দক্ষিণবঙ্গ

corona virus btn
corona virus btn
Loading

তৃণমূলে সম্মান নেই, সাংসদই দুর্নীতিগ্রস্ত! এবার সুর চড়ালেন বহরমপুরের প্রাক্তন পুরপ্রধান

তৃণমূলে সম্মান নেই, সাংসদই দুর্নীতিগ্রস্ত! এবার সুর চড়ালেন বহরমপুরের প্রাক্তন পুরপ্রধান
বহরমপুরের প্রাক্তন পুরপ্রধান নীলরতন আঢ্য৷ Photo-Facebook

দীর্ঘ ১৮ বছর ধরে বহরমপুরের সাংসদ পদে রয়েছেন নীলরতন আঢ্য৷ একসময় কংগ্রেসে অধীর চৌধুরীর ঘনিষ্ঠ ছিলেন নীলরতনবাবু৷

  • Share this:

#বহরমপুর: আসানসোলের প্রাক্তন মেয়র এবং প্রশাসক বোর্ডের প্রধান জিতেন্দ্র তিওয়ারির পর এবার বহরমপুরের প্রাক্তন পুরপ্রধান নীলরতন আঢ্য৷ দলের বিরুদ্ধে ক্ষোভ উগরে দিলেন আরও এক তৃণমূল নেতা৷ রাখঢাক না করেই বললেন, তৃণমূলে কোনও সম্মান নেই৷ এমনই দলের জেলা সভাপতি ও সাংসদের বিরুদ্ধে দুর্নীতিগ্রস্ত বলেও অভিযোগ করেছেন নীলরতনবাবু৷ পাল্টা মুর্শিদাবাদের সাংসদ আবু তাহেরের অভিযোগ, অধীর চৌধুরীর সঙ্গে যোগসাজশ করেই এই ধরনের অভিযোগ করছেন নীলরতন আঢ্য৷

দীর্ঘ ১৮ বছর ধরে বহরমপুরের সাংসদ পদে রয়েছেন নীলরতন আঢ্য৷ একসময় কংগ্রেসে অধীর চৌধুরীর ঘনিষ্ঠ ছিলেন নীলরতনবাবু৷ তৃণমূলে যোগ দেওয়ার পর গত কয়েক বছরে শুভেন্দু অধিকারীর ঘনিষ্ঠ বলেই পরিচিত হয়ে ওঠেন তিনি৷ কারণ তৃণমূলের তরফে মুর্শিদাবাদ জেলার দায়িত্বও দীর্ঘদিন সামলেছেন শুভেন্দু৷ ক্ষুব্ধ নীলরতনবাবুর অভিযোগ, রাজ্য জুড়ে বহু পুরসভায় পুরবোর্ডের মেয়াদ শেষ হওয়ার পর সেখানে প্রাক্তন পুরপ্রধানদেরকেই প্রশাসক হিসেবে বসানো হলেও বহরমপুরের ক্ষেত্রে তা করা হয়নি৷ তিনি বলেন, 'আমরা শহরের উন্নয়নের স্বার্থে তৃণমূলে গিয়েছিলাম৷ কিন্তু তৃণমূলে কোনও ভালমন্দ আলোচনায় আমাদের ডাকা হয় না৷ কারণ ডাকলে অনেকের অসুবিধে হবে না৷ পার্টি অফিসে গোষ্ঠীবাজি করছে৷ বেশ কিছু মানুষ রোজগারের জন্য দল করছে৷ মানুষ খেতে পেল কি না পেল, তা তাঁরা ভাবছেন না৷ আমরা পার্টি অফিসে বসে এসব করতে দেব না৷' নীলরতনবাবুর আরও অভিযোগ, দুর্নীতি নিয়ে জেলা সভাপতি এবং মুর্শিদাবাদের সাংসদ আবু তাহেরকে একাধিকবার অভিযোগ জানালেও তিনি কোনও পদক্ষেপ করেননি৷

নীলরতনবাবুর এই অভিযোগ মানতে নারাজ আবু তাহের৷ তাঁর অভিযোগ, দলের কাজে সময়ই দেন না নীলরতনবাবু৷ দলীয় কার্যালয়েও আসেন না তিনি৷ বরং প্রশাসক হওয়ার জন্য বার বার তাঁকে ফোন করে অনুরোধ করেছেন৷ অধীর চৌধুরীর সঙ্গে বৈঠক করার পরই তিনি এই ধরনের অভিযোগ করেছেন বলেও দাবি করেছেন দলের জেলা সভাপতি৷

যদিও এই অভিযোগ খারিজ করে দিয়ে নীলরতনবাবুর পাল্টা দাবি, অধীর চৌধুরীর সঙ্গে তাঁর ৪৫ বছরের সম্পর্ক৷ সৌজন্যের খাতিরেই তিনি বহরমপুরের সাংসদের সঙ্গে বৈঠক করেছেন বলে জানিয়েছেন নীলরতনবাবু৷ পাল্টা তাঁর প্রশ্ন, 'মুখ্যমন্ত্রীও তো বাবুল সুপ্রিয়কে তাঁর গাড়িতে তুলেছেন৷ তিনি তো বিজেপি-র নেতা৷'

Published by: Debamoy Ghosh
First published: December 15, 2020, 10:02 AM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर