দাদার অনুগামীদের অফিস খুলল পুরুলিয়ায়! রাজ্যে এই প্রথম

পুরুলিয়ার অফিসে শুভেন্দু অনুগামীরা৷

শুধু পূর্ব মেদিনীপুর নয়, জঙ্গলমহলের তিন জেলা পশ্চিম মেদিনীপুর, পুরুলিয়া এবং বাঁকুড়াতে শুভেন্দুর প্রভাব অনস্বীকার্য৷

  • Share this:

    #পুরুলিয়া: এতদিন ছিল পোস্টার, ব্যানার৷ এবার পুরুলিয়ায় রাতারাতি অফিস খুলে বসলেন দাদা অর্থাৎ শুভেন্দু অধিকারীর অনুগামীরা৷ রাজ্যে এই প্রথম দাদার অনুগামীদের অফিস খোলা হল বলেই দাবি উদ্যোক্তাদের৷

    শুধু পূর্ব মেদিনীপুর নয়, জঙ্গলমহলের তিন জেলা পশ্চিম মেদিনীপুর, পুরুলিয়া এবং বাঁকুড়াতে শুভেন্দুর প্রভাব অনস্বীকার্য৷ তারই প্রমাণ দিয়ে রবিবার পুরুলিয়া শহরের সরকারপাড়ায় দাদার অনুগামীদের নামে এই অফিস খোলা হয়৷ সেখানে ভিড়ও ছিল চোখে পড়ার মতো৷ যাঁদের অফিসে দেখা যায়, তাঁদের অধিকাংশই এলাকার তৃণমূল নেতা, কর্মী হিসেবেই পরিচিত৷ অফিসের ভিতরেও ছিল শুভেন্দুর ছবি৷ সঙ্গে নেতাজি সুভাষচন্দ্র বসু এবং স্বামী বিবেকানন্দের ছবিও দেখা যায়৷ অন্যতম উদ্যোক্তা গৌতম রায় যদিও দাবি করেন, 'এটা কোনও রাজনৈতিক অফিস নয়৷ সমাজসেবামূলক কাজ করার জন্যই এই অফিস খোলা হয়েছে৷ আমাদের লক্ষ্য মানুষের পাশে থাকা৷' অফিসের বাইরে এ দিন শুভেন্দুর সমর্থনে স্লোগানও ওঠে৷

    তবে সংবাদমাধ্যমের সামনে সমাজসেবার কথা বললেও আড়ালে দাদার অনুগামীদের অনেকের গলাতেই ভোট কুশলী প্রশান্ত কিশোরের বিরুদ্ধে ক্ষোভের সুর শোনা গেল৷ অফিসের ভিতরে দেওয়ালের রং সবুজ হলেও একপাশের দেওয়ালে ফিকে হয়ে যাওয়া ঘাসফুলের প্রতীকও চোখে পড়ল৷ জেলা তৃণমূল নেতৃত্ব অবশ্য এই অফিসকে গুরুত্ব দিতে নারাজ৷ জেলা তৃণমূলের মুখপাত্র নব্যেন্দু মাহালি বলেন, 'ব্যক্তিগত উদ্যোগে কেউ অফিস করতেই পারেন৷ এটা কোনও রাজনৈতিক অফিস নয়৷ তবে ভবিষ্যতে দল বিষয়টি নিয়ে ভাবনাচিন্তা করবে৷'

    ইতিমধ্যেই এই জেলাতেও শুভেন্দু ঘনিষ্ঠ নেতাদের উপরে কোপ পড়তে শুরু করেছে৷ প্রাক্তন জেলা সভাধিপতি সৃষ্টিধর মাহাতোর ছেলে এবং শুভেন্দু অনুগামী হিসেবে পরিচিত বলরামপুুরের তৃণমূল নেতা সুদীপ মাহাতোর দেহরক্ষীও কয়েকদিন আগে প্রত্যাহার করে নেওয়া হয়৷

    Indrajit Kundu

    Published by:Debamoy Ghosh
    First published: