পোষা ছাগলকে তাড়া করার ‘অপরাধে’ পাড়ার কুকুরের চার পা বেঁধে পেট পর্যন্ত চিড়ে দিল মালিক

পোষা ছাগলকে তাড়া করার ‘অপরাধে’ পাড়ার কুকুরের চার পা বেঁধে পেট পর্যন্ত চিড়ে দিল মালিক
কুকুরটিকে হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হচ্ছে ৷ নিজস্ব চিত্র ৷

বৃহস্পতিবার সকালে সেচ দফতরের নিরাপত্তা রক্ষীরা ওই কুকুরটিকে পা বাঁধা অবস্থায় পড়ে থাকতে দেখে উদ্ধার করে কলোনির ভেতর থেকে।

  • Share this:

Supratim Das

#বীরভূম: বাড়ির পোষা ছাগলকে তাড়া করার অভিযোগে পথকুকুরকে ধারালো অস্ত্রের কোপ সেচ দপ্তরের কর্মীর। বীরভূমের সিউড়ির সেচ দফতর কলোনির ঘটনা। বৃহস্পতিবার সকালে সেচ দফতরের নিরাপত্তা রক্ষীরা ওই কুকুরটিকে পা বাঁধা অবস্থায় পড়ে থাকতে দেখে উদ্ধার করে কলোনির ভেতর থেকে। বোঝা যায় ধারালো অস্ত্রের কোপ মারা হয়েছে তার পেটে ও পিঠে।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, ইরিকেশন দপ্তরের C-11 কোয়ার্টারের বাসিন্দা,  সেচ দপ্তরের কর্মচারী নগেন দাস ধারালো অস্ত্রের কোপ দিয়েছে কুকুরটিকে। জানা যায়, তার কোয়ার্টারে পোষা ছাগলকে তাড়া করাতে ওই কুকুরটির চারটি পা বেঁধে প্রথমে গলা থেকে পেট পর্যন্ত ব্লেড দিয়ে চিড়ে দেওয়া হয়, পরে তাকে ধারালো অস্ত্রের কোপ দেয় নগেন দাস। অভিযুক্ত ওই ব্যাক্তির খোঁজ করা হলে তার কোয়ার্টারে পাওয়া যায়নি তাকে।

তার স্ত্রী জানিয়েছেন, তাদের বাড়ির পোষা ছাগলকে তাড়া করার জন্যই প্রতিশোধ নিতে কুকুরটিকে এইভাবে ধারালো অস্ত্রের কোপ দিয়েছে তার স্বামী। সেচ দফতরের নিরাপত্তারক্ষীরা ও স্থানীয় ব্যাক্তিরা কুকুরটিকে উদ্ধার করে বীরভূমের সিউড়ি পশু হাসপাতালে ভর্তি করেছেন ৷ স্থানীয় Hands of Care স্বেচ্ছাসেবী সংস্থায় সহযোগীতায় কুকুরটির চিকিৎসা শুরু হয়েছে।

First published: February 27, 2020, 6:57 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर