Hilsa in Digha: ইলিশ নেই, ইলিশ কই? বর্ষার ভরা মরশুমেও হা-হুতাশ দিঘার সমুদ্রের পাড়ে

দিঘায় দেখা নেই ইলিশের৷

এ বছর গভীর সমুদ্রে পাড়ি জমিয়ে মৎস্য শিকারে নেমে বিফল মনোরথেই ফিরছে দিঘা শংকরপুরের মৎস্যজীবিদের ট্রলার (Hilsa in Digha)।

  • Share this:

#দিঘা: একে ভরা শ্রাবণ, তার উপরে পূূবালি হাওয়া আর বৃষ্টি, তবু ভরা এই মরসুমেও ইলিশের দেখা নেই দিঘার সমুদ্রে৷ স্বভাবতই মাথায় এক রকম হাত পড়েছে সমুদ্র উপকূলের মৎস্যজীবীদের! জুন মাসের ১৫ তারিখ থেকে মাঝ সমুদ্রে মাছ ধরা শুরু হলেও এবার আর সেভাবে জালে উঠছে না ইলিশ।

এ বছর গভীর সমুদ্রে পাড়ি জমিয়ে মৎস্য শিকারে নেমে বিফল মনোরথেই ফিরছে দিঘা শংকরপুরের মৎস্যজীবিদের ট্রলার। মৎস্যজীবীরা অল্প স্বল্প মাছ নিয়েই ফিরছেন। ফলে ক্ষতির মুখে পড়ছেন মাছ ধরার লঞ্চ আর ট্রলার মালিকরা। সকলেই আশায় ছিলেন, বৃষ্টি শুরু হলে পর্যাপ্ত ইলিশ সহ অন্যান্য সামুদ্রিক মাছ ধরা পড়বে তাঁদের জালে। কিন্তু ইলিশ সহায়ক পূবালি হাওয়া কিংবা বৃষ্টিপাত শুরু হলেও জালে পড়ছে না সমুদ্রের রুপোলী শস্য ইলিশ।

হতাশ মৎস্যজীবি বা ট্রলার মালিকদের অনেকেই মাছ ধরা বন্ধ করে দিচ্ছেন। যার কারণে সমস্যায় পড়ছেন লঞ্চ ও ট্রলার কর্মী থেকে অন্যান্য মৎস্যজীবীরা। মাছের আকালের কারণে দিঘা মোহনার বৃহৎ মৎস্য নিলাম কেন্দ্র এখন একেবারে ফাঁকা অবস্থায় পড়ে থাকছে। ট্রলার মালিকরা জানাচ্ছেন, একদিকে বরফ ও ডিজেলের অস্বাভাবিক মূল্য বৃদ্ধি, তার উপরে জালে উঠেছে না মাছ। সমস্যা তাই তীব্র থেকে আরও তীব্র হচ্ছে। এক একটি লঞ্চ, ট্রলার মাছ ধরতে গেলে প্রত্যেক বার এক থেকে দেড় লক্ষ টাকা খরচ হয়,সেখানে আসে ৫০ থেকে ৬০ হাজার টাকার মাছ পাওয়া যাচ্ছে। তাই দিনের পর দিন ক্ষতি মাথায় নিয়ে নিয়ে মাঝ সমুদ্রে পাড়ি দিয়ে মাছ ধরা চালিয়ে যাওয়া সম্ভব হচ্ছে না মৎস্যজীবিদের পক্ষে। 'ক্ষতি মাথায় নিয়ে কতদিন চলবে?' প্রশ্ন করছেন দিঘা উপকূলের মৎস্যজীবিরা।

কর্মীদের বেতন দিতে, খরচ সামলাতে তাঁরা হিমসিম খাচ্ছেন ট্রলার মালিকরা। বাধ্য হয়ে ধীরে ধীরে মাছ ধরা বন্ধই করে দিচ্ছেন অনেকে। সঙ্গে করোনা, লকডাউনের জেরে বিদেশে মাছ রপ্তানি বন্ধ এবং পাইকারি ব্যবসায়ীরাও এবার কম আসছেন। তাই সংকট দিন দিন চরম আকার নিচ্ছে। সমুদ্রের বিভিন্ন প্রজাতির মাছ ধরা পড়ছে বটে, সে সবের দর না পাওয়ায় ক্ষতির সম্মুখীন হতে হচ্ছে। বাইরের পাইকাররা না আসায়, কেবল রপ্তানি হয় এমন মাছ ফেলে দিতেও বাধ্য হচ্ছেন মাছ ব্যবসায়ীরা। তবে ইলিশ সব ক্ষতি পুষিয়ে দিতে পারে বলেই ধারণা তাদের। ট্রলার ভর্তি ইলিশের স্বপ্ন চোখে নিয়ে আজও তাই সমুদ্রে পাড়ি জমাচ্ছেন উপকূলের মৎস্যজীবীদের একাংশ। যদি দিন ফেরে- এই আশা আর স্বপ্ন নিয়েই সব বাধা উপেক্ষা করে চলছে এই ইলিশ সন্ধান।

Published by:Debamoy Ghosh
First published: