corona virus btn
corona virus btn
Loading

দারুন খবর ! এবার থেকে স্কুলের মিড ডে মিলে ভাতের সঙ্গে মিলবে ঘি

দারুন খবর ! এবার থেকে স্কুলের মিড ডে মিলে ভাতের সঙ্গে মিলবে ঘি

এবার থেকে সপ্তাহে ৩দিন স্কুলের মিড-ডে মিলেই গরম ভাতের সঙ্গে মিলবে ঘি

  • Share this:

#বাসন্তী: এবার থেকে সপ্তাহে ৩দিন স্কুলের মিড- ডে মিলেই গরম ভাতের সঙ্গে মিলবে ঘি। বিধায়ক জয়ন্ত নস্করের উদ্যোগে বাসন্তী ব্লকের চুনাখালি গ্রাম পঞ্চায়েতের ২২টি প্রাথমিক স্কুল ও ৬টি শিশুশিক্ষা কেন্দ্রের পড়ুয়ারা পাবে এই ঘি -ভাত। সোমবার দক্ষিণ ২৪ পরগনার বাসন্তী ব্লক তথা গোসাবা বিধানসভার অন্তর্গত চুনাখালি হাটখোলা অবৈতনিক প্রাথমিক স্কুলে একটি অনুষ্ঠানের মাধ্যমে এই প্রকল্পের সুচনা হয়। অনুষ্ঠানে জয়ন্ত নস্কর ছাড়াও উপস্থিত ছিলেন বাসন্তীর সমষ্টি উন্নয়ন আধিকারিক সৌগত সাহা, দক্ষিণ ২৪ পরগনা জেলা পরিষদের শিক্ষার কর্মাধ্যক্ষ প্রকাশ মণ্ডল, বাসন্তী পঞ্চায়েত সমিতির সভাপতি কামাল উদ্দিন লস্কর, বাসন্তী ব্লকের প্রাথমিক বিদ্যালয় পরিদর্শক সন্দীপ চক্রবর্তী সহ বহু বিশিষ্ট ব্যক্তি।

কিছুদিন আগেই হুগলির একটি স্কুলের মিড ডে মিলে নুন ভাত দেওয়ার ঘটনায় হৈচৈ পড়ে গিয়েছিল। বিরোধীদের খোঁচায় তড়িঘড়ি সরকারি স্কুলের মিড ডে মিলের দৈনন্দিন খাদ্য তালিকা প্রকাশ করেছিল নবান্ন। কিন্তু সরকারি উদ্যোগ ছাড়াই সম্পূর্ণ ব্যক্তিগত উদ্যোগে এবার থেকে চুনাখালি গ্রাম পঞ্চায়েত এলাকার এই স্কুলগুলিতে মিড ডে মিলে ঘিয়ের ব্যবস্থা করলেন স্থানীয় বিধায়ক জয়ন্ত নস্কর। প্রাথমিক ভাবে এদিন সমস্ত স্কুলের শিক্ষকদের হাতে এ'মাসের বরাদ্দ ঘি তুলে দেওয়া হয়। প্রতিমাসে বিধায়কের কাছ থেকে স্কুলের শিক্ষকরা এই ঘি নিয়ে যাবেন বলেও জানানো হয়েছে। এই গ্রাম পঞ্চায়েতের প্রায় পাঁচ হাজার পড়ুয়া এবার থেকে সপ্তাহে ৩দিন এই ঘি-ভাত পাবে। এরফলে শিশুদের শারীরিক ও মানসিক গঠন আরও ভালো হবে বলে জানান জয়ন্ত নস্কর। তাঁর ভাষায়, “ বিধানসভা থেকে আমি যে সাম্মানিক পাই, তা দিয়েই এই ঘিয়ের ব্যবস্থা করেছি। যতদিন আমি বেঁচে আছি মিড ডে মিলে ঘিয়ের অভাব হবে না। আমার এককাঠা জমি থাকলেও তা বিক্রি করে পড়ুয়াদের জন্য ঘিয়ের ব্যবস্থা করব। তবে আমার একার পক্ষে সুন্দরবনের সমস্ত স্কুলে ঘি এর ব্যবস্থা করা সম্ভব নয়। যদি সুহৃদয় মানুষজন এগিয়ে আসেন তাহলে আরও অনেক শিশু এই অপুষ্টি থেকে মুক্তি পেতে পারে”। বিধায়কের এই উদ্যোগে খুশি বিডিও সহ অন্যান্য আধিকারিক ও অভিভাবকরা।

First published: September 10, 2019, 11:41 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर