বাহারি আলো ও চওড়া রাস্তায় সেজে উঠেছে বর্ধমানের জি টি রোড

ই রাস্তার পাশে ফুলের বাহার, রাতে বাহারি আলোয় তারুন্য ফিরে পেয়েছে বর্ধমান

ই রাস্তার পাশে ফুলের বাহার, রাতে বাহারি আলোয় তারুন্য ফিরে পেয়েছে বর্ধমান

  • Share this:

#বর্ধমান: অনেকদিন পা রাখেননি বর্ধমান শহরে? কিংবা কাজের চাপে অফিস বাড়ি করতে করতে ঘুরে দেখা হয়নি শহরটা? তবে আপনাকে জানাই চওড়া জিটিরোডের সৌজন্যে অনেকটাই আধুনিক ঝা চকচকে হয়ে গিয়েছে ইতিহাস প্রাচীন এই শহর। সুন্দর। রাজ্যের অনেক শহরকেই সৌন্দর্যে আধুনিকতায় চ্যালেঞ্জ জানাতেই পারে এই শহর। জাতীয় সড়ক দিয়ে উল্লাস বা নবাবহাট যে দিক দিয়েই ঢুকুন না কেন ঝা চকচকে চওড়া রাস্তা আপনার চোখ টানবেই টানবে। দুই রাস্তার পাশে ফুলের বাহার, রাতে বাহারি আলোয় তারুন্য ফিরে পেয়েছে বর্ধমান। যানজটহীন মসৃন রাস্তায় অনেকেই বেরচ্ছেন সান্ধ্য ভ্রমণে।

এতদিন বর্ধমান মানেই ছিল মলিন এবড়োখেবড়ো রাস্তার এক গড়পরতা শহর। কিন্তু জিটিরোড সম্প্রসারণের পর এখন জেল্লা এসেছে শহরের বহিরঙ্গে। এ শহরের লাইফলাইন জিটিরোড। শহরের মধ্যস্হলে আলো করে রয়েছে বিজয় তোরণ। তার দুপাশে যত যাওয়া যায় জিটিরোড চওড়া হয়েছে ততটাই। ঝা চকচকে সেই রাস্তা এখন সৌন্দর্য্যে যে কোনও শহরকে টেক্কা দিতে তৈরি। বাহারি আলো মুক্তোর মতো জ্বলজ্বল করছে। রাস্তার দুপাশে সবুজের সমারোহ। মাথা দোলাচ্ছে বাহারি ফুল। দু পাশে বহুতলের সারি। তেল চকচকে কালো রাস্তা দিয়ে ছুটে চলেছে চারচাকা গাড়ি। ঠিক যেন সিনেমার দৃশ্য।

সকাল সন্ধ্যা এই রাস্তার ফুটপাত ধরে হাঁটছেন অনেকেই। সন্ধ্যার পর গাড়ি নিয়ে লঙ ড্রাইভে বেরচ্ছেন সপরিবারে। কয়েকমাস আগেও সন্ধ্যার পর অন্ধকারে ছিনতাইয়ের ভয়ে অনেকেই আসতে ভয় পেতেন। এখন আঁধার ঘুচতেই মন ভালো করতে বেরচ্ছেন অনেকে। অনেক দিন পর যাঁরা এশহরে আসছেন  তাঁরা শহরের নতুন রূপে তাজ্জব হচ্ছেন। তারিফে ভরিয়ে দিচ্ছেন তাঁরা। গর্বে বুক ভরে উঠছে শহরবাসীর।

Saradindu Ghosh
Published by:Ananya Chakraborty
First published: