৃণমূল সুপ্রিমো মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে। এমনকি দলে অধিকারী পরিবারের অবদান ও ভূমিকার কথা মনে করিয়ে দিয়েছেন অক্ষরে অক্ষরে। পাশাপাশি মেদিনীপুরের মাটিতে অধিকারীদের আধিপত্যের কথাও স্মরণ করিয়ে দিয়েছেন।

শুভেন্দুর এ হেন বক্তব্যের জেরে প্রশ্ন উঠেছিল তালে কী অধিকারী পরিবারের বাকিরাও দল ছাড়ার প্রস্তুতি নিয়ে ফেলেছেন! ঘটনাচক্রে প্রায় এক মাস আগেই শুভেন্দুর বাবা তথা কাঁথির তৃণমূল সাংসদ এবং দলের জেলা সভাপতি শিশির অধিকারী জানিয়ে দিয়েছিলেন তিনি মমতার সঙ্গে বিশ্বাসঘাতকতা করতে পারবেন না।

Published by: Shubhagata Dey
First published: December 20, 2020, 4:52 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर