• Home
  • »
  • News
  • »
  • south-bengal
  • »
  • ছোপ ছোপ নীলচে শরীর ! অতিকায় এই মশাকে ঘিরে আতঙ্ক ছড়াল কাকদ্বীপে

ছোপ ছোপ নীলচে শরীর ! অতিকায় এই মশাকে ঘিরে আতঙ্ক ছড়াল কাকদ্বীপে

  • Share this:

    #কাকদ্বীপ: অদ্ভুত এক মশাকে ঘিরে আতঙ্ক ছড়াল দক্ষিণ ২৪ পরগণার কাকদ্বীপে ৷ বাসন্তী ময়দান এলাকার এক বাসিন্দার বাড়িতে কৌটোবন্দী হয় ওই মশা ৷

    এত বড় মশা দেখে স্বভাবতই আতঙ্ক ছড়ায় এলাকায় ৷ তবে দিনের শেষে পতঙ্গ বিশারদরা আশ্বস্ত করেছেন, এই মশা ক্ষতিকারক নয়, উপকারী ৷

    ঘনাদার গল্প মনে আছে নিশ্চয় ৷ জীবনে তিনি একটাই মশা মেরেছিলেন ৷ তাও আবার দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের সময় সাখালিন দ্বীপে ৷ না মারলে ঘনাদা বা ঘনশ্যাম দাসকে পেতাম না আমরা ৷ সে মশা ছিল প্রাণঘাতী ৷ ঘনাদার মুখ থেকে তেমন মশার গল্প শোনার সৌভাগ্য না হলেও, যথেষ্ট ভয় পেয়েছেন কমলা মজুমদার ৷ ডেঙ্গি,ম্যালেরিয়ার ভয়ে মারবেন কি, হাতে বসা মশার দিকে তাকিয়ে ভিরমি খাবার জোগাড় কমলার ৷ সাতটা পা, পিঠে বড় পাখনা ৷ ছোপ ছোপ নীলচে শরীরে হুলটাও অন্য মশার তুলনায় বেশ বড় !

    কোনওমতে মশাকে কৌটোয় ভরেন কমলা ৷ তারপর সেই মশা দেখতে মজুমদার বাড়িতে ভিড় ৷ পাল্লা দিয়ে ছড়াতে থাকে আতঙ্কও ৷ তবে পতঙ্গ বিশারদরা জানাচ্ছেন আতঙ্কের কোনও কারণ নেই ৷ এ মশা আমাদের বন্ধু ৷ বিজ্ঞানী নিশিমারার তৈরি মশা মেরে মানবসভ্যতাকে বাঁচিয়েছিলেন ঘনাদা ৷ সে আতঙ্ক থেকে মুক্তি পেলেও এরপর থেকে মশা মারার আগে, ভাল করে ৷ আগে দেখে নেবেন সবাই ৷ অজান্তে উপকারী মশা যেন না মেরে ফেলেন ৷

    First published: